‘রোজার মাসে বলছি, কাউকে ছাড়ব না’

প্রকাশ : ২৭ মে ২০১৮, ২২:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। ছবি: যুগান্তর

দেশব্যাপী চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে নিহতদের নাম পরিচয় গণমাধ্যমে প্রকাশের দাবি জানিয়ে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘প্রমাণ ছাড়া যদি বদির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া না যায়, তাহলে যারা এই অভিযানে মারা গেছেন তাদের নাম পরিচয়, কি কি অভিযোগ, কী মামলায়,কী প্রমাণ তাদের বিরুদ্ধে যেটা প্রকাশ করতে হবে।অপেক্ষা করুন দিন আসবে এই রোজার মাসে বলছি,এর সঙ্গে জড়িতদের কাউকে ছাড়ব না।’

রোববার রাজধানীর এশিয়া হোটেলে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত গ্রহণযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চাই’ শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। 

তিনি বলেন, সাবেক একজন রাষ্ট্রপতি বললেন সরকারি দলের একজন এমপি মাদকের সঙ্গে জড়িত। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তো অনেক পাই কিন্তু প্রমাণ তো পাই না। যদি প্রমাণ ছাড়া বদির চুল ধরা না যায় তাহলে প্রমাণ ছাড়া এখন পর্যন্ত যে ৬৪ জন গুলি করে মেরেছেন তার সঙ্গে জড়িত তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। জবাব দিতে হবে। তাদেরকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।

দেশে ভয়ের সংস্কৃতি চালুর চেষ্টা চলছে এমন দাবি করে মান্না বলেন, কেউ কেউ আমাকে বলছেন, এরপর অস্ত্র উদ্ধারের নামে অভিযান হবে, পরে চোরাকারবারি ধরার নামে অভিযান হবে। ক্রসফায়ার চলতেই থাকবে। এরমধ্যে নির্বাচন আয়োজন করা হবে।

নিজেদের মধ্যে ভেদাভেদ ও ছোটখাটো ভুল নিয়ে বিরোধ বাড়ানোর সুযোগ নেই দাবি করে তিনি বলেন, সবাই যাতে স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি পাই সেজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করতে হবে। সরকার অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দিবে না। যদি দিত তাহলে খালেদা জিয়ার একটি জামিন নিয়ে এইভাবে তাল্টিবাল্টি করত না।

মান্না বলেন, শুধু যদি মনে করেন জোট বেঁধে নির্বাচন করলেই আমরা জিতে যাব তাহলেও পারবেন না। সেটা খুলনার নির্বাচনে শিক্ষা দিয়েছে। আর একটি শিক্ষা আমাদের গাজীপুরে দিতে চায়। এখন তো আমাদের নতুন করে গাজীপুরে দেয়া সম্ভব না। গাজীপুরে সেই লড়াই করার প্রস্তুতি নেন। যাতে করে সব হত্যা, গুম, সব ধরণের অত্যাচারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারি। ঐক্যবদ্ধ মানে এক মঞ্চ বলছি না। সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামাতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

আলোচনায় আরও অংশ নেন- গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের-জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. আসিফ নজরুল, বিকল্প ধারা বাংলাদেশের মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান, বিশিষ্ট আইনজীবী ড. শাহদীন মালিক।