একমাস ধরে কুমিল্লার ঘটনার পরিকল্পনা হয়েছিল ‘লন্ডনে’
jugantor
একমাস ধরে কুমিল্লার ঘটনার পরিকল্পনা হয়েছিল ‘লন্ডনে’

  রাজশাহী ব্যুরো  

২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:২২:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

একমাস ধরে কুমিল্লার ঘটনার পরিকল্পনা হয়েছিল ‘লন্ডনে’

‘শারদীয় দুর্গাপূজায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতার সঙ্গে বিএনপি-জামায়াত জড়িত। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরিকল্পনায় সারা দেশে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার (কুমিল্লার) পরিকল্পনা হয়েছে সুদূর লন্ডনে বসে। দীর্ঘ একমাস ধরে এ পরিকল্পনা চলে।’

‘এরা (বিএনপি-জামায়াত) প্রকাশ্যে বৈঠক করেছে। আর গোপনে ষড়যন্ত্র করেছে। সেই ষড়যন্ত্রেরই অংশ হচ্ছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট। এ উদ্দেশ্যে দুর্গাপূজার সময় পূজামণ্ডপে হামলা পরিচালনা করেছে তারা।’

মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহী সার্কিট হাউসে গণমাধ্যমকর্মীদের এক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

মন্ত্রী বলেন, সাম্প্রদায়িক সহিংসতার সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাইকে খুঁজে বের করা হবে। এদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে। ষড়যন্ত্রকারীরা সবকিছুতে ব্যর্থ
হয়ে এবার দুর্গাপূজায় হনুমানের মূর্তির কাছে কুরআন শরিফ রেখে আসে। কারা রেখেছে? যে রেখেছে, তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে তো আসলে রাখেনি। সে কারও ফরমায়েশে সেখানে রেখে এসেছে। কারা এর পেছনে আছে, সেটি খুব সহসা বের হবে। খুবই স্পষ্ট যে, কারা এগুলো ঘটিয়েছে। সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে রাজনীতি কারা করে এই দেশে? সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে রাজনীতি করে বিএনপি-জামায়াত, ধর্মান্ধ-উগ্রবাদীরা।বাংলাদেশের কোনো সম্প্রদায়ের লোক অপরের ধর্মগ্রন্থ অবমাননা করার মানসিকতা পোষণ করেন না।

তিনি আরও বলেন, যারা এটি করেছে এবং তাকে যারা প্ররোচনা দিয়েছে, তারা আমাদের পবিত্র ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করেছে। একইসঙ্গে হিন্দু ধর্মকেও অবমাননা করেছে। এই দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করেছে। তাদেরকে খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে সরকার বদ্ধপরিকর।এই যুবককে কারা প্ররোচিত করেছে, কারা অর্থ দিয়েছে, কারা পালিয়ে যাওয়ার জন্য চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার পাঠিয়েছে- সবকিছুই বের হবে।সরকার এই ঘটনার পর ১০২টি মামলা করেছে, ৭শ’র মতো দুষ্কৃতকারীকে গ্রেফতার করেছে। কঠোর হস্তে সরকার এটি দমন করেছে। সরকারের এই ভূমিকা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রশংসিত হয়েছে।

এর আগে মন্ত্রী বাংলাদেশ টেলিভিশনের রাজশাহী উপকেন্দ্র পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, রাজশাহী টেলিভিশন কেন্দ্র আমরা চালু করার পরিকল্পনা নিয়েছি। এটি যত দ্রুত সম্ভব চালু করা হবে। এটি হয়তো এ বছর সময় অবশ্যই লাগবে। আগামী নির্বাচনের আগে রাজশাহীতে টেলিভিশন কেন্দ্র চালু করতে পারব বলে আমরা আশা করি।

মন্ত্রীর সঙ্গে এ সময় রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন, সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি আদিবা আনজুম মিতা, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল কুমার সরকার, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, বিটিভির মহাপরিচালক (ডিজি) সোহরাব হোসেনহ আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

একমাস ধরে কুমিল্লার ঘটনার পরিকল্পনা হয়েছিল ‘লন্ডনে’

 রাজশাহী ব্যুরো 
২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
একমাস ধরে কুমিল্লার ঘটনার পরিকল্পনা হয়েছিল ‘লন্ডনে’
ফাইল ছবি

‘শারদীয় দুর্গাপূজায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতার সঙ্গে বিএনপি-জামায়াত জড়িত। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরিকল্পনায় সারা দেশে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার (কুমিল্লার) পরিকল্পনা হয়েছে সুদূর লন্ডনে বসে। দীর্ঘ একমাস ধরে এ পরিকল্পনা চলে।’ 

‘এরা (বিএনপি-জামায়াত) প্রকাশ্যে বৈঠক করেছে। আর গোপনে ষড়যন্ত্র করেছে। সেই ষড়যন্ত্রেরই অংশ হচ্ছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট। এ উদ্দেশ্যে দুর্গাপূজার সময় পূজামণ্ডপে হামলা পরিচালনা করেছে তারা।’

মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহী সার্কিট হাউসে গণমাধ্যমকর্মীদের এক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

মন্ত্রী বলেন, সাম্প্রদায়িক সহিংসতার সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাইকে খুঁজে বের করা হবে। এদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে। ষড়যন্ত্রকারীরা সবকিছুতে ব্যর্থ
হয়ে এবার দুর্গাপূজায় হনুমানের মূর্তির কাছে কুরআন শরিফ রেখে আসে। কারা রেখেছে? যে রেখেছে, তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে তো আসলে রাখেনি। সে কারও ফরমায়েশে সেখানে রেখে এসেছে। কারা এর পেছনে আছে, সেটি খুব সহসা বের হবে। খুবই স্পষ্ট যে, কারা এগুলো ঘটিয়েছে। সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে রাজনীতি কারা করে এই দেশে? সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে রাজনীতি করে বিএনপি-জামায়াত, ধর্মান্ধ-উগ্রবাদীরা।বাংলাদেশের কোনো সম্প্রদায়ের লোক অপরের ধর্মগ্রন্থ অবমাননা করার মানসিকতা পোষণ করেন না।

তিনি আরও বলেন, যারা এটি করেছে এবং তাকে যারা প্ররোচনা দিয়েছে, তারা আমাদের পবিত্র ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করেছে। একইসঙ্গে হিন্দু ধর্মকেও অবমাননা করেছে। এই দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করেছে। তাদেরকে খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে সরকার বদ্ধপরিকর।এই যুবককে কারা প্ররোচিত করেছে, কারা অর্থ দিয়েছে, কারা পালিয়ে যাওয়ার জন্য চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার পাঠিয়েছে- সবকিছুই বের হবে।সরকার এই ঘটনার পর ১০২টি মামলা করেছে, ৭শ’র মতো দুষ্কৃতকারীকে গ্রেফতার করেছে। কঠোর হস্তে সরকার এটি দমন করেছে। সরকারের এই ভূমিকা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রশংসিত হয়েছে।

এর আগে মন্ত্রী বাংলাদেশ টেলিভিশনের রাজশাহী উপকেন্দ্র পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, রাজশাহী টেলিভিশন কেন্দ্র আমরা চালু করার পরিকল্পনা নিয়েছি। এটি যত দ্রুত সম্ভব চালু করা হবে। এটি হয়তো এ বছর সময় অবশ্যই লাগবে। আগামী নির্বাচনের আগে রাজশাহীতে টেলিভিশন কেন্দ্র চালু করতে পারব বলে আমরা আশা করি।

মন্ত্রীর সঙ্গে এ সময় রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন, সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি আদিবা আনজুম মিতা, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল কুমার সরকার, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, বিটিভির মহাপরিচালক (ডিজি) সোহরাব হোসেনহ আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর