বিএনপির দুপক্ষে সংঘর্ষে আহত ১০
jugantor
বিএনপির দুপক্ষে সংঘর্ষে আহত ১০

  গলাচিপা ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

২৬ জানুয়ারি ২০২২, ২১:২৮:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

আহত

পটুয়াখালীর গলাচিপায় বিএনপির দুপক্ষের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার বিকালে স্থানীয় বিএনপি কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

মতবিনিময় সভাকে কেন্দ্র করে উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মো. শাহজাহান খান ও দলটির কেন্দ্রীয় নেতা হাসান মামুনের অনুসারীদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়।

সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা বিএনপির দুপক্ষের দীর্ঘদিনের বিবাদ মেটাতে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান টোটনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

সভা শুরুর পরপরই শাহজাহান খান ও হাসান মামুনের পক্ষে পাল্টাপাল্টি স্লোগান দেন সমর্থকরা। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

এতে মো. জাহিদুল ইসলাম (৪৫), নুরুল ইসলাম নয়ন (৪৫), ইমরান হোসেন (২৪), সফিক (২৮), সোহাগ হাওলাদার (৩০), ডিপটি খানসহ (৩২) ১০ জন আহত হন।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির বরিশাল বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মো. শাহজাহান খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন মিয়া, উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো. সিদ্দিকুর রহমান, সদস্য সচিব আ. ছত্তার হাওলাদার প্রমুখ।

সাবেক উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. শাহজাহান খান বলেন, দীর্ঘদিন আমরা তৃণমূলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। কেউ তার ইচ্ছামতো কমিটি গঠন করবে, তা মানব না। আমরা আহ্বায়ক কমিটি প্রত্যক্ষ করছি।

বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান বলেন, গলাচিপার সাংগঠনিক সমস্যা কেন্দ্রীয় নেতাদের জানানো হবে। দ্রুত দুপক্ষের সমঝোতা করা হবে।

বিএনপির দুপক্ষে সংঘর্ষে আহত ১০

 গলাচিপা ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  
২৬ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আহত
ছবি-যুগান্তর

পটুয়াখালীর গলাচিপায় বিএনপির দুপক্ষের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। 

বুধবার বিকালে স্থানীয় বিএনপি কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। 

মতবিনিময় সভাকে কেন্দ্র করে উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মো. শাহজাহান খান ও দলটির কেন্দ্রীয় নেতা হাসান মামুনের অনুসারীদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। 

সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা বিএনপির দুপক্ষের দীর্ঘদিনের বিবাদ মেটাতে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান টোটনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। 

সভা শুরুর পরপরই শাহজাহান খান ও হাসান মামুনের পক্ষে পাল্টাপাল্টি স্লোগান দেন সমর্থকরা। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। 

এতে মো. জাহিদুল ইসলাম (৪৫), নুরুল ইসলাম নয়ন (৪৫), ইমরান হোসেন (২৪), সফিক (২৮), সোহাগ হাওলাদার (৩০), ডিপটি খানসহ (৩২) ১০ জন আহত হন। 

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির বরিশাল বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মো. শাহজাহান খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন মিয়া, উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো. সিদ্দিকুর রহমান, সদস্য সচিব আ. ছত্তার হাওলাদার প্রমুখ। 

সাবেক উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. শাহজাহান খান বলেন, দীর্ঘদিন আমরা তৃণমূলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। কেউ তার ইচ্ছামতো কমিটি গঠন করবে, তা মানব না। আমরা আহ্বায়ক কমিটি প্রত্যক্ষ করছি। 

বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান বলেন, গলাচিপার সাংগঠনিক সমস্যা কেন্দ্রীয় নেতাদের জানানো হবে। দ্রুত দুপক্ষের সমঝোতা করা হবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন