এই সুন্দর পৃথিবীর সব সুন্দর সৃষ্টির কারিগর নারী: সালমা ইসলাম এমপি
jugantor
এই সুন্দর পৃথিবীর সব সুন্দর সৃষ্টির কারিগর নারী: সালমা ইসলাম এমপি

  যুগান্তর প্রতিবেদন, মানিকগঞ্জ  

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:০৫:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান, সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান এবং জাতীয় মহিলা পার্টির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি বলেছেন, এই সুন্দর পৃথিবীর সব সুন্দর সৃষ্টির কারিগর নারী। সেই নারীদের অবমূল্যায়নের কোনো সুযোগ নেই। নারীরা আজ সুশিক্ষিত হচ্ছে, রাষ্ট্রের বিভিন্ন কাজে দক্ষতার সঙ্গে নিজেদের নিবেদিত করছেন।

জাতীয় মহিলা পার্টির নেত্রীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে সালমা ইসলাম বলেন, মেয়েদের বাল্যবিয়ে দেবেন না, কখনো ছেলেদের সঙ্গে তুলনা করবেন না। তারা সমাজে অসম্মানিত হন এমন কাজ করবেন না। দেখবেন এরাই একদিন যোগ্য মা হয়ে রাষ্ট্রের স্বপ্ন পূরণ করবে।

তিনি আরও বলেন, জাতীয় মহিলা পার্টি নারীদের অধিকার আদায়ে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সমাজ-সংসারে পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও সমান ভূমিকা পালন করছে।

শনিবার দুপুরে মানিকগঞ্জ শহরের মদিনা কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত জাতীয় মহিলা পার্টির এক কর্মিসভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সালমা ইসলাম এসব কথা বলেন।

মানিকগঞ্জ জাতীয় মহিলা পার্টির মাহেরা সরকারের সভাপতিত্বে কর্মী সম্মেলনের প্রধান বক্তা ছিলেন জাতীয় মহিলা পার্টির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব হেনা পন্নী।

অ্যাডভোকেট নিলুফা আক্তারের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. হাসান সাঈদ, জাতীয় পার্টির জয়পুর হাট শাখার সাধারণ সম্পাদক তিতাস মোস্তফা, জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা বিল্লাল হোসেন খান, সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. রফিকুল ইসলাম, জাতীয় মহিলা পার্টির কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আসমা আক্তার, সীমানা আমীর, যুব সংহতির কেন্দ্রীয় সাবেক নেতা জিল্লুর রহমান, কুমিল্লা জেলা জাতীয় মহিলা পার্টির সভাপতি মিসেস ফেরদৌসী বকুল প্রমুখ।

ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে জাতীয় মহিলা পার্টির আহ্বায়ক সালমা ইসলাম সাধারণ মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে পল্লীবন্ধু এরশাদের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, তিনি (এরশাদ) ছিলেন অতুলনীয়। গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চল ঘুরে বেড়াতেন। যাদের থাকার ঘর ছিল না, তাদের গুচ্ছগ্রাম করে থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন।

এরশাদ সরকারের শাসনামলের বর্ণনা করে সালমা ইসলাম বলেন, তার সরকারের আমলে পেট ভরে মানুষ খেতে পারত, রাতে শান্তিতে ঘুমাতে পারত। দেশে কোনো রাহাজানি হতো না, দেশে শান্তির পরিবেশ বিরাজমান ছিল। এখন দেশের গ্রাম-বাংলার মানুষ সেই শান্তি পেতে চায়।

তিনি আরও বলেন, এরশাদ আমাদের মাঝে না থাকলেও তিনি রেখে গেছেন তার উত্তরসূরি ভাই জিএম কাদেরকে।

জিএম কাদেরকে একজন সজ্জন, নিরেট ভদ্রলোক এবং স্বচ্ছতার জীবন্ত প্রতীক হিসেবে অভিহিত করেন সালমা ইসলাম। তিনি বলেন, তার চিন্তা-চেতনা সব কিছুতেই মানুষের কল্যাণ নিহীত রয়েছে। তিনি নির্যাতিত-নিপীড়িত, শোষিত মানুষের পক্ষে সব সময় সোচ্চার। তার দৃঢ় নেতৃত্বে আমরা জাতীয় পার্টিকে আবারও ক্ষমতায় নিয়ে যাব।

এই সুন্দর পৃথিবীর সব সুন্দর সৃষ্টির কারিগর নারী: সালমা ইসলাম এমপি

 যুগান্তর প্রতিবেদন, মানিকগঞ্জ 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান, সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান এবং জাতীয় মহিলা পার্টির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি বলেছেন, এই সুন্দর পৃথিবীর সব সুন্দর সৃষ্টির কারিগর নারী। সেই নারীদের অবমূল্যায়নের কোনো সুযোগ নেই। নারীরা আজ সুশিক্ষিত হচ্ছে, রাষ্ট্রের বিভিন্ন কাজে দক্ষতার সঙ্গে নিজেদের নিবেদিত করছেন।

জাতীয় মহিলা পার্টির নেত্রীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে সালমা ইসলাম বলেন, মেয়েদের বাল্যবিয়ে দেবেন না, কখনো ছেলেদের সঙ্গে তুলনা করবেন না। তারা সমাজে অসম্মানিত হন এমন কাজ করবেন না। দেখবেন এরাই একদিন যোগ্য মা হয়ে রাষ্ট্রের স্বপ্ন পূরণ করবে।

তিনি আরও বলেন, জাতীয় মহিলা পার্টি নারীদের অধিকার আদায়ে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সমাজ-সংসারে পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও সমান ভূমিকা পালন করছে।  

শনিবার দুপুরে মানিকগঞ্জ শহরের মদিনা কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত জাতীয় মহিলা পার্টির এক কর্মিসভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সালমা ইসলাম এসব কথা বলেন।

মানিকগঞ্জ জাতীয় মহিলা পার্টির মাহেরা সরকারের সভাপতিত্বে কর্মী সম্মেলনের প্রধান বক্তা ছিলেন জাতীয় মহিলা পার্টির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব হেনা পন্নী। 

অ্যাডভোকেট নিলুফা আক্তারের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. হাসান সাঈদ, জাতীয় পার্টির জয়পুর হাট শাখার সাধারণ সম্পাদক তিতাস মোস্তফা, জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা বিল্লাল হোসেন খান, সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. রফিকুল ইসলাম, জাতীয় মহিলা পার্টির কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আসমা আক্তার, সীমানা আমীর, যুব সংহতির কেন্দ্রীয় সাবেক নেতা জিল্লুর রহমান, কুমিল্লা জেলা জাতীয় মহিলা পার্টির সভাপতি মিসেস ফেরদৌসী বকুল প্রমুখ।

ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে জাতীয় মহিলা পার্টির আহ্বায়ক সালমা ইসলাম সাধারণ মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে পল্লীবন্ধু এরশাদের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, তিনি (এরশাদ) ছিলেন অতুলনীয়। গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চল ঘুরে বেড়াতেন।  যাদের থাকার ঘর ছিল না, তাদের গুচ্ছগ্রাম করে থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন। 

এরশাদ সরকারের শাসনামলের বর্ণনা করে সালমা ইসলাম বলেন, তার সরকারের আমলে পেট ভরে মানুষ খেতে পারত, রাতে শান্তিতে ঘুমাতে পারত। দেশে কোনো রাহাজানি হতো না, দেশে শান্তির পরিবেশ বিরাজমান ছিল। এখন দেশের গ্রাম-বাংলার মানুষ সেই শান্তি পেতে চায়। 

তিনি আরও বলেন, এরশাদ আমাদের মাঝে না থাকলেও তিনি রেখে গেছেন তার উত্তরসূরি ভাই জিএম কাদেরকে। 

জিএম কাদেরকে একজন সজ্জন, নিরেট ভদ্রলোক এবং স্বচ্ছতার জীবন্ত প্রতীক হিসেবে অভিহিত করেন সালমা ইসলাম। তিনি বলেন, তার চিন্তা-চেতনা সব কিছুতেই মানুষের কল্যাণ নিহীত রয়েছে। তিনি নির্যাতিত-নিপীড়িত, শোষিত মানুষের পক্ষে সব সময় সোচ্চার।  তার দৃঢ় নেতৃত্বে আমরা জাতীয় পার্টিকে আবারও ক্ষমতায় নিয়ে যাব। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন