মনে হয় দেশে কোনো সরকার নেই: চুন্নু
jugantor
মনে হয় দেশে কোনো সরকার নেই: চুন্নু

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৭ আগস্ট ২০২২, ২২:২৩:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু এমপি বলেছেন, উত্তরায় গার্ডার পরে ৫ জনের এবং চকবাজারের আগুনে ৬ জনের মৃত্যুকে দুর্ঘটনা বলব নাকি অন্য কিছু বলব। আমার মনে হয় দেশে কোনো সরকার নেই।

রাজধানীর কাকরাইলে বুধবার জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের এমপি সড়ক দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়ায় শুকরানা মিলাদ মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন। চুন্নু বলেন, দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার কারণে কোনো কিছুর তদারকি না হওয়ায় এসব হচ্ছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগই তাদের নেতাকর্মীদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না। তারই বহিঃপ্রকাশ বরগুনায় পুলিশের পিটুনি। তিনি বলেন, পুলিশ প্রশাসন আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের অন্যায় অত্যাচারের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ হিসেবে লাঠিচার্জ করতে বাধ্য হয়েছে।

মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপার সভাপতিত্বে আলোচনায় আরও অংশ নেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট জহিরুল হক, ভাইস-চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান খান, এইচএম শাহারিয়ার আসিফ, যুগ্মসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, বেলাল হোসেন, একেএম আশরাফুজ্জামান খান, কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার নুরুল আনোয়ার বেলাল। উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য নাজমা আকতার এমপি, জহিরুল ইসলাম জহির, উপদেষ্টা ড. নুরুল আজহার শামীম, জহিরুল আলম রুবেল, ভাইস-চেয়ারম্যান শেখ আলমগীর হোসেন, আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু, জসিম উদ্দিন ভ‚ঁইয়া, যুগ্মসচিব ফখরুল আহসান শাহজাদা, সৈয়দ মঞ্জুর হোসেন মঞ্জু প্রমুখ।

মনে হয় দেশে কোনো সরকার নেই: চুন্নু

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৭ আগস্ট ২০২২, ১০:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু এমপি বলেছেন, উত্তরায় গার্ডার পরে ৫ জনের এবং চকবাজারের আগুনে ৬ জনের মৃত্যুকে দুর্ঘটনা বলব নাকি অন্য কিছু বলব। আমার মনে হয় দেশে কোনো সরকার নেই।

রাজধানীর কাকরাইলে বুধবার জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের এমপি সড়ক দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়ায় শুকরানা মিলাদ মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন। চুন্নু বলেন, দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার কারণে কোনো কিছুর তদারকি না হওয়ায় এসব হচ্ছে। 

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগই তাদের নেতাকর্মীদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না। তারই বহিঃপ্রকাশ বরগুনায় পুলিশের পিটুনি। তিনি বলেন, পুলিশ প্রশাসন আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের অন্যায় অত্যাচারের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ হিসেবে লাঠিচার্জ করতে বাধ্য হয়েছে। 

মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপার সভাপতিত্বে আলোচনায় আরও অংশ নেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট জহিরুল হক, ভাইস-চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান খান, এইচএম শাহারিয়ার আসিফ, যুগ্মসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, বেলাল হোসেন, একেএম আশরাফুজ্জামান খান, কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার নুরুল আনোয়ার বেলাল। উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য নাজমা আকতার এমপি, জহিরুল ইসলাম জহির, উপদেষ্টা ড. নুরুল আজহার শামীম, জহিরুল আলম রুবেল, ভাইস-চেয়ারম্যান শেখ আলমগীর হোসেন, আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু, জসিম উদ্দিন ভ‚ঁইয়া, যুগ্মসচিব ফখরুল আহসান শাহজাদা, সৈয়দ মঞ্জুর হোসেন মঞ্জু প্রমুখ। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন