এই সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না: মোশাররফ
jugantor
এই সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না: মোশাররফ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৫৭:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

এই সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না: মোশাররফ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, এই সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না এবং নির্বাচনে যাব না।

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক সম্প্রীতি সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে হটিয়ে একটি নির্দলীয় সরকার প্রতিষ্ঠা করে আগামী দিনে নির্বাচন করব। সবাই আগামী দিনে আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য প্রস্তুতি নিন।

এই সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দাবি করেন, আজকে ৫০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অবিলম্বে তাদের মুক্তি চান বিএনপি মহাসচিব।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমি ভাইদের বলতে চাই— আপনারা অনেক কষ্ট করে, এভাবে অনেক প্রতিকূলতা এড়িয়ে এখানে উপস্থিত হয়েছেন। আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ। আমি অনুরোধ করব—এখান থেকে শান্তিপূর্ণভাবে যে যেখান থেকে এসেছেন, চলে যাবেন। আমরা কোনো মিছিল বা র্যালি করছি না সম্প্রীতির স্বার্থে।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশে একটা নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করার জন্য সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে হিন্দু, মুসলমানের মধ্যে সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার ষড়যন্ত্র করেছে। আমরা বিশ্বাস করি, বাংলাদেশের সবসম্প্রদায়ের মানুষ একসঙ্গে বাস করছি। আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় এসেছে, তখন হিন্দু সম্প্রদায়ের, বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের, মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপরে তারা আঘাত হেনেছে। তাদের লক্ষ্য একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করা।

তিনি বলেন, আমাদের কোনো গণতান্ত্রিক স্পেস দেয় না আমরা যারা বিরোধী দল করি, আমাদের একটা সভা করার জায়গা দেয় না, একটা মিছিল করার জায়গায় দেয় না। মানুষের যে অধিকার, সেগুলোকে দমন করার জন্য তারা সব রকম নির্যাতনমূলক-দমনমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে।

নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আপনারা একটু দয়া শান্ত থাকবেন। আমরা শান্তিতে বিশ্বাস করি। আমরা আমাদের হিন্দু সম্প্রদায়ের ভাইদের, বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ভাইদের ওপর কোনো আঘাত আসলে সেটি আমরা সামনে গিয়ে অবশ্যই প্রতিহত করব, প্রতিরোধ করব।

সমাবেশে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, আহমেদ আজম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, দলের নেতা— মীর সরফত আলী সপু, আবদুস সালাম আজাদ, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এই সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না: মোশাররফ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
এই সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না: মোশাররফ
ফাইল ছবি

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, এই সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না এবং নির্বাচনে যাব না।  

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক সম্প্রীতি সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে হটিয়ে একটি নির্দলীয় সরকার প্রতিষ্ঠা করে আগামী দিনে নির্বাচন করব। সবাই আগামী দিনে আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য প্রস্তুতি নিন।

এই সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দাবি করেন, আজকে ৫০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অবিলম্বে তাদের মুক্তি চান বিএনপি মহাসচিব।

বিএনপি মহাসচিব বলেন,  আমি ভাইদের বলতে চাই— আপনারা অনেক কষ্ট করে, এভাবে অনেক প্রতিকূলতা এড়িয়ে এখানে উপস্থিত হয়েছেন। আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ। আমি অনুরোধ করব—এখান থেকে শান্তিপূর্ণভাবে যে যেখান থেকে এসেছেন, চলে যাবেন। আমরা কোনো মিছিল বা র্যালি করছি না সম্প্রীতির স্বার্থে।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশে একটা নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করার জন্য সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে হিন্দু, মুসলমানের মধ্যে সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার ষড়যন্ত্র করেছে। আমরা বিশ্বাস করি, বাংলাদেশের সবসম্প্রদায়ের মানুষ একসঙ্গে বাস করছি। আওয়ামী  লীগ যখনই ক্ষমতায় এসেছে, তখন হিন্দু সম্প্রদায়ের, বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের, মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপরে তারা আঘাত হেনেছে। তাদের লক্ষ্য একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করা। 

তিনি বলেন, আমাদের কোনো গণতান্ত্রিক স্পেস দেয় না আমরা যারা বিরোধী দল করি, আমাদের একটা সভা করার জায়গা দেয় না, একটা মিছিল করার জায়গায় দেয় না। মানুষের যে অধিকার, সেগুলোকে দমন করার জন্য তারা সব রকম নির্যাতনমূলক-দমনমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে।

নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আপনারা একটু দয়া শান্ত থাকবেন। আমরা শান্তিতে বিশ্বাস করি। আমরা আমাদের হিন্দু সম্প্রদায়ের ভাইদের, বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ভাইদের ওপর কোনো আঘাত আসলে সেটি আমরা সামনে গিয়ে অবশ্যই প্রতিহত করব, প্রতিরোধ করব। 

সমাবেশে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, আহমেদ আজম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, দলের নেতা— মীর সরফত আলী সপু, আবদুস সালাম আজাদ, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন