বাসা থেকে ফখরুলের জন্য নাস্তা নিয়ে গেছে ডিবি কার্যালয়ে
jugantor
বাসা থেকে ফখরুলের জন্য নাস্তা নিয়ে গেছে ডিবি কার্যালয়ে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:০৬:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের বাসার দুজন কর্মীকে ব্যাগে করে খাবার নিয়ে গাড়িতে করে ডিবি কার্যালয়ের দিকে যেতে দেখা গেছে।

প্রতিদিন খুব সকাল থেকে নেতাকর্মীদের ভিড় থাকলেও শুক্রবার সকালে কাউকে দেখা যায়নি।

বাসার দারোয়ান জানান, বাসার সামনে আসা নিষেধ রয়েছে। মহাসচিব স্যারের জন্য সকালের নাস্তা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তিনি কিছু রোগে আক্রান্ত। ডাক্তারের পরামর্শে তিনি যে খাবার খান, বাসার দুই কর্মী তা নিয়ে ডিবি কার্যালয়ে গেছেন।

উত্তরায় মির্জা ফখরুলের বাসায় গিয়ে দেখা যায়, ৪ নম্বর সেক্টরের ২৭ নম্বর রোডের বিএনপি মহাসচিবের বাসায় সুনসান নীরবতা।

দোতলায় তার স্ত্রী রাহাত আরা বেগম আছেন। আর নিচতলায় তার অফিসে কেউ নেই। প্রতিদিন খুব সকাল থেকে নেতাকর্মীদের ভিড় থাকলেও শুক্রবার সকালে কাউকে দেখা যায়নি। বাসার দারোয়ান জানান, বাসার সামনে কাউকে আসতে দেওয়া হচ্ছে না।

বিএনপির প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান যুগান্তরকে বলেন, গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা বিএনপি মহাসচিবকে তার উত্তরার ভাড়াবাসা থেকে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে আটক করে নিয়ে যায়।

মির্জা ফখরুলের স্ত্রী রাহাত আরা বেগমের বরাত দিয়ে শায়রুল কবির আরও বলেন, ‘ডিবি পুলিশ সদস্যরা রাত ৩টার দিকে উত্তরার বাসায় এসে বলেছেন, সরকারের উচ্চপর্যায়ের নির্দেশে তারা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে আটক করছেন।’

বাসা থেকে ফখরুলের জন্য নাস্তা নিয়ে গেছে ডিবি কার্যালয়ে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:০৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের বাসার দুজন কর্মীকে ব্যাগে করে খাবার নিয়ে গাড়িতে করে ডিবি কার্যালয়ের দিকে যেতে দেখা গেছে।

প্রতিদিন খুব সকাল থেকে নেতাকর্মীদের ভিড় থাকলেও শুক্রবার সকালে কাউকে দেখা যায়নি।

বাসার দারোয়ান জানান, বাসার সামনে আসা নিষেধ রয়েছে। মহাসচিব স্যারের জন্য সকালের নাস্তা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তিনি কিছু রোগে আক্রান্ত। ডাক্তারের পরামর্শে তিনি যে খাবার খান, বাসার দুই কর্মী তা নিয়ে ডিবি কার্যালয়ে গেছেন।

উত্তরায় মির্জা ফখরুলের বাসায় গিয়ে দেখা যায়, ৪ নম্বর সেক্টরের ২৭ নম্বর রোডের বিএনপি মহাসচিবের বাসায় সুনসান নীরবতা।

দোতলায় তার স্ত্রী রাহাত আরা বেগম আছেন। আর নিচতলায় তার অফিসে কেউ নেই। প্রতিদিন খুব সকাল থেকে নেতাকর্মীদের ভিড় থাকলেও শুক্রবার সকালে কাউকে দেখা যায়নি। বাসার দারোয়ান জানান, বাসার সামনে কাউকে আসতে দেওয়া হচ্ছে না।

বিএনপির প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান যুগান্তরকে বলেন, গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা বিএনপি মহাসচিবকে তার উত্তরার ভাড়াবাসা থেকে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে আটক করে নিয়ে যায়।

মির্জা ফখরুলের স্ত্রী রাহাত আরা বেগমের বরাত দিয়ে শায়রুল কবির আরও বলেন, ‘ডিবি পুলিশ সদস্যরা রাত ৩টার দিকে উত্তরার বাসায় এসে বলেছেন, সরকারের উচ্চপর্যায়ের নির্দেশে তারা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে আটক করছেন।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন