দুর্ভিক্ষের আগে সরকারকে বিদায় দিতে হবে: ভিপি নুর
jugantor
দুর্ভিক্ষের আগে সরকারকে বিদায় দিতে হবে: ভিপি নুর

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:২৮:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, সরকার উন্নয়নের কথা বলে দেশকে দুর্ভিক্ষের দিকে নিয়ে এসেছে। লুটপাট করে দেশকে ফাঁকা করে ফেলেছে। তাই দুর্ভিক্ষের আগে সরকারকে বিদায় দিতে হবে।

শুক্রবার রাজধানীর বিজয়নগরে গণ অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। সমাবেশ থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরুর ঘোষণা দেন গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব।

দিন–তারিখ ঠিক করে সরকারের পতন ঘটানো যায় না মন্তব্য করে তিনি বলেন, কে ক্ষমতায় আসবে, কে প্রধানমন্ত্রী হবে, সেটা নিয়ে আলোচনার সময় এখন নয়। দেশের জনগণ দুঃশাসন থেকে মুক্তি চায়। তাই যার যা কিছু আছে, তাই নিয়ে সরকার পতনের গণ-আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।

নুরুল হক বলেন, হেফাজতের মতো বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর দমন-পীড়ন করতে সরকার বিএনপিকে নয়াপল্টনের পরিবর্তে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মতো আবদ্ধ জায়গায় সমাবেশের অনুমতি দিয়েছে। এটা বিএনপির জন্য ভালো হবে না।

গণ অধিকার পরিষদের আহবায়ক ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, সরকার দেশ চালাতে পারছে না। দেশের অর্থনীতির অবস্থা ভালো নয়। জনগণ অর্থনীতির একটা স্থিতিশীল অবস্থা চায়। জনগণ চায় জিনিসপত্র মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে থাকুক।

তিনি বলেন, সরকার অসংখ্য আলেম-ওলামা ও রাজনৈতিক নেতাকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলায় জেলে ভরে রেখেছে। তাদের অত্যাচার করেছে। আমাদের নেতাকর্মীদেরও এখন হয়রানি করছে। অবিলম্বে আলেম-ওলামাসহ রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তি দাবি করছি।

গণ অধিকার পরিষদের নেতা মাহফুজুর রহমান ও সাইফুল্লাহ হায়দারের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন- গণ অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান, হাসান আল মামুন, ফারুক হাসান, শহিদুল ইসলাম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) হাবিবুর রহমান, জিসান মহসিনসহ ছাত্র, যুব, শ্রমিক ও গণ অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতারা।

দুর্ভিক্ষের আগে সরকারকে বিদায় দিতে হবে: ভিপি নুর

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:২৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, সরকার উন্নয়নের কথা বলে দেশকে দুর্ভিক্ষের দিকে নিয়ে এসেছে। লুটপাট করে দেশকে ফাঁকা করে ফেলেছে। তাই দুর্ভিক্ষের আগে সরকারকে বিদায় দিতে হবে।

শুক্রবার রাজধানীর বিজয়নগরে গণ অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। সমাবেশ থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরুর ঘোষণা দেন গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব। 

দিন–তারিখ ঠিক করে সরকারের পতন ঘটানো যায় না মন্তব্য করে তিনি বলেন, কে ক্ষমতায় আসবে, কে প্রধানমন্ত্রী হবে, সেটা নিয়ে আলোচনার সময় এখন নয়। দেশের জনগণ দুঃশাসন থেকে মুক্তি চায়। তাই যার যা কিছু আছে, তাই নিয়ে সরকার পতনের গণ-আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।

নুরুল হক বলেন, হেফাজতের মতো বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর দমন-পীড়ন করতে সরকার বিএনপিকে নয়াপল্টনের পরিবর্তে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মতো আবদ্ধ জায়গায় সমাবেশের অনুমতি দিয়েছে। এটা বিএনপির জন্য ভালো হবে না।

গণ অধিকার পরিষদের আহবায়ক ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, সরকার দেশ চালাতে পারছে না। দেশের অর্থনীতির অবস্থা ভালো নয়। জনগণ অর্থনীতির একটা স্থিতিশীল অবস্থা চায়। জনগণ চায় জিনিসপত্র মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে থাকুক।

তিনি বলেন, সরকার অসংখ্য আলেম-ওলামা ও রাজনৈতিক নেতাকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলায় জেলে ভরে রেখেছে। তাদের অত্যাচার করেছে। আমাদের নেতাকর্মীদেরও এখন হয়রানি করছে।  অবিলম্বে আলেম-ওলামাসহ রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তি দাবি করছি।

গণ অধিকার পরিষদের নেতা মাহফুজুর রহমান ও সাইফুল্লাহ হায়দারের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন- গণ অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান, হাসান আল মামুন, ফারুক হাসান, শহিদুল ইসলাম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) হাবিবুর রহমান, জিসান মহসিনসহ ছাত্র, যুব, শ্রমিক ও গণ অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতারা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন