ছাত্রলীগ মিডিয়া সন্ত্রাসের শিকার: সাধারণ সম্পাদক [ভিডিও]

  যাকারিয়া ইবনে ইউসুফ ও সাদ্দাম হোসেন ১২ আগস্ট ২০১৮, ২১:৪০ | অনলাইন সংস্করণ

ছাত্রলীগ মিডিয়া সন্ত্রাসের শিকার: সাধারণ সম্পাদক
ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। ছবি- ভিডিও থেকে নেয়া

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেছেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের মুখোমুখির ঘটনা ঘটেনি। এটি ষড়যন্ত্র। ছাত্রলীগ কতিপয় মিডিয়া, কলম সন্ত্রাসের শিকার। শুরু থেকেই মিডিয়ার বিমাতাসুলভ আচরণের শিকার হয়ে আসছে ছাত্রলীগ।

রোববার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে যুগান্তরের ফেসবুক পেজ লাইভে এসে এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সড়ক পরিবহন খাতে নৈরাজ্য, দুর্নীতি ও অরাজকতার কথা স্বীকার করে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, এসবের কারণে আমাদের মাঝেও ক্ষোভ ছিল। একটি সিন্ডিকেট দীর্ঘদিন ধরে কব্জা করেছিল এই পরিবহন খাত। পরিবহন শ্রমিকদের হাতে জিম্মি ছিল সাধারণ জনগণ। এমনকি আমরা নিজেরাও এর শিকার হয়েছি। আমরা যারা মধ্যবিত্ত পরিবারের। এর ফলে ওই দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে এবং আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে মানুষের দীর্ঘদিনের ক্ষোভ প্রকাশ পেয়েছে এবং ছাত্রছাত্রীরা আন্দোলনে নেমেছে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রথম দিন থেকেই ছাত্রলীগ পূর্ণ সমর্থন দিয়েছে।

গোলাম রাব্বানী বলেন, আপনারা দেখেছেন- আমাদের আপা (শেখ হাসিনা) সব সময় প্রত্যাশার চেয়ে বেশি দেন। শিক্ষার্থীরা ৯টি দাবি করেছিল শেখ হাসিনা ১১টি দাবি পূরণের কথা বলেছেন। আমরা বলেছি, এই দাবি যদি দ্রুত আদায় না হয় তাহলে আমরা মাঠে নেমে আন্দোলন করব। আমরা শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়ে আন্দোলন করব দাবি আদায় ত্বরান্বিত করতে।

তিনি বলেন, আমারও অনেক প্রোগ্রাম হাতে নিয়েছি। আমরা বিআরটিএ চেয়ারম্যানকে ফোন করেছি। তার সঙ্গে বসেছি। আমরা উনাকে বলেছি, প্রত্যেকটি গাড়ির ফিটনেস থাকতে হবে, ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই। তা না হলে আমরা প্রটেস্ট করব। এবং তিনি এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারিও করেছেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগ হামলা করেছিল কিনা, এ প্রশ্নে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক অস্বীকার করে বলেন, কখনোই ছাত্রলীগ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করেনি।

তাহলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হেলমেট পরিহিত হামলাকারীরা কারা? এ প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি শুরুতেই বলেছি- ছাত্রলীগ মিডিয়ার বিমাতাসুলভ আচরণের শিকার। মিডিয়া সন্ত্রাসের শিকার। সেটার এক্সাম্পল আমি নিজেই। কারণ ঘটনার দিন ৯ জুলাই আমি ও আমার প্রেসিডেন্ট গণভবন থেকে বের হয়েছি। আমাদের ওপর হামলা হয়েছে।

ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীরা কখনো এটা করতে পারে না। একজন সাধারণ শিক্ষার্থী কখনোই একটি রাজনৈতিক দলের অফিসে হামলা করবে না। একজন সাধারণ শিক্ষার্থী কখনোই ব্যাগে অস্ত্র-রিভলবার বহন করবে না। একজন সাধারণ শিক্ষার্থী কখনোই ব্যাগে শিলা পাথর, চাপাতি, দা, রড এগুলো রাখবে না। আমরা ইতিমধ্যেই প্রমাণ করেছি- ১৫-২০ জনকে শনাক্ত করেছি, যারা সরাসরি ছাত্রশিবিরের পোস্টেড নেতা। এবং অস্ত্রধারী মার্ডার মামলার আসামি। আমি প্রমাণ দিতে পারব, আমার কাছে প্রমাণ আছে।

তিনি আরও বলেন- সুতরাং আমি বলব যে, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আবেগকে কাজে লাগিয়ে ষড়যন্ত্রে নামে তারা।

গোলাম রাব্বানী বলেন, তারা প্রেস কার্ড বানিয়ে মাঠে নেমেছে। এবং এরাই মূলত এই ছাত্র আন্দোলনকে সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে রূপ দিতে চেয়েছে। যার ফলে তাদের মধ্য (ছাত্র আন্দোলন) থেকেই বিনা উসকানিতে সরাসরি আমাদের ওপর হামলা করা হয়েছে। আমাদের ৭২ জন আহত হয়েছে। এবং ১৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আমাদের আপা (শেখ হাসিনা) বলেছেন- সর্বোচ্চ ধৈর্য ধর। যদি তোমরা আহত হও, আঘাতপ্রাপ্ত হও তবুও সংযম, ধৈর্য ধর। আমরা সেটাই করেছি।

একপর্যায়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ, ঢাকা কলেজসহ আশপাশের কলেজগুলোর পূর্ণাঙ্গ কমিটির বিষয়ে সংগঠনটির সম্পাদক বলেন, আমাদের আগস্ট মাসের প্রোগ্রাম চলছে। আমরা বলেছি, সারা দেশে যত ইউনিটিতে সমস্যা আছে, যত কমিটিতে সমস্যা আছে লিখিত দিতে। যেহেতু সামনে নির্বাচন তাই দ্রুত আমরা এসবের সমাধান করে ভালো ও যোগ্য প্রার্থীদের নিয়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করব।

উল্লেখ্য, গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলায় জাবালে নূর পরিবহনের বাসচাপায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী দিয়া খানম মীম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজীব নিহত হন। এ ছাড়া আহত হন বেশ কয়েকজন।

এ ঘটনার পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা। এর পর তাদের দাবি পূরণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এরই মধ্যে ওই কলেজশিক্ষার্থীদের জন্য পাঁচটি বিশেষ বাস দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

এছাড়া সরকারের পক্ষ থেকে নিহত দুজনের পরিবারকে ২০ লাখ টাকা করে দেয়া হয়েছে। আর জাবালে নূর পরিবহনের রুট পারমিট বাতিল করা হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : বিমানবন্দর সড়কে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter