‘আওয়ামী লীগ-বিএনপির হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায়’
jugantor
‘আওয়ামী লীগ-বিএনপির হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায়’

  যুগান্তর  প্রতিবেদন, মুন্সীগঞ্জ  

২২ জানুয়ারি ২০২২, ২০:১২:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

চুন্নু

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায় বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব অ্যাডভোকেট মুজিবুল হক চুন্নু। তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ মনে করছে তারা চিরস্থায়ী ক্ষমতায় থাকবে, বাংলাদেশের ইতিহাস অন্যরকম, কখন কী হয় বলা মুশকিল। দলটি ২১ বছর পর ক্ষমতায় এসেছে, শেখ হাসিনা দেশে না আসলে আওয়ামী লীগকে খুঁজে পাওয়া যেত না। বিগত কয়েক বছরেই বিএনপির অস্তিত্ব নাই, আর জাতীয় পার্টি এখনো আছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায়। আগামীতে জাতীয় পার্টি এককভাবে নির্বাচন করবে।

শনিবার মুন্সীগঞ্জ শহরের মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জেলা জাতীয় পার্টির বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

মজিবুল হক চুন্নু বলেন, আওয়ামী লীগ লুটপাটে ব্যস্ত আর বিএনপি আছে তাদের নেত্রীর চিকিৎসা ও মুক্তি নিয়ে। আমরা চাই খালেদা জিয়া সুচিকিৎসা পাক, তারও অধিকার আছে। দেখুন ইতিহাস কত নির্মম, বেগম জিয়া যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এরশাদ তখন জেলে অসুস্থ, তার সুচিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড পিজি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানোর জন্য বললেও খালেদা জিয়ার একটুও মন কাঁদেনি। আজ সেই বেগম জিয়ার চিকিৎসার জন্য ভিক্ষা চান নেতাকর্মীরা।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশন ও বিচারপতি নিয়োগে আইন করার কথা সংবিধানে স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকলেও বিগত সময়ে আওয়ামী লীগ, বিএনপি এমনকি আমরাও করিনি। সময়ের প্রয়োজনে আমরা আইনটা এমনভাবে করতে চাই, যাতে নিরপেক্ষ নির্বাচন করা যায়। আমাদের নির্বাচন পদ্ধতিতেই গলদ, অংশগ্রহণমূলক আনুপাতিক হারে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবে, যে দল বেশি হারে ভোট পাবে সেই হারে সংসদ সদস্য পাবে। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে মাটির নিচে টানেল করবে না। প্রত্যেক উপজেলায় বিশেষায়িত হাসপাতাল করবে। সবচেয়ে বড় সমস্যা বেকারত্ব দূর করবে। শিক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন করে কর্মমুখী শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করবে। দলীয় প্রতীক দিয়ে স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে, তারা চায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে। এজন্য নৌকা ১০ থেকে ২০ লাখ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব আবদুল বাতেনের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, মীর আবদুস সবুর আসুদ, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা মো. জামাল হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান খান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, যুগ্ম মহাসচিব মো. নোমান মিয়া, ইকবাল হোসেন তাপস, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন হলাল, হুমায়ুন খান, জাপা কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জয়নাল আবেদিন ও মুক্তিযোদ্ধা পার্টির সভাপতি ইসহাক খান প্রমুখ।

‘আওয়ামী লীগ-বিএনপির হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায়’

 যুগান্তর  প্রতিবেদন, মুন্সীগঞ্জ 
২২ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চুন্নু
ছবি: সংগৃহিত

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায় বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব অ্যাডভোকেট মুজিবুল হক চুন্নু। তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ মনে করছে তারা চিরস্থায়ী ক্ষমতায় থাকবে, বাংলাদেশের ইতিহাস অন্যরকম, কখন কী হয় বলা মুশকিল। দলটি ২১ বছর পর ক্ষমতায় এসেছে, শেখ হাসিনা দেশে না আসলে আওয়ামী লীগকে খুঁজে পাওয়া যেত না। বিগত কয়েক বছরেই বিএনপির অস্তিত্ব নাই, আর জাতীয় পার্টি এখনো আছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায়। আগামীতে জাতীয় পার্টি এককভাবে নির্বাচন করবে। 

শনিবার মুন্সীগঞ্জ শহরের মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জেলা জাতীয় পার্টির বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

মজিবুল হক চুন্নু বলেন, আওয়ামী লীগ লুটপাটে ব্যস্ত আর বিএনপি আছে তাদের নেত্রীর চিকিৎসা ও মুক্তি নিয়ে। আমরা চাই খালেদা জিয়া সুচিকিৎসা পাক, তারও অধিকার আছে। দেখুন ইতিহাস কত নির্মম, বেগম জিয়া যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এরশাদ তখন জেলে অসুস্থ, তার সুচিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড পিজি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানোর জন্য বললেও খালেদা জিয়ার একটুও মন কাঁদেনি। আজ সেই বেগম জিয়ার চিকিৎসার জন্য ভিক্ষা চান নেতাকর্মীরা। 

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশন ও বিচারপতি নিয়োগে আইন করার কথা সংবিধানে স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকলেও বিগত সময়ে আওয়ামী লীগ, বিএনপি এমনকি আমরাও করিনি। সময়ের প্রয়োজনে আমরা আইনটা এমনভাবে করতে চাই, যাতে নিরপেক্ষ নির্বাচন করা যায়। আমাদের নির্বাচন পদ্ধতিতেই গলদ, অংশগ্রহণমূলক আনুপাতিক হারে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবে, যে দল বেশি হারে ভোট পাবে সেই হারে সংসদ সদস্য পাবে। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে মাটির নিচে টানেল করবে না। প্রত্যেক উপজেলায় বিশেষায়িত হাসপাতাল করবে। সবচেয়ে বড় সমস্যা বেকারত্ব দূর করবে। শিক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন করে কর্মমুখী শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করবে। দলীয় প্রতীক দিয়ে স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে, তারা চায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে। এজন্য নৌকা ১০ থেকে ২০ লাখ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব আবদুল বাতেনের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, মীর আবদুস সবুর আসুদ, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা মো. জামাল হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান খান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, যুগ্ম মহাসচিব মো. নোমান মিয়া, ইকবাল হোসেন তাপস, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন হলাল, হুমায়ুন খান, জাপা কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জয়নাল আবেদিন ও মুক্তিযোদ্ধা পার্টির সভাপতি ইসহাক খান প্রমুখ।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন