ডা. জাফরুল্লাহকে একহাত নিল বিএনপি
jugantor
ডা. জাফরুল্লাহকে একহাত নিল বিএনপি

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৮:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

সাম্প্রতিককালে বিএনপি ও শীর্ষ নেতৃত্বকে নিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর নানা বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছে দলটি। জাফরুল্লাহকে একহাত নিয়েছে বিএনপি।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ও মুখপাত্র রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, উনাকে (জাফরুল্লাহ চৌধরীকে) স্বৈরাচারের দোসর জানতাম। তিনি এখন বক্তব্য দেন, গণতন্ত্রের কথা বলেন। আজকে জাতির বিবেক হয়ে‌ছেন, কে কী করবে- না করবে, কার কী করা উচিত, সেটার মাত্রা ছাড়িয়ে ছবক দিচ্ছেন উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে।

বৃহস্পতিবার নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, জাফরুল্লাহ চৌধুরী একজন বর্ষীয়ান ব্যক্তি। তিনি মুক্তিযুদ্ধে অবদান রেখেছেন, বয়স্ক ব্যক্তি। কিন্তু সব নর্মসের বাইরে কথা বলবেন- তা হতে পারে না। তিনি মাঝে মাঝে বিএনপি ও বিএনপির নেত্রী সম্পর্কে এমন কথা বলেন, যা সব সভ্যতা, সুরুচির বাইরে চলে যায়।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, খালেদা জিয়া বাইরে না মুক্ত- সেটা তো অবশ্যই তার (জাফরুল্লাহ) জানার কথা। খালেদা জিয়া কারাবন্দি ছিলেন, এখন গৃহবন্দি। অনেক শর্ত আরোপ করে তাকে বাসভবনে রাখা হয়েছে। তিনি মুক্তভাবে কোথাও যেতে পারেন না। এখন তিনি মুক্ত হলে কোথায় যাবেন, কীভাবে যাবেন- সেটা তো তার সিদ্ধান্ত। এদেশে দীর্ঘসময় তিনি বিএনপির নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে তার যে অসীম সাহসিকতা জাতি এটা কোনোদিন ভুলে যাবে না। আজও তিনি যে কারাবন্দির নির্যাতন সহ্য করছেন এটাও গণতন্ত্র উদ্ধারের বিশাল একটি সংগ্রামের অংশ। তাকে যে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাবন্দি করা হয়েছে, এটা গোটা জাতি জানে, সারা বিশ্ব জানে।

জাফরুল্লাহর উদ্দেশে প্রশ্ন রেখে রিজভী বলেন, এখন খালেদা জিয়া কী অবস্থায় আছেন- সেটা জাফরুল্লাহ চৌধুরী জানার কথা। তার পরেও জাফরুল্লাহ চৌধুরী খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে নিয়ে মাঝে মাঝে এমন মন্তব্য করেন যে মন্তব্যটা রুচিশীল নয়। মনে হয়, কোনো শক্তিকে খুশি করার জন্য তিনি এসব কথা বলেন। দেশের বৃহত্তম দল বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, তিনি তার প্রজ্ঞা তার চিন্তাভাবনা এবং এই দেশের বর্তমান যে সংকট এই সবকিছু বিশ্লেষণ করে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি আজ সব মহলের কাছে সমাদৃত।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব আরও বলেন, অনেকেই বলেন বা আমরা খবরের কাগজে দেখি জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে জাতীয়তাবাদী শক্তির সমর্থিত বুদ্ধিজীবী বলা হয়। যদি তাই হয়, তাহলে তিনি প্রকাশ্যে যেভাবে বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মন্তব্য করেন, এটা সব সভ্যতা শিষ্টাচারের বিপরীত। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে বিএনপিতে এখন ইস্পাত কঠিন ঐক্য বিদ্যমান বলেও দাবি করেন রিজভী।

ডা. জাফরুল্লাহকে একহাত নিল বিএনপি

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাম্প্রতিককালে বিএনপি ও শীর্ষ নেতৃত্বকে নিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর নানা বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছে দলটি। জাফরুল্লাহকে একহাত নিয়েছে বিএনপি।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ও মুখপাত্র রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, উনাকে (জাফরুল্লাহ চৌধরীকে) স্বৈরাচারের দোসর জানতাম। তিনি এখন বক্তব্য দেন, গণতন্ত্রের কথা বলেন। আজকে জাতির বিবেক হয়ে‌ছেন, কে কী করবে- না করবে, কার কী করা উচিত, সেটার মাত্রা ছাড়িয়ে ছবক দিচ্ছেন উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে।

বৃহস্পতিবার নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, জাফরুল্লাহ চৌধুরী একজন বর্ষীয়ান ব্যক্তি।  তিনি মুক্তিযুদ্ধে অবদান রেখেছেন, বয়স্ক ব্যক্তি।  কিন্তু সব নর্মসের বাইরে কথা বলবেন- তা হতে পারে না।  তিনি মাঝে মাঝে বিএনপি ও বিএনপির নেত্রী সম্পর্কে এমন কথা বলেন, যা সব সভ্যতা, সুরুচির বাইরে চলে যায়।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, খালেদা জিয়া বাইরে না মুক্ত- সেটা তো অবশ্যই তার (জাফরুল্লাহ) জানার কথা। খালেদা জিয়া কারাবন্দি ছিলেন, এখন গৃহবন্দি। অনেক শর্ত আরোপ করে তাকে বাসভবনে রাখা হয়েছে। তিনি মুক্তভাবে কোথাও যেতে পারেন না। এখন তিনি মুক্ত হলে কোথায় যাবেন, কীভাবে যাবেন- সেটা তো তার সিদ্ধান্ত। এদেশে দীর্ঘসময় তিনি বিএনপির নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে তার যে অসীম সাহসিকতা জাতি এটা কোনোদিন ভুলে যাবে না। আজও তিনি যে কারাবন্দির নির্যাতন সহ্য করছেন এটাও গণতন্ত্র উদ্ধারের বিশাল একটি সংগ্রামের অংশ। তাকে যে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাবন্দি করা হয়েছে, এটা গোটা জাতি জানে, সারা বিশ্ব জানে।

জাফরুল্লাহর উদ্দেশে প্রশ্ন রেখে রিজভী বলেন, এখন খালেদা জিয়া কী অবস্থায় আছেন- সেটা জাফরুল্লাহ চৌধুরী জানার কথা। তার পরেও জাফরুল্লাহ চৌধুরী খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে নিয়ে মাঝে মাঝে এমন মন্তব্য করেন যে মন্তব্যটা রুচিশীল নয়। মনে হয়, কোনো শক্তিকে খুশি করার জন্য তিনি এসব কথা বলেন। দেশের বৃহত্তম দল বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, তিনি তার প্রজ্ঞা তার চিন্তাভাবনা এবং এই দেশের বর্তমান যে সংকট এই সবকিছু বিশ্লেষণ করে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি আজ সব মহলের কাছে সমাদৃত।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব আরও বলেন, অনেকেই বলেন বা আমরা খবরের কাগজে দেখি জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে জাতীয়তাবাদী শক্তির সমর্থিত বুদ্ধিজীবী বলা হয়। যদি তাই হয়, তাহলে তিনি প্রকাশ্যে যেভাবে বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মন্তব্য করেন, এটা সব সভ্যতা শিষ্টাচারের বিপরীত। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে বিএনপিতে এখন ইস্পাত কঠিন ঐক্য বিদ্যমান বলেও দাবি করেন রিজভী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন