চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন শিল্পপতি করিম উদ্দিন ভরসা
jugantor
চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন শিল্পপতি করিম উদ্দিন ভরসা

  রংপুর ব্যুরো  

২৫ জুলাই ২০২২, ০০:৫৮:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন জাতীয় পার্টির সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর জেলার সাবেক সভাপতি এবং রংপুর-৪ (কাউনিয়া-পীরগাছা) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিশিষ্ট শিল্পপতি করিম উদ্দিন ভরসা।

রোববার বিকালে রংপুরের হারাগাছ পৌর শহরের ঐতিহাসিক হারাগাছ কেন্দ্রীয় ঈদগাঁও মাঠে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর হারাগাছ সারাই ডারারপাড় জামে মসজিদ সংলগ্ন পারিবারিক কবরস্থানে বড়ভাই সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির সাবেক জেলা সভাপতি প্রয়াত রহিম উদ্দিন ভরসার পাশে তাকে শায়িত করা হয়। এর আগে শনিবার রাতে ঢাকার গুলশান আজাদ মসজিদে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

দুপুর ১২টার দিকে হারাগাছ পৌরসভা, গঙ্গাচড়া, কাউনিয়া ও পীরগাছা উপজেলাসহ বিভিন্ন এলাকার সর্বস্তরের মানুষ তার মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। রংপুর মহানগর ও জেলা জাতীয় পার্টির সদস্যরা তার মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

পরিবার সূত্র জানায়, রংপুরের হারাগাছের বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সাবেক এমপি করিম উদ্দিন ভরসার দুই স্ত্রীর ঘরে ১০ ছেলে ও ৬ মেয়েসহ ১৬ সন্তান আছে।করিম উদ্দিন ভরসা জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ছিলেন।

১৯৯১ সালের নির্বাচনে রংপুর-১ (গঙ্গাচড়া) আসন, ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রংপুর-৪ (কাউনিয়া-পীরগাছা) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে বিড়ি সিগারেট, ম্যাচ ফ্যাক্টরি, কাগজ মিল, কোল্ড স্টোরেজ, হাউজিং, ইমপেক্স, আরকে ফ্যানসহ বিভিন্ন শিল্প কলকারখানা গড়েছিলেন তিনি। সেখানে একসময় প্রায় ৩০ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করতেন। সংসদে দাঁড়িয়ে রংপুরের আঞ্চলিক ভাষায় ‘হামার সরু সড়ক চ্যাপ্টা করি দাও বাহে স্পিকার’ বক্তব্য দিয়ে দেশে-বিদেশে আলোচিত ছিলেন তিনি। তিনি বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত শনিবার দুপুরে ঢাকায় রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন তিনি।

চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন শিল্পপতি করিম উদ্দিন ভরসা

 রংপুর ব্যুরো 
২৫ জুলাই ২০২২, ১২:৫৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন জাতীয় পার্টির সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর জেলার সাবেক সভাপতি এবং রংপুর-৪ (কাউনিয়া-পীরগাছা) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিশিষ্ট শিল্পপতি করিম উদ্দিন ভরসা।  

রোববার বিকালে রংপুরের হারাগাছ পৌর শহরের ঐতিহাসিক হারাগাছ কেন্দ্রীয় ঈদগাঁও মাঠে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর হারাগাছ সারাই ডারারপাড় জামে মসজিদ সংলগ্ন পারিবারিক কবরস্থানে বড়ভাই সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির সাবেক জেলা সভাপতি প্রয়াত রহিম উদ্দিন ভরসার পাশে তাকে শায়িত করা হয়। এর আগে শনিবার রাতে ঢাকার গুলশান আজাদ মসজিদে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

দুপুর ১২টার দিকে হারাগাছ পৌরসভা, গঙ্গাচড়া, কাউনিয়া ও পীরগাছা উপজেলাসহ বিভিন্ন এলাকার সর্বস্তরের মানুষ তার মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। রংপুর মহানগর ও জেলা জাতীয় পার্টির সদস্যরা তার মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

পরিবার সূত্র জানায়, রংপুরের হারাগাছের বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সাবেক এমপি করিম উদ্দিন ভরসার দুই স্ত্রীর ঘরে ১০ ছেলে ও ৬ মেয়েসহ ১৬ সন্তান আছে।করিম উদ্দিন ভরসা জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ছিলেন। 

১৯৯১ সালের নির্বাচনে রংপুর-১ (গঙ্গাচড়া) আসন, ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রংপুর-৪ (কাউনিয়া-পীরগাছা) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে বিড়ি সিগারেট, ম্যাচ ফ্যাক্টরি, কাগজ মিল, কোল্ড স্টোরেজ, হাউজিং, ইমপেক্স, আরকে ফ্যানসহ বিভিন্ন শিল্প কলকারখানা গড়েছিলেন তিনি। সেখানে একসময় প্রায় ৩০ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করতেন। সংসদে দাঁড়িয়ে রংপুরের আঞ্চলিক ভাষায় ‘হামার সরু সড়ক চ্যাপ্টা করি দাও বাহে স্পিকার’ বক্তব্য দিয়ে দেশে-বিদেশে আলোচিত ছিলেন তিনি। তিনি বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত শনিবার দুপুরে ঢাকায় রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন