৮ প্রার্থী উঠলেন ‘এক নৌকায়’!
jugantor
৮ প্রার্থী উঠলেন ‘এক নৌকায়’!

  গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৪:০৩:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে দ্বন্দ্ব-বিভেদ ভুলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নুর মোহাম্মদ কালনকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে আট প্রার্থী উঠলেন ‘এক নৌকায়।’

শনিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে উপজেলার মাওহা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যৌথ বর্ধিত সভায়।

প্রার্থীরা হলেন- মো. রফিকুল ইসলাম পুতুল, আনোয়ার খান টিটু, সাইদুর রহমান আলমগীর, এটিএম শামসুজ্জামান মাসুদ, সৈয়দ রফিকুল ইসলাম, হাজী মো. আরশেদ আলী, রাকিবুল ইসলাম ওমর সানি ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নুর মোহাম্মদ কালন।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মাওহা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ কালন মাস্টার।
সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মো. কবির উদ্দিন।

বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সিনিয়র আইনজীবী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম মুহাম্মদ আজাদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ম. নূরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল মুন্নাফ, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলী আহাম্মদ খান পাঠান সেলভী, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মো. হাফিজ উদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মো. হাবিবুর রহমান মন্ডল, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান, মহিলা সম্পাদিকা হেলেনা খাতুন, সহপ্রচার সম্পাদক মো. শাহজাহান কবীর, আওয়ামী লীগ নেতা আতাবুর রহমান, আব্দুল হেলিম, আবু সাঈদ, আব্দুল কাইয়ুম, কৃষকলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম লাকি, শ্রমিক লীগের আহবায়ক আবু সিদ্দিক, যুগ্ম আহ্বায়ক ইদ্রিছ আলী, যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম, ইউনুস আলী, সামছু মিয়া, এনামুল হক, বিল্লাল হোসেন, মো. জয়দুল্লাহ মিয়া, মো. লিটন মিয়া, আনজু মিয়া, আসাদ উল্লাহ, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো. আবুবক্কর মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম, ছাত্রলীগের আহ্বায়ক আনিছুল হক পাপন, যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন, উজ্জল মিয়া প্রমুখ।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. কবির উদ্দিন জানান, প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য গত ১৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় ১০ জন প্রার্থী নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন চান। ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগও তাদের তালিকা কেন্দ্রে প্রেরণ করেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে নুর মোহাম্মদ কালনকে মনোনীত করায় আট প্রার্থী ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকাকে বিজয়ী করার অঙ্গীকার করেন।
এ প্রসঙ্গে মো. রফিকুল ইসলাম পুতুল বলেন, আমরা দলের জন্য নিবেদিত ছিলাম, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে রাজনীতি করি। তাই নৌকাকে বিজয়ী করার জন্য নিজের স্বার্থ বিসর্জন দিয়েছি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ম. নূরুল ইসলাম বলেন, আটজন একসঙ্গে হয়ে নৌকাকে বিজয়ী করার অঙ্গীকার করে একটি বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তারা। অন্যদেরও আহ্বান জানাচ্ছি প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নৌকার পক্ষে এক হওয়ার জন্য।

৮ প্রার্থী উঠলেন ‘এক নৌকায়’!

 গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৪:০৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে দ্বন্দ্ব-বিভেদ ভুলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নুর মোহাম্মদ কালনকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে আট প্রার্থী উঠলেন ‘এক নৌকায়।’ 

শনিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে উপজেলার মাওহা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যৌথ বর্ধিত সভায়।

প্রার্থীরা হলেন- মো. রফিকুল ইসলাম পুতুল, আনোয়ার খান টিটু, সাইদুর রহমান আলমগীর, এটিএম শামসুজ্জামান মাসুদ, সৈয়দ রফিকুল ইসলাম, হাজী মো. আরশেদ আলী, রাকিবুল ইসলাম ওমর সানি ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নুর মোহাম্মদ কালন।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মাওহা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ কালন মাস্টার। 
সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মো. কবির উদ্দিন। 

বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সিনিয়র আইনজীবী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম মুহাম্মদ আজাদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ম. নূরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল মুন্নাফ, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলী আহাম্মদ খান পাঠান সেলভী, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মো. হাফিজ উদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মো. হাবিবুর রহমান মন্ডল, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান, মহিলা সম্পাদিকা হেলেনা খাতুন, সহপ্রচার সম্পাদক মো. শাহজাহান কবীর, আওয়ামী লীগ নেতা আতাবুর রহমান, আব্দুল হেলিম, আবু সাঈদ, আব্দুল কাইয়ুম, কৃষকলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম লাকি, শ্রমিক লীগের আহবায়ক আবু সিদ্দিক, যুগ্ম আহ্বায়ক ইদ্রিছ আলী, যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম, ইউনুস আলী, সামছু মিয়া, এনামুল হক, বিল্লাল হোসেন, মো. জয়দুল্লাহ মিয়া, মো. লিটন মিয়া, আনজু মিয়া, আসাদ উল্লাহ, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো. আবুবক্কর মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম, ছাত্রলীগের আহ্বায়ক আনিছুল হক পাপন, যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন, উজ্জল মিয়া প্রমুখ।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. কবির উদ্দিন জানান, প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য গত ১৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় ১০ জন প্রার্থী নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন চান। ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগও তাদের তালিকা কেন্দ্রে প্রেরণ করেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে নুর মোহাম্মদ কালনকে মনোনীত করায় আট প্রার্থী ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকাকে বিজয়ী করার অঙ্গীকার করেন। 
এ প্রসঙ্গে মো. রফিকুল ইসলাম পুতুল বলেন, আমরা দলের জন্য নিবেদিত ছিলাম, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে রাজনীতি করি। তাই নৌকাকে বিজয়ী করার জন্য নিজের স্বার্থ বিসর্জন দিয়েছি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ম. নূরুল ইসলাম বলেন, আটজন একসঙ্গে হয়ে নৌকাকে বিজয়ী করার অঙ্গীকার করে একটি বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তারা। অন্যদেরও আহ্বান জানাচ্ছি প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নৌকার পক্ষে এক হওয়ার জন্য।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন