সরকার অন্ধ, দুর্নীতি লুটপাট দেখে না: আ স ম রব
jugantor
সরকার অন্ধ, দুর্নীতি লুটপাট দেখে না: আ স ম রব

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৭ নভেম্বর ২০২২, ২২:০৯:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকারের অপশাসনে সৃষ্ট একটি ‘দুষ্টচক্রের’ সীমাহীন দুর্নীতি ও অবাধ লুণ্ঠনে দেশের অর্থনীতি শোচনীয় বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

তিনি বলেন, উন্নয়নের নামে লুটপাট প্রক্রিয়ার সঙ্গে সরকারের এজমালির একাত্মতা বা অংশীদারিত্ব রয়েছে। ফলে ভয়াবহ দুর্নীতি, সীমাহীন অপচয় এবং লুটপাট সরকার না দেখার ভান করছে এবং বেমালুম অস্বীকার করে দুর্নীতি এবং অপচয়কে আরও উৎসাহিত করেছে।

বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে আ স ম রব এসব কথা বলেন।

জেএসডি সভাপতি বলেন, আমাদের দেশের খ্যাতিমান অর্থনীতিবিদসহ বিশেষজ্ঞগণ অনেক প্রকল্পের গরমিল ভুলভ্রান্তি, সামঞ্জস্যহীন অর্থ ব্যয় চিহ্নিত করেছেন, অন্য দেশের সঙ্গে তুলনামূলক বিশ্লেষণ উত্থাপন করেছেন। কিন্তু সরকার তার কোনো প্রতিকার না করে বরং অবজ্ঞার মাধ্যমে তাদের অর্বাচীন বলে চিহ্নিত করেছে। ফলে অন্যায়, দুর্নীতি, অপচয় ও অপকর্মের মাত্রা এমনভাবে বেড়েছে; যা দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংসের কিনারে নিয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, রিজার্ভের অপরিকল্পিত ব্যয় এবং প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যাপক দুর্নীতি দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতিকে মারাত্মক জটিল ও ঘোলাটে করে তুলেছে। এটা আকস্মিক কোনো ঘটনা বা দুর্ঘটনা নয়। তথাকথিত ‘অপ্রতিরোধ্য উন্নয়নের’ ডামাডোলে দেশের অর্থনীতি আজ বিপর্যয়ের সম্মুখীন।

তিনি বলেন, ‘জিডিপিতে প্রবৃদ্ধি, অফুরন্ত রিজার্ভ নিয়ে সরকার আত্মতৃপ্তিতে নিমজ্জিত থাকলেও বেকারত্ব এবং মুদ্রাস্ফীতিতে জীবনযাত্রার মান তছনছ হয়ে পড়েছে, সরকার তা বিবেচনায় নেয়নি। এ ধরনের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনার মূলে রয়েছে স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি ও গোষ্ঠীর সংকীর্ণ স্বার্থ উদ্ধার করা।’

আ স ম রব মনে করেন, আইনের শাসন, গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অর্থনীতিতে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে হবে। অংশীদারিত্বমূলক উন্নয়ন দর্শনে অর্থনীতির সমন্বিত ও ইতিবাচক পদক্ষেপে উন্নয়নের সমতা ও কল্যাণ অর্জন করা সম্ভব হবে।

সরকার অন্ধ, দুর্নীতি লুটপাট দেখে না: আ স ম রব

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৭ নভেম্বর ২০২২, ১০:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকারের অপশাসনে সৃষ্ট একটি ‘দুষ্টচক্রের’ সীমাহীন দুর্নীতি ও অবাধ লুণ্ঠনে দেশের অর্থনীতি শোচনীয় বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

তিনি বলেন, উন্নয়নের নামে লুটপাট প্রক্রিয়ার সঙ্গে সরকারের এজমালির একাত্মতা বা অংশীদারিত্ব রয়েছে। ফলে ভয়াবহ দুর্নীতি, সীমাহীন অপচয় এবং লুটপাট সরকার না দেখার ভান করছে এবং বেমালুম অস্বীকার করে দুর্নীতি এবং অপচয়কে আরও উৎসাহিত  করেছে।

বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে আ স ম রব এসব কথা বলেন।

জেএসডি সভাপতি বলেন, আমাদের দেশের খ্যাতিমান অর্থনীতিবিদসহ বিশেষজ্ঞগণ অনেক প্রকল্পের গরমিল ভুলভ্রান্তি, সামঞ্জস্যহীন অর্থ ব্যয় চিহ্নিত করেছেন, অন্য দেশের সঙ্গে তুলনামূলক বিশ্লেষণ উত্থাপন করেছেন। কিন্তু  সরকার তার কোনো প্রতিকার না করে বরং অবজ্ঞার মাধ্যমে তাদের অর্বাচীন বলে চিহ্নিত করেছে। ফলে অন্যায়, দুর্নীতি, অপচয় ও অপকর্মের মাত্রা এমনভাবে বেড়েছে; যা দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংসের কিনারে নিয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, রিজার্ভের  অপরিকল্পিত ব্যয় এবং প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যাপক দুর্নীতি দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতিকে মারাত্মক জটিল ও ঘোলাটে করে তুলেছে। এটা আকস্মিক কোনো ঘটনা বা দুর্ঘটনা নয়। তথাকথিত ‘অপ্রতিরোধ্য উন্নয়নের’ ডামাডোলে দেশের অর্থনীতি আজ বিপর্যয়ের সম্মুখীন।

তিনি বলেন, ‘জিডিপিতে প্রবৃদ্ধি, অফুরন্ত রিজার্ভ নিয়ে সরকার আত্মতৃপ্তিতে নিমজ্জিত থাকলেও বেকারত্ব এবং মুদ্রাস্ফীতিতে জীবনযাত্রার মান তছনছ হয়ে পড়েছে, সরকার তা বিবেচনায় নেয়নি। এ ধরনের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনার মূলে রয়েছে স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি ও গোষ্ঠীর সংকীর্ণ স্বার্থ উদ্ধার করা।’

আ স ম রব মনে করেন, আইনের শাসন, গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অর্থনীতিতে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে হবে। অংশীদারিত্বমূলক উন্নয়ন দর্শনে অর্থনীতির সমন্বিত ও ইতিবাচক পদক্ষেপে উন্নয়নের সমতা ও কল্যাণ অর্জন করা সম্ভব হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন