সন্ত্রাসী কায়দায় আ.লীগ আবারও ক্ষমতায় আসতে চায়: মির্জা ফখরুল
jugantor
সন্ত্রাসী কায়দায় আ.লীগ আবারও ক্ষমতায় আসতে চায়: মির্জা ফখরুল

  ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি  

২০ মে ২০২২, ১৪:৪৬:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের আবারও তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের সংবিধানকে কেটে ছিঁড়ে আওয়ামী সংবিধানে পরিণত করেছে এ সরকার। এটা আওয়ামী লীগের স্বভাবসুলভ চরিত্র। তারা সব সময় সন্ত্রাস করে ক্ষমতায় যেতে চায়। এবারও একই কায়দায় আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচনে ক্ষমতায় বসার পরিকল্পনা করছে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপি কার্যালয়ে আয়োজিত স্বেচ্ছাসেবক দলের এক মতবিনিময়সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশ আজ দিন দিন খারাপের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এ থেকে উত্তরণের একটি উপায়। সেটি হচ্ছে সরকারকে পদত্যাগ করে গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টি করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দেওয়া।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, একুশ বছর ক্ষমতার বাইরে ছিল আওয়ামী লীগ, এর পর ক্ষমতায় এসেছে। সুতরাং ক্ষমতার বাইরে থাকলে পচনশীল হয় না। বিএনপি উচ্চগামী, ঊর্ধ্বগামী দল। বিএনপি যে ঊর্ধ্বগামী দল সেটি প্রমাণ করার জন্য একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন দরকার। আর কিচ্ছুর দরকার নেই বিএনপির।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, অর্থবিষয়ক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপির নেতা আব্দুল হামিদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের জেলা সভাপতি নূরুজ্জামান সরকার, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানাসহ বিএনপির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা।

সন্ত্রাসী কায়দায় আ.লীগ আবারও ক্ষমতায় আসতে চায়: মির্জা ফখরুল

 ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি 
২০ মে ২০২২, ০২:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের আবারও তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের সংবিধানকে কেটে ছিঁড়ে আওয়ামী সংবিধানে পরিণত করেছে এ সরকার। এটা আওয়ামী লীগের স্বভাবসুলভ চরিত্র। তারা সব সময় সন্ত্রাস করে ক্ষমতায় যেতে চায়। এবারও একই কায়দায় আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচনে ক্ষমতায় বসার পরিকল্পনা করছে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপি কার্যালয়ে আয়োজিত স্বেচ্ছাসেবক দলের এক মতবিনিময়সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশ আজ দিন দিন খারাপের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এ থেকে উত্তরণের একটি উপায়। সেটি হচ্ছে সরকারকে পদত্যাগ করে গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টি করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দেওয়া।  

বিএনপির মহাসচিব বলেন, একুশ বছর ক্ষমতার বাইরে ছিল আওয়ামী লীগ, এর পর ক্ষমতায় এসেছে। সুতরাং ক্ষমতার বাইরে থাকলে পচনশীল হয় না। বিএনপি উচ্চগামী, ঊর্ধ্বগামী দল। বিএনপি যে ঊর্ধ্বগামী দল সেটি প্রমাণ করার জন্য একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন দরকার। আর কিচ্ছুর দরকার নেই বিএনপির। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, অর্থবিষয়ক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপির নেতা আব্দুল হামিদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের জেলা সভাপতি নূরুজ্জামান সরকার, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানাসহ বিএনপির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন