শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সুপ্রিমকোর্ট বারের সমর্থন

  যুগান্তর রিপোর্ট ০১ আগস্ট ২০১৮, ২১:০৩ | অনলাইন সংস্করণ

জয়নুল আবেদীন
জয়নুল আবেদীন। ফাইল ছবি

বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় নিহত দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় চলমান আন্দোলনকে সমর্থন দিয়েছে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি।

বুধবার সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতির কক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে সমর্থন দেন বারের নেতারা।

সংবাদ সম্মেলনে সভাপতি জয়নুল আবেদীন বলেন, গত কয়েক দিন আগে দুটি প্রাণ চলে গিয়েছে। বাসচাপা দিয়ে রেডিসন হোটেলের সামনে দুই কলেজ দুই শিক্ষার্থীকে মেরে ফেলেছে বাসের চালক। দেশের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা মাঠে নেমেছে। সরকার গাড়ি চালাতে কতগুলো আনাড়ি লোকজনকে লাইসেন্স দিচ্ছে। প্রত্যেকটি লাইসেন্স দেয়া হচ্ছে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে। এই সরকারের উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য।

তিনি বলেন, নৌমন্ত্রী শাহজাহান খান বলেছিলেন, গরু-ছাগল চিনলেই গাড়ি চালানোর লাইসেন্স দেয়া যাবে। এই ধরনের উক্তি একজন মন্ত্রীর কাছ থেকে জাতি আশা করে না।

জয়নুল আবেদীন বলেন, শাহজাহান খানের এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে আমার মনে হয় অপরিপক্ব লোকজনকে পরিবহনের লাইসেন্স দেয়া হচ্ছে। এর পেছনে সরকারের ইন্ধন রয়েছে। আজকে দুটি তাজা প্রাণ ঝরে গেল। সরকারের পক্ষ থেকে কোন দুঃখ প্রকাশ না করে তারা আরও বিভিন্নভাবে উসকে দিচ্ছে।

তিনি বলেন, তারা দেশের বাইরের উদাহরণ দিচ্ছে অমুক দেশে এ রকম ঘটনা ঘটে, তমুক দেশে এ রকম ঘটনা ঘটে। কোন দেশে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকলে বাস উঠিয়ে দিয়ে এ রকম শিক্ষার্থীদের মেরে ফেলা হয়।

জয়নুল আবেদীন বলেন, আপনার দেখেছেন কয়েক দিন ধরে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমেছে। আজকে পত্রিকায় আমরা দেখেছি। বাচ্চা শিশুদেরকে পুলিশ বাহিনীরা ধরে টেনেহিঁচড়ে গাড়ির মধ্যে উঠাচ্ছে এবং তাদের এমনভাবে পেটানো হচ্ছে যেন তারা অপরাধী হয়ে গেছে। তারা দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর বিষয় নিয়ে প্রতিবাদ করেছে। অথচ এই সরকার নীরব ভূমিকা পালন করছে।

তিনি বলেন, এই সরকার গণতান্ত্রিক নয়, তারা গণতান্ত্রিক হলে আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতো। সুশাসনের কারণেই এ ধরনের ঘটনা একের পর এক ঘটে যাচ্ছে। কুমিল্লাতেও বাস দিয়ে শিক্ষার্থীদের মেরে ফেলা হচ্ছে। আমাদের দাবি হচ্ছে অনতিবিলম্বে এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীদের পদত্যাগ করতে হবে। তাদের ব্যর্থতার কারণে তাদের পদত্যাগ করা উচিত। বিশেষ করে নৌমন্ত্রী যিনি বিভিন্ন দেশের সড়ক দুর্ঘটনার কথা স্মরণ করে দিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দিতে চান। এই মন্ত্রীর আমরা পদত্যাগ দাবি করছি।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে সভাপতি বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত। যেসব মন্ত্রীরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করতে পারে না। তাদের আপনি পদত্যাগ করতে বলুন। দেশে আইনের শাসনের ব্যবস্থা করুন। দেশে গণতান্ত্রিক শাসনের ব্যবস্থা করুন। এবং জাতির কাছে আপনার ব্যর্থতার জন্য দুঃখ প্রকাশ করুন। মানুষ মারার বিপক্ষে আমরা আছি। ছাত্রদের আন্দোলনের সঙ্গে আছি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বারের সহসভাপতি গোলাম রহমান, সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রমুখ।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কালো পতকা মিছিল এদিকে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সুপ্রিমকোর্টে মানববন্ধন ও কালো পতাকা মিছিল করেছেন শতাধিক আইনজীবী।

বুধবার দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত সুপ্রিমকোর্ট বার ভবনের সামনে লইয়ার্স মুভমেন্ট ফর রেস্টোরেশন অব ডেমোক্রেসি অ্যান্ড রিলিজ অব খালেদা জিয়া ব্যানারে শতাধিক আইনজীবী মানববন্ধন ও কালো পতাকা মিছিলে অংশ নেন।

সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী আবেদ রাজার সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন আইনজীবী তৈমূর আলম খন্দকার, ওলিউর রহমান খান, মনির হোসেন, খোরশেদ মিয়া আলম, আখতার হোসেন, গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী আলাল, রুহুল কুদ্দুস কাজল, এবিএম রফিকুল হক তালুকদার রাজা, মতি লাল ব্যাপারী, আনিছুর রহমান খান, অনজুমান আরা মুন্নি, আইয়ুব আলী আশ্রাফী, শরিফ ইউ আহমেদ প্রমুখ।

প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, এই সরকারের দুঃশাসনের বিরুদ্ধে দেশের ১৬ কোটি মানুষ। সরকার দেশের ১৬ কোটি মানুষকে জিম্মি করে রেখেছে। দেশের বিচার বিভাগ ও জনগণ সরকারের কাছে জিম্মি হয়ে আছে। দেশের মানুষকে পায়ের তলায় পেষা হচ্ছে প্রতিনিয়ত।

বক্তারা বলেন, সরকার টিকে আছে পুলিশ ও বিচার বিভাগের ওপর নির্ভর করে। খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারের পতন ঘটাতে হবে। সুপ্রিমকোর্টসহ সারা দেশে আন্দোলন ছড়িয়ে দিতে হবে। এ জন্য রাজপথে নামতে হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : বিমানবন্দর সড়কে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter