দলে চাঁদাবাজদের স্থান দেওয়া যাবে না: আ.লীগ
jugantor
দলে চাঁদাবাজদের স্থান দেওয়া যাবে না: আ.লীগ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২১:৪২:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্বসভায় বাংলাদেশ উন্নয়নের রোলমডেল হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। দেশকে এগিয়ে নিতে তিনি কঠোর পরিশ্রম করছেন। তার পরিশ্রম ও সঠিক নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। কিন্তু নেত্রীর সব অর্জন বিসর্জন হয়ে যায়- যখন দেখি আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ ওঠে। তাই দলে কোনোভাবেই চাঁদাবাজদের স্থান দেওয়া যাবে না।

রোববার রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ৩৮নং ওয়ার্ড সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা এ কথা বলেন। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের শিকড় বাংলাদেশের মাটির অনেক গভীরে। ক্ষমতা না থাকায় ফখরুল সাহেবরা পথহারা পথিকের মতো দিশেহারা হয়ে গেছেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ তেমন দল নয়। তিনি বলেন, যত দিন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পতাকা এদেশে উড্ডীন থাকবে তত দিন আওয়ামী লীগ থাকবে।

দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম বলেন, দেশ ও দেশের মানুষকে উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বিশ্বসভায় বাংলাদেশ উন্নয়নের রোলমডেল হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন করেছে। সেই বাংলাদেশকে যারা পিছিয়ে দিতে চায়, ব্যর্থ করতে চায়, ধ্বংস করতে চায় তাদের প্রতিহত করতে হবে। যারা একজন নেত্রীর (খালেদা জিয়া) চিকিৎসার নামে জ্বালাও-পোড়াও, সভা-সমাবেশ ও ধ্বংসযজ্ঞ চালাতে চায় তাদের শক্ত হাতে মোকাবিলা করতে হবে।

সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেন, দলের অনেকেই আওয়ামী লীগের সুবিধা নিয়ে সমৃদ্ধিশালী হয়েছেন। কিন্তু এই ১৩ বছরে আওয়ামী লীগ সেভাবে উন্নত ও সমৃদ্ধিশালী হয়নি। আওয়ামী লীগ শক্তিশালীও হয়নি।

দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, যারা জাতির পিতাকে হত্যা করেছে, যারা দেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে তারা আবার দেশের উন্নয়ন-অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করতে চায়। একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামির চিকিৎসার নামে আইনের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে ষড়যন্ত্রের পাঁয়তারা করছেন তারা। ঐক্যবদ্ধভাবে সব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে হবে।

মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী বলেন, দখলবাজ, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ ও বিভিন্ন অনিয়ম দুর্নীতিতে জড়িতদের মহানগর আওয়ামী লীগে স্থান নেই।

মহানগর দক্ষিণের ৩৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার মইনুর রহমান জুয়েলের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

দলে চাঁদাবাজদের স্থান দেওয়া যাবে না: আ.লীগ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্বসভায় বাংলাদেশ উন্নয়নের রোলমডেল হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। দেশকে এগিয়ে নিতে তিনি কঠোর পরিশ্রম করছেন। তার পরিশ্রম ও সঠিক নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। কিন্তু নেত্রীর সব অর্জন বিসর্জন হয়ে যায়- যখন দেখি আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ ওঠে। তাই দলে কোনোভাবেই চাঁদাবাজদের স্থান দেওয়া যাবে না। 

রোববার রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ৩৮নং ওয়ার্ড সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা এ কথা বলেন। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের শিকড় বাংলাদেশের মাটির অনেক গভীরে। ক্ষমতা না থাকায় ফখরুল সাহেবরা পথহারা পথিকের মতো দিশেহারা হয়ে গেছেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ তেমন দল নয়। তিনি বলেন, যত দিন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পতাকা এদেশে উড্ডীন থাকবে তত দিন আওয়ামী লীগ থাকবে। 

দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম বলেন, দেশ ও দেশের মানুষকে উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বিশ্বসভায় বাংলাদেশ উন্নয়নের রোলমডেল হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন করেছে। সেই বাংলাদেশকে যারা পিছিয়ে দিতে চায়, ব্যর্থ করতে চায়, ধ্বংস করতে চায় তাদের প্রতিহত করতে হবে। যারা একজন নেত্রীর (খালেদা জিয়া) চিকিৎসার নামে জ্বালাও-পোড়াও, সভা-সমাবেশ ও ধ্বংসযজ্ঞ চালাতে চায় তাদের শক্ত হাতে মোকাবিলা করতে হবে।

সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেন, দলের অনেকেই আওয়ামী লীগের সুবিধা নিয়ে সমৃদ্ধিশালী হয়েছেন। কিন্তু এই ১৩ বছরে আওয়ামী লীগ সেভাবে উন্নত ও সমৃদ্ধিশালী হয়নি। আওয়ামী লীগ শক্তিশালীও হয়নি। 

দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, যারা জাতির পিতাকে হত্যা করেছে, যারা দেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে তারা আবার দেশের উন্নয়ন-অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করতে চায়। একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামির চিকিৎসার নামে আইনের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে ষড়যন্ত্রের পাঁয়তারা করছেন তারা। ঐক্যবদ্ধভাবে সব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে হবে।

মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী বলেন, দখলবাজ, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ ও বিভিন্ন অনিয়ম দুর্নীতিতে জড়িতদের মহানগর আওয়ামী লীগে স্থান নেই। 

মহানগর দক্ষিণের ৩৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার মইনুর রহমান জুয়েলের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন