রিজভী

আজীবন ক্ষমতায় থাকতে বিরোধী দলের সঙ্গে সংলাপ চায় না আ’লীগ

প্রকাশ : ২২ জুন ২০১৮, ১৫:৩৫ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ‍রুহুল কবির রিজভী। ফাইল ছবি

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আওয়ামী লীগ ভোটারবিহীন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আজীবন ক্ষমতায় থাকতে চায়। আর এ জন্যই বিরোধী দলের সঙ্গে সংলাপ চায় না।

শুক্রবার দলের নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

‘যথাসময়ে নির্বাচন হবে, সংলাপের কোনো প্রয়োজন নাই’— আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন মন্তব্যের সমালোচনা করেন রিজভী।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ চায় ভোটারবিহীনভাবে আজীবন ক্ষমতায় থাকতে। আর সে জন্য তারা আবারও ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন করতে চায়। আমরা বারবার সংলাপ করে সমাধানের কথা বললেও তারা সাড়া দিচ্ছে না। আসলে যারা ভোটবিহীন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে ক্ষমতা দখল করে আজীবন থাকতে চায়, তাদের কাছে সংলাপের প্রয়োজন নেই।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে রিজভী বলেন, দিনের পর দিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসাসেবা না পাওয়ায় খালেদা জিয়ার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ বা পূর্ণাঙ্গ স্ট্রোকের ঝুঁকি তৈরি হয়েছে বলে বলছেন বাংলাদেশের প্রখ্যাত মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এফ এম সিদ্দিকী। গতকাল এ নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসিতে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, আমরা বারবার খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার দাবি করে আসছি। কেন তিনি ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে চান, তাও বিস্তারিতভাবে আমরা বলেছি। আমরা বলেছি, পিজি বা সিএমএইচে দেশনেত্রীর প্রকৃত চিকিৎসা হবে না। কারণ সেখানে ডপলার টেস্ট এবং বিশেষ ধরনের এমআরআইর সুবিধা নেই। আছে শুধু ইউনাইটেডে। চিকিৎসকের বক্তব্যেও সেটি পরিষ্কার হল।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী কারাবন্দি থাকাকালীন স্কয়ার হাসপাতালে তিনবার চিকিৎসা নিয়েছেন, আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মরহুম আবদুল জলিল সাহেব ল্যাবএইডে, বর্তমান স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ল্যাবএইডে, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ সেলিম বারডেমে চিকিৎসা নিয়েছেন। তা হলে এসব আওয়ামী লীগ নেতা কোন কারাবিধানের বলে এসব বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছিলেন?

সরকার খালেদা জিয়ার জীবন নিয়ে দুরভিসন্ধিমূলক খেলায় মেতে উঠেছে বলেও মন্তব্য করেন রিজভী।

তিনি বলেন, একজন সংকটাপন্ন রোগীকে চিকিৎসা না দেয়া চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, নাগরিক নিরাপত্তাসংশ্লিষ্ট যে বিষয়গুলো আমরা দলের পক্ষ থেকে বারবার উত্থাপন করেছি, সেগুলোই আজ বিশ্বজুড়ে আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে জোরালোভাবে বলা হচ্ছে।

‘তার পরও সব মনুষ্যত্ব, বিবেক বিসর্জন দিয়ে দেশজুড়ে বিচারবহির্ভূত হত্যা, গুম, গুপ্তহত্যা, অপহরণের এক অমানবিক সন্ত্রাসী পরিকাঠামো তৈরি করেছে সরকার।’

বিএনপিসহ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী।

তিনি বলেন, ভোটারবিহীন সরকার তাদের অবৈধ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতেই দেশজুড়ে বিচারবহির্ভূত হত্যা, গুম, খুন ও গণগ্রেফতার অব্যাহত রেখেছে।