১১ মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরা ২২ নভেম্বর
jugantor
১১ মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরা ২২ নভেম্বর

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২১ অক্টোবর ২০২১, ১৮:২০:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

নাশকতা ও রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে দায়ের করা ১১ মামলায় আগামী ২২ নভেম্বর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার হাজিরার দিন নির্ধারণ করে দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার এসব মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরা দেওয়ার দিন ধার্য ছিল। কিন্তু অসুস্থতাজনিত কারণে তিনি আদালতে হাজির হতে পারেননি। এজন্য তার আইনজীবী সময়ের আবেদন করেন। ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কেএম ইমরুল কায়েশ সেই আবেদন মঞ্জুর করে আগামী ২২ নভেম্বর পরবর্তী দিন ঠিক করে দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল।

আদালত সূত্র জানায়, মামলাগুলোর মধ্যে রাজধানীর দারুস সালাম থানার নাশকতার আটটি, যাত্রাবাড়ী থানার দুটি ও রাষ্ট্রদ্রোহের অপর একটি মামলা রয়েছে।

খালেদা জিয়া ছাড়াও এসব মামলায় উল্লেখযোগ্য আসামিরা হলেন- বিএনপি নেতা আমানউল্লাহ আমান, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ও সুলতান সালাউদ্দিন টুকু।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিরূপ মন্তব্যের অভিযোগে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাটি ২০১৬ সালের ২৫ জানুয়ারি আদালতে দায়ের করা হয়। ২০১৫ সালে দায়ের করা হয় রাজধানীর দারুস সালাম থানায় নাশকতার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে আটটি মামলা। যাত্রাবাড়ীতে যাত্রী হত্যা মামলাসহ অপর মামলাগুলো ২০১৫ সালে দায়ের করা হয়। পরের বছরের বিভিন্ন সময় এসব মামলায় আদালতে তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়।এসব মামলার মধ্যে ১০ মামলার অভিযোগ গঠন শুনানি এবং যাত্রাবাড়ী থানার অপর একটি মামলায় অভিযোগপত্র গ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে।

১১ মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরা ২২ নভেম্বর

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২১ অক্টোবর ২০২১, ০৬:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নাশকতা ও রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে দায়ের করা ১১ মামলায় আগামী ২২ নভেম্বর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার হাজিরার দিন নির্ধারণ করে দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার এসব মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরা দেওয়ার দিন ধার্য ছিল। কিন্তু অসুস্থতাজনিত কারণে তিনি আদালতে হাজির হতে পারেননি। এজন্য তার আইনজীবী সময়ের আবেদন করেন। ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কেএম ইমরুল কায়েশ সেই আবেদন মঞ্জুর করে আগামী ২২ নভেম্বর পরবর্তী দিন ঠিক করে দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল।

আদালত সূত্র জানায়, মামলাগুলোর মধ্যে রাজধানীর দারুস সালাম থানার নাশকতার আটটি, যাত্রাবাড়ী থানার দুটি ও রাষ্ট্রদ্রোহের অপর একটি মামলা রয়েছে।

খালেদা জিয়া ছাড়াও এসব মামলায় উল্লেখযোগ্য আসামিরা হলেন- বিএনপি নেতা আমানউল্লাহ আমান, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ও সুলতান সালাউদ্দিন টুকু।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিরূপ মন্তব্যের অভিযোগে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাটি ২০১৬ সালের ২৫ জানুয়ারি আদালতে দায়ের করা হয়। ২০১৫ সালে দায়ের করা হয় রাজধানীর দারুস সালাম থানায় নাশকতার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে আটটি মামলা। যাত্রাবাড়ীতে যাত্রী হত্যা মামলাসহ অপর মামলাগুলো ২০১৫ সালে দায়ের করা হয়। পরের বছরের বিভিন্ন সময় এসব মামলায় আদালতে তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়।এসব মামলার মধ্যে ১০ মামলার অভিযোগ গঠন শুনানি এবং যাত্রাবাড়ী থানার অপর একটি মামলায় অভিযোগপত্র গ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন