মির্জা ফখরুল আপনি কি আমাদের হুমকি দিচ্ছেন: বাহাউদ্দিন নাছিম
jugantor
মির্জা ফখরুল আপনি কি আমাদের হুমকি দিচ্ছেন: বাহাউদ্দিন নাছিম

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫:৩৭:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত দেশকে ব্যর্থ বানাতে সবসময় ষড়যন্ত্র করছে। তাদের দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মঙ্গলবার বলেছেন, আওয়ামী লীগ কখনো চায় না বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসুক, কারণ তারা জানে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নাকি মারা যাবে। আমি বলতে চাই মির্জা ফখরুল আপনি কি আমাদের হুমকি দিচ্ছেন? আপনি কি বলতে চাচ্ছেন আপনারা ক্ষমতায় গেলে আমাদের হত্যা করা হবে? মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে হত্যা করে রক্তগঙ্গা বইয়ে দিয়ে মির্জা ফখরুল, আপনি কি সন্ত্রাসীদের নেতায় পরিণত হতে চাইছেন?

বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন ভবনে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভা, ক্রীড়া সামগ্রী ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমরা এতদিন জানতাম না আপনি নিজেও হত্যাকারী হতে চান। আপনি সন্ত্রাসীদের ভাষায় সাক্ষাৎকার দিয়ে বলেন, আমাদের মৃত্যু হবে, আমাদের হত্যা করা হবে। আমি বলতে চাই, আমাদের হত্যা করা যায় কিন্তু আমাদের পথ রোধ করা যায় না ও বাংলাদেশকে এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা সৃষ্টি করা যায় না। কারণ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সন্তানরা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আমাদের হত্যা করলে আমরা শহিদ হবো, বাঁচলে গাজী হব। বীরের রক্ত আমাদের শরীরে। আমাদের হত্যার ভয় দেখিয়ে থামানো যাবে না।

বাহাউদ্দিন নাছিম আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা টুঙ্গীপাড়ায় সেই অজ পাড়া গাঁয়ে জন্মগ্রহণ করেন। সেখানেই তিনি মাটি ও মানুষের সঙ্গে বেড়ে উঠেছিলেন এবং পরবর্তীতে বঙ্গমাতার সঙ্গে তিনি পারিবারিকভাবে ঢাকায় আসেন ছয় বছর বয়সে। বঙ্গবন্ধুকন্যা অত্যন্ত সাদামাটা পরিবেশেই সুখ আনন্দ বেদনার মধ্য দিয়েই বেড়ে উঠেন। তার জীবনের সব থেকে মর্মান্তিক দিনটি হলো ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট। ঘাতকের নির্মম বুলেটের আঘাতে সেদিন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের ১৮ জন সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। সেদিন স্বাধীন বাংলাদেশকে মিনি পাকিস্তান বানানোর সব আয়োজন করা হয়েছিল।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক।

মির্জা ফখরুল আপনি কি আমাদের হুমকি দিচ্ছেন: বাহাউদ্দিন নাছিম

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত দেশকে ব্যর্থ বানাতে সবসময় ষড়যন্ত্র করছে। তাদের দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মঙ্গলবার বলেছেন, আওয়ামী লীগ কখনো চায় না বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসুক, কারণ তারা জানে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নাকি মারা যাবে। আমি বলতে চাই মির্জা ফখরুল আপনি কি আমাদের হুমকি দিচ্ছেন? আপনি কি বলতে চাচ্ছেন আপনারা ক্ষমতায় গেলে আমাদের হত্যা করা হবে? মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে হত্যা করে রক্তগঙ্গা বইয়ে দিয়ে মির্জা ফখরুল, আপনি কি সন্ত্রাসীদের নেতায় পরিণত হতে চাইছেন?

বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন ভবনে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভা, ক্রীড়া সামগ্রী ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন,  আমরা এতদিন জানতাম না আপনি নিজেও হত্যাকারী হতে চান। আপনি সন্ত্রাসীদের ভাষায় সাক্ষাৎকার দিয়ে বলেন, আমাদের মৃত্যু হবে, আমাদের হত্যা করা হবে। আমি বলতে চাই, আমাদের হত্যা করা যায় কিন্তু আমাদের পথ রোধ করা যায় না ও বাংলাদেশকে এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা সৃষ্টি করা যায় না। কারণ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সন্তানরা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আমাদের হত্যা করলে আমরা শহিদ হবো, বাঁচলে গাজী হব। বীরের রক্ত আমাদের শরীরে। আমাদের হত্যার ভয় দেখিয়ে থামানো যাবে না। 

বাহাউদ্দিন নাছিম আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা টুঙ্গীপাড়ায় সেই অজ পাড়া গাঁয়ে জন্মগ্রহণ করেন। সেখানেই তিনি মাটি ও মানুষের সঙ্গে বেড়ে উঠেছিলেন এবং পরবর্তীতে বঙ্গমাতার সঙ্গে তিনি পারিবারিকভাবে ঢাকায় আসেন ছয় বছর বয়সে। বঙ্গবন্ধুকন্যা অত্যন্ত সাদামাটা পরিবেশেই সুখ আনন্দ বেদনার মধ্য দিয়েই বেড়ে উঠেন।  তার জীবনের সব থেকে মর্মান্তিক দিনটি হলো ১৯৭৫ সালের  ১৫ আগস্ট। ঘাতকের নির্মম বুলেটের আঘাতে সেদিন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের ১৮ জন সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।  সেদিন স্বাধীন  বাংলাদেশকে মিনি পাকিস্তান বানানোর সব আয়োজন করা হয়েছিল।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন