গডফাদারের উত্থান হতে দিয়েন না: ডা. আইভী
jugantor
গডফাদারের উত্থান হতে দিয়েন না: ডা. আইভী

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৩ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৫৫:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াত আইভী বলেছেন, ‘জীবনে কখনও চাঁদাবাজি করিনি। আমার কোনো বাহিনী নেই। শহরে শান্তিতে থাকতে চাইলে আইভীকে বেছে নিবেন। কোনো গডফাদারের উত্থান যেন নারায়ণগঞ্জে না হয়। এটা হতে দিয়েন না। ধমকের সুরে কথা বলবে এমন কাউকে আপনারা ভোট দিয়েন না।

তিনি বলেন আমি কখনও মিথ্যা কথা বলিনি, মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেইনি। আমি দখলবাজি করিনি। আমি সবসময় ধর্ম বর্ণের ঊর্ধ্বে উঠে কাজ করেছি। সব ধর্মের জন্য সমান ভাবে কাজ করেছি। আমার বাবা আপনাদের সঙ্গে রাজনীতি করেছে। আমার স্কুল জীবন এখানে কেটেছে। আমরা এখানেই থাকতাম। আমি শেখ হাসিনার প্রার্থী হয়ে আপনার ভোটে পাশ করবো। আমার ওপর বিশ্বাস রাখবেন। আমি জিমখানা বস্তি তুলেছি কারণ সেখানে সরকারি ভাবে পার্ক করার কথা ছিল। সেখানে কেউ স্থায়ীভাবে থাকত না। আপনারা যারা দীর্ঘদিন যাবত র‌্যালি বাগানে থাকছেন হিন্দু মুসলমান মিলেমিশে আমি তাদেরকে অনুরোধ করবো আপনাদের জায়গার যদি সমস্যা না থাকে তাহলে নিম্ন আয়ের মানুষদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে প্রকল্প গ্রহণ করেছে আমি চেষ্টা করবো নেত্রীর সাথে কথা বলে আপনাদের এখানে সুব্যবস্থা করার জন্য।

বুধবার নগরীর ১৫ নং ওয়ার্ডে প্রচারনাকালে ভোটারদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন ডা.আইভী।

এদিকে বুধবারও আচরণবিধি ভঙ্গ করে বন্দর এলাকায় কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে নৌকার প্রচারণা চালান নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাভু।

এর আগে ১৫নং ওয়ার্ডে পৌছলে সেখানে ডা.আইভীকে স্বাগত জানাতে হাজির হন শত শত নারী পুরুষ। চারদিক থেকে ফুলের পাপড়ি বৃষ্টির মতো আইভীর উপর বর্ষণ করেন তারা।

এ সময় আইভীর সাথে ছিলেন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও বাসদের প্রার্থী অসিত বরণ বিশ্বাস, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী গনসংহতি আন্দোলনের নেত্রী পপী রানী সরকার, স্থানীয় আওয়ামীলীগ দলীয় কাউন্সিলর প্রার্থী জি এম আরমান।

এলাকাবাসীর ভালোবাসা আর ফুলের অভ্যর্থনায় অভিভূত হয়ে পরেন আইভী। তিনি বলেন, আপনারা ইতোমধ্যে দেখেছেন ঋষিপাড়ায় আমরা তিনটা বিল্ডিং করছি দশ তলা করে। অনেকেই তো জানেন ঋষিপাড়া বস্তি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আট একর জায়গাজুড়ে অবস্থিত। আমিতো সেই বস্তি তুলে দেইনি। আমি আঠারো বছর যাবত আপনাদের শহরে। তাহলে আমার বিরুদ্ধে নির্বাচন আসলেই যারা মিথ্যা কথা বলে তাদেরকে কখনও বরদাস্ত করবেন না।

১৫নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ শেষ করে বিকালে নৌকা প্রার্থী আইভী পৌঁছেন নগরীর ১৮নং ওয়ার্ডে। সেখানে এক অভূতপূর্ব দৃশ্যের অবতারণা হয়। প্রায় হাজার খানেক নারী পুরুষ ও সমর্থকরা আইভী কাছে পেয়ে শ্লোগানে শ্লোগানে পুরো এলাকা প্রকম্পিত করে তোলেন।

নিতাইগঞ্জ মোড় থেকে শুরু করে নলুয়া রোড, তামাকপট্টি, শহীদনগর, বাপ্পিচত্বরসহ বিভিন্ন এলাকার অলিগলি ঘোরেন তিনি। বিশাল শোডাউন নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনা করেন আইভী।

সেখানে আইভী বলেন, ‘রাস্তা করেছি, ড্রেন করেছি। রাস্তাঘাট উন্নত হওয়ায় আপনাদের জায়গার দাম বেড়েছে। কী পরিমাণ কাজ পুরো সিটি করপোরেশনে হয়েছে তা একবার ঘুরে দেখবেন। এই উন্নয়ন কাজ করা কি আমার অপরাধ হয়েছে? যদি না হয়, তাহলে আমার উপর বিশ্বাস রেখে আপনাদের মূল্যবান ভোটটি দিবেন। আমার কাজগুলো যেন ঠিকমতো করতে পারি সেজন্য ভোট চাইলাম। কারও কান-কথা শুনবেন না।

গডফাদারের উত্থান হতে দিয়েন না: ডা. আইভী

 নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৩ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৫৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াত আইভী বলেছেন, ‘জীবনে কখনও চাঁদাবাজি করিনি। আমার কোনো বাহিনী নেই। শহরে শান্তিতে থাকতে চাইলে আইভীকে বেছে নিবেন। কোনো গডফাদারের উত্থান যেন নারায়ণগঞ্জে না হয়। এটা হতে দিয়েন না। ধমকের সুরে কথা বলবে এমন কাউকে আপনারা ভোট দিয়েন না।

তিনি বলেন আমি কখনও মিথ্যা কথা বলিনি, মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেইনি। আমি দখলবাজি করিনি। আমি সবসময় ধর্ম বর্ণের ঊর্ধ্বে উঠে কাজ করেছি। সব ধর্মের জন্য সমান ভাবে কাজ করেছি। আমার বাবা আপনাদের সঙ্গে রাজনীতি করেছে। আমার স্কুল জীবন এখানে কেটেছে। আমরা এখানেই থাকতাম। আমি শেখ হাসিনার প্রার্থী হয়ে আপনার ভোটে পাশ করবো। আমার ওপর বিশ্বাস রাখবেন। আমি জিমখানা বস্তি তুলেছি কারণ সেখানে সরকারি ভাবে পার্ক করার কথা ছিল। সেখানে কেউ স্থায়ীভাবে থাকত না। আপনারা যারা দীর্ঘদিন যাবত র‌্যালি বাগানে থাকছেন হিন্দু মুসলমান মিলেমিশে আমি তাদেরকে অনুরোধ করবো আপনাদের জায়গার যদি সমস্যা না থাকে তাহলে নিম্ন আয়ের মানুষদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে প্রকল্প গ্রহণ করেছে আমি চেষ্টা করবো নেত্রীর সাথে কথা বলে আপনাদের এখানে সুব্যবস্থা করার জন্য।

বুধবার নগরীর ১৫ নং ওয়ার্ডে প্রচারনাকালে ভোটারদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন ডা.আইভী।

এদিকে বুধবারও আচরণবিধি ভঙ্গ করে বন্দর এলাকায় কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে নৌকার প্রচারণা চালান নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাভু।

এর আগে ১৫নং ওয়ার্ডে পৌছলে সেখানে ডা.আইভীকে স্বাগত জানাতে হাজির হন শত শত নারী পুরুষ। চারদিক থেকে ফুলের পাপড়ি বৃষ্টির মতো আইভীর উপর বর্ষণ করেন তারা।

এ সময় আইভীর সাথে ছিলেন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও বাসদের প্রার্থী অসিত বরণ বিশ্বাস, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী গনসংহতি আন্দোলনের নেত্রী পপী রানী সরকার, স্থানীয় আওয়ামীলীগ দলীয় কাউন্সিলর প্রার্থী জি এম আরমান।

এলাকাবাসীর ভালোবাসা আর ফুলের অভ্যর্থনায় অভিভূত হয়ে পরেন আইভী। তিনি বলেন, আপনারা ইতোমধ্যে দেখেছেন ঋষিপাড়ায় আমরা তিনটা বিল্ডিং করছি দশ তলা করে। অনেকেই তো জানেন ঋষিপাড়া বস্তি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আট একর জায়গাজুড়ে অবস্থিত। আমিতো সেই বস্তি তুলে দেইনি। আমি আঠারো বছর যাবত আপনাদের শহরে। তাহলে আমার বিরুদ্ধে নির্বাচন আসলেই যারা মিথ্যা কথা বলে তাদেরকে কখনও বরদাস্ত করবেন না।

১৫নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ শেষ করে বিকালে নৌকা প্রার্থী আইভী পৌঁছেন নগরীর ১৮নং ওয়ার্ডে। সেখানে এক অভূতপূর্ব দৃশ্যের অবতারণা হয়। প্রায় হাজার খানেক নারী পুরুষ ও সমর্থকরা আইভী কাছে পেয়ে শ্লোগানে শ্লোগানে পুরো এলাকা প্রকম্পিত করে তোলেন।

নিতাইগঞ্জ মোড় থেকে শুরু করে নলুয়া রোড, তামাকপট্টি, শহীদনগর, বাপ্পিচত্বরসহ বিভিন্ন এলাকার অলিগলি ঘোরেন তিনি। বিশাল শোডাউন নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনা করেন আইভী।

সেখানে আইভী বলেন, ‘রাস্তা করেছি, ড্রেন করেছি। রাস্তাঘাট উন্নত হওয়ায় আপনাদের জায়গার দাম বেড়েছে। কী পরিমাণ কাজ পুরো সিটি করপোরেশনে হয়েছে তা একবার ঘুরে দেখবেন। এই উন্নয়ন কাজ করা কি আমার অপরাধ হয়েছে? যদি না হয়, তাহলে আমার উপর বিশ্বাস রেখে আপনাদের মূল্যবান ভোটটি দিবেন। আমার কাজগুলো যেন ঠিকমতো করতে পারি সেজন্য ভোট চাইলাম। কারও কান-কথা শুনবেন না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : নাসিক নির্বাচন ২০২২

১৭ জানুয়ারি, ২০২২