পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে যা বললেন মির্জা ফখরুল
jugantor
পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে যা বললেন মির্জা ফখরুল

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৩ আগস্ট ২০২২, ১৫:৪৬:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে যা বললেন মির্জা ফখরুল

‘বিশ্বের অন্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের মানুষর সুখে আছে, বেহেশতে আছে’—-পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেনের এমন উক্তি ‘জনগনের সঙ্গে তামাশা’ বলে মন্তব্য করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব একথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশের মানুষ যখন প্রতিমুহুর্তে ভোগান্তি পোহাচ্ছে, কষ্ট করছে এবং তারা হিমশিম খাচ্ছে, জীবন দুর্বিসহ হচ্ছে সেই সময়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বেহেশতে যাওয়ার কথা বললেন, যে দেশের মানুষ বেহেশতে আছে।

‘আমি দু:খিত ব্যক্তিগত পর্যায়ে কথা বলছি এ কারণে। ইদানিংকালে উনার (পররাষ্ট্রমন্ত্রী) যে চেহারা, সেই চেহারার মধ্যে যেটা ফুটে উঠেছে যে, স্ফীত হয়েছেন এবং বেশিরভাগ মন্ত্রীদের যেটা হয়েছে যে, সবারই আমাদের দেশি ভাষায় বলি, সরি যে একটা হালকা কথা বলব, ‘চিটনাই বেড়ে গেছে’। তার কারণটা হচ্ছে প্রচুর লুটপাট হচ্ছে। সেই লুটপাটের কারণে তারা জনগণের সঙ্গে পরিহাস, তামাশা শুরু করেছে এই সমস্যা (বিদ্যুতের লোডশেডিং) নিয়ে।”
জনদুর্ভোগের সময়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এহেন বক্তব্য দেওয়ার অধিকার নেই বলেও মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, মন্ত্রী মহোদয় এর আগেও এমন এমন সব উক্তি করেছেন, যে উক্তিগুলোতে দেশের মানুষের জন্য কিছুটা হাস্যকর ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে উনার এরকম পরিহাস করার কোনো অধিকার নেই।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ভূমি অধিগ্রহণ জটিলতা নিরসন সংক্রান্ত বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন বলেন, ‘বিশ্বের অন্য দেশের তুলনায় আমরা সুখে আাছি, বেহেশতে আছি।’

আজকের সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য ইসমাইল জবিহউল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে যা বললেন মির্জা ফখরুল

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৩ আগস্ট ২০২২, ০৩:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে যা বললেন মির্জা ফখরুল
ছবি: যুগান্তর

‘বিশ্বের অন্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের মানুষর সুখে আছে, বেহেশতে আছে’—-পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেনের এমন উক্তি ‘জনগনের সঙ্গে তামাশা’ বলে মন্তব্য করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব একথা বলেন। 

তিনি বলেন, দেশের মানুষ যখন প্রতিমুহুর্তে ভোগান্তি পোহাচ্ছে, কষ্ট করছে এবং তারা হিমশিম খাচ্ছে, জীবন দুর্বিসহ হচ্ছে সেই সময়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বেহেশতে যাওয়ার কথা বললেন, যে দেশের মানুষ বেহেশতে আছে।

‘আমি দু:খিত ব্যক্তিগত পর্যায়ে কথা বলছি এ কারণে। ইদানিংকালে উনার (পররাষ্ট্রমন্ত্রী) যে চেহারা, সেই চেহারার মধ্যে যেটা ফুটে উঠেছে যে, স্ফীত হয়েছেন এবং বেশিরভাগ মন্ত্রীদের যেটা হয়েছে যে, সবারই আমাদের দেশি ভাষায় বলি, সরি যে একটা হালকা কথা বলব, ‘চিটনাই বেড়ে গেছে’। তার কারণটা হচ্ছে প্রচুর লুটপাট হচ্ছে। সেই লুটপাটের কারণে তারা জনগণের সঙ্গে পরিহাস, তামাশা শুরু করেছে এই সমস্যা (বিদ্যুতের লোডশেডিং) নিয়ে।”
জনদুর্ভোগের সময়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এহেন বক্তব্য দেওয়ার অধিকার নেই বলেও মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, মন্ত্রী মহোদয় এর আগেও এমন এমন সব উক্তি করেছেন, যে উক্তিগুলোতে দেশের মানুষের জন্য কিছুটা হাস্যকর ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে উনার এরকম পরিহাস করার কোনো অধিকার নেই।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ভূমি অধিগ্রহণ জটিলতা নিরসন সংক্রান্ত বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন বলেন, ‘বিশ্বের অন্য দেশের তুলনায় আমরা সুখে আাছি, বেহেশতে আছি।’

আজকের সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য ইসমাইল জবিহউল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর