‘ওবায়দুল কাদেরকে সিইসি করলেও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না’
jugantor
‘ওবায়দুল কাদেরকে সিইসি করলেও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না’

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৫:৩৮:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

‘ওবায়দুল কাদেরকে সিইসি করলেও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে প্রধান নির্বাচনকমিশনার (সিইসি) করা হলেও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু।

তিনি বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বহু আগেই বলে গেছেন— আল্লাহর ফেরেশতাকে এনে দিলেও বর্তমান সিস্টেমে এ দেশে শতভাগ সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব হবে না। যেমনটি বিএনপির এক নেতা গতকাল বলেছেন— বিএনপি মহাসচিবকে সিইসি করলেও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। আমি বলব, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদককেও যদি সিইসি করা হয় তবু সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে নির্বাচন কমিশন গঠন বিল নিয়ে আলোচনায় মুজিবুল হক চুন্নু এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এ দেশে একমাত্র সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব হবে, যদি আনুপাতিক হারে নির্বাচন পদ্ধতি করা হয়, যেটি এরশাদ সাহেব বলে গেছেন।

ক্ষমতাসীন দলকে উদ্দেশ্য করে মুজিবুল হক বলেন, ‘আপনাদের জন্ম তো সেনানিবাসে হয়নি। আপনারা স্বাধীনতার নেতৃত্ব দিয়েছেন। তা হলে কেন বিচারক ও আমলানির্ভর হলেন।’

সার্চ কমিটিতে আইনপ্রণেতাদের অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানান এ সংসদ সদস্য।

তিনি বলেন, মানবাধিকার কমিশনে যে আইন আছে। ওই আইনে নির্বাচন কমিশনে স্পিকার কর্তৃক দুজন সংসদ সদস্য রাখার বিধান আছে। যদি সেটি রাখা হয়, তবে আমার মনে হয়; এতে আরও আমাদের মধ্যে সম্প্রীতি আরও বাড়বে।

সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজনের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমাদের যাদের নির্বাচন করার অভ্যাস আছে তাদের চেয়ে বেশি সুজন, যারা নাকি বুদ্ধিজীবী তারা বুঝবেন বলে মনে করি না। আমাদের প্র্যাকটিক্যালি নির্বাচনের বিষয় অভিজ্ঞ। তারা বইপুস্তক নিয়ে কথা বলেন।

‘ওবায়দুল কাদেরকে সিইসি করলেও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না’

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৭ জানুয়ারি ২০২২, ০৩:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
‘ওবায়দুল কাদেরকে সিইসি করলেও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না’
ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) করা হলেও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু।  

তিনি বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বহু আগেই বলে গেছেন— আল্লাহর ফেরেশতাকে এনে দিলেও বর্তমান সিস্টেমে এ দেশে শতভাগ সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব হবে না। যেমনটি বিএনপির এক নেতা গতকাল বলেছেন— বিএনপি মহাসচিবকে সিইসি করলেও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না।  আমি বলব, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদককেও যদি সিইসি করা হয় তবু সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে নির্বাচন কমিশন গঠন বিল নিয়ে আলোচনায় মুজিবুল হক চুন্নু এসব কথা বলেন।  

তিনি বলেন, এ দেশে একমাত্র সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব হবে, যদি আনুপাতিক হারে নির্বাচন পদ্ধতি করা হয়,  যেটি এরশাদ সাহেব বলে গেছেন। 

ক্ষমতাসীন দলকে উদ্দেশ্য করে মুজিবুল হক বলেন, ‘আপনাদের জন্ম তো সেনানিবাসে হয়নি। আপনারা স্বাধীনতার নেতৃত্ব দিয়েছেন। তা হলে কেন বিচারক ও আমলানির্ভর হলেন।’

সার্চ কমিটিতে আইনপ্রণেতাদের অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানান এ সংসদ সদস্য।

তিনি বলেন, মানবাধিকার কমিশনে যে আইন আছে। ওই আইনে নির্বাচন কমিশনে স্পিকার কর্তৃক দুজন সংসদ সদস্য রাখার বিধান আছে।  যদি সেটি রাখা হয়, তবে আমার মনে হয়; এতে আরও আমাদের মধ্যে সম্প্রীতি আরও বাড়বে।

সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজনের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমাদের যাদের নির্বাচন করার অভ্যাস আছে তাদের চেয়ে বেশি সুজন, যারা নাকি বুদ্ধিজীবী তারা বুঝবেন বলে মনে করি না। আমাদের প্র্যাকটিক্যালি নির্বাচনের বিষয় অভিজ্ঞ। তারা বইপুস্তক নিয়ে কথা বলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন