‘আন্দোলনের ডাক আসছে’
jugantor
‘আন্দোলনের ডাক আসছে’

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২০ জানুয়ারি ২০২২, ২১:৪২:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকার দেশের সব প্রতিষ্ঠানকে দলীয়করণ করে ধ্বংস করে দিয়েছে। বিরোধী দলকে দমন, জনগণের মৌলিক অধিকার হরণ করতে প্রশাসনকে যথেচ্ছভাবে ব্যবহার করছে। পুরো দেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করেছে ক্ষমতাসীন সরকার।

রাজধানীর গুলশানে নিজ কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু।

এর আগে নাটোরের সদ্য কারামুক্ত নেতাকর্মীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।

দুলু বলেন, এই সরকার পরিকল্পিতভাবে দেশকে, গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে। তাদের কারণেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি প্রতিষ্ঠানকে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার আওতায় নেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে শিক্ষা না নিয়ে এখনো র‌্যাব, পুলিশকে বিরোধী দল দমনে ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু এর পরিণতি ভালো হবে না।

দুলু অভিযোগ করে বলেন, পুলিশের মাধ্যমে সরকার দেশটাকে একেবারে মগের মুল্লুকে পরিণত করেছে। গত নভেম্বরে বড়াইগ্রামে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার দাবিতে সমাবেশ চলাকালে পুলিশ অতর্কিত হামলা ও গুলি চালিয়ে বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মীকে আহত করে। এ সময় আরও শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে। ১৭ জানুয়ারি তারা হাইকোর্ট থেকে জামিনে মুক্ত হওয়ার পর বড়াইগ্রামে কয়েকশ নেতাকর্মী তাদের অভিনন্দন জানাতে গেলে সেখানেও পুলিশ বর্বরোচিত হামলা চালায়। সেখান থেকেও পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করে। তিনজনের হদিস পাওয়া গেলেও নাহারুল ইসলাম নামের একজন নিখোঁজ রয়েছেন। নাহারুল ইউনিয়ন যুবদলের আহ্বায়ক।

মামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে দুলু বলেন, হামলা-মামলা করে বিএনপিকে দমানো যাবে না। প্রস্তুত হোন। আন্দোলনের ডাক আসছে। সেই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই ফ্যাসিবাদী সরকারের পতন ঘটানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে নাটোরের বড়াইগ্রাম থানা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক শামসুল আলম রনি, জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি খায়রুল ইসলাম আকাশ, বড়াইগ্রাম থানা ছাত্রদল আহ্বায়ক জাহিদ হাসান বিপুল, সদস্য সচিব আরিফুল ইসলাম কাননসহ বেশ কয়েক নেতা উপস্থিত ছিলেন।

‘আন্দোলনের ডাক আসছে’

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২০ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকার দেশের সব প্রতিষ্ঠানকে দলীয়করণ করে ধ্বংস করে দিয়েছে। বিরোধী দলকে দমন, জনগণের মৌলিক অধিকার হরণ করতে প্রশাসনকে যথেচ্ছভাবে ব্যবহার করছে। পুরো দেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করেছে ক্ষমতাসীন সরকার।

রাজধানীর গুলশানে নিজ কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু। 

এর আগে নাটোরের সদ্য কারামুক্ত নেতাকর্মীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। 

দুলু বলেন, এই সরকার পরিকল্পিতভাবে দেশকে, গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে। তাদের কারণেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি প্রতিষ্ঠানকে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার আওতায় নেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে শিক্ষা না নিয়ে এখনো র‌্যাব, পুলিশকে বিরোধী দল দমনে ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু এর পরিণতি ভালো হবে না।

দুলু অভিযোগ করে বলেন, পুলিশের মাধ্যমে সরকার দেশটাকে একেবারে মগের মুল্লুকে পরিণত করেছে। গত নভেম্বরে বড়াইগ্রামে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার দাবিতে সমাবেশ চলাকালে পুলিশ অতর্কিত হামলা ও গুলি চালিয়ে বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মীকে আহত করে। এ সময় আরও শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে। ১৭ জানুয়ারি তারা হাইকোর্ট থেকে জামিনে মুক্ত হওয়ার পর বড়াইগ্রামে কয়েকশ নেতাকর্মী তাদের অভিনন্দন জানাতে গেলে সেখানেও পুলিশ বর্বরোচিত হামলা চালায়। সেখান থেকেও পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করে। তিনজনের হদিস পাওয়া গেলেও নাহারুল ইসলাম নামের একজন নিখোঁজ রয়েছেন। নাহারুল ইউনিয়ন যুবদলের আহ্বায়ক। 

মামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে দুলু বলেন, হামলা-মামলা করে বিএনপিকে দমানো যাবে না। প্রস্তুত হোন। আন্দোলনের ডাক আসছে। সেই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই ফ্যাসিবাদী সরকারের পতন ঘটানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে নাটোরের বড়াইগ্রাম থানা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক শামসুল আলম রনি, জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি খায়রুল ইসলাম আকাশ, বড়াইগ্রাম থানা ছাত্রদল আহ্বায়ক জাহিদ হাসান বিপুল, সদস্য সচিব আরিফুল ইসলাম কাননসহ বেশ কয়েক নেতা উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন