করোনা মোকাবেলায় মান্নার ৮ প্রস্তাব

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৪ এপ্রিল ২০২০, ১৯:৩৩:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

ত্রাণ চুরি এবং স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতির অভিযোগগুলোকে মানবতাবিরোধী হিসেবে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। এছাড়া এর সঙ্গে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে জড়িত সব ব্যক্তিকে আইনের আওতায় নিয়ে আনারও দাবি জানিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার বিকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানিয়ে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ৮ দফা প্রস্তাব তুলে ধরেন।

মান্না বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে ডাক্তার, নার্স তথা সব স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য মাসে ২৫ হাজার থেকে ১ লাখ টাকার প্রণোদনা ও দিন আনা দিন খাওয়া দুই কোটি পরিবারের ৩ মাসের খাবার নিশ্চিত করতে হবে। করোনা পরবর্তী সময়ে দেশের অর্থনৈতিক সঙ্কট এবং সামগ্রিক পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য এখনই দেশের অর্থনীতিবীদ, ব্যবসায়ী, বিভিন্ন পেশাজীবী, এনজিও প্রতিনিধির সমন্বয়ে ৩-৫ বছর মেয়াদী একটি স্থায়ী 'জাতীয় পুনর্গঠন কমিটি' গঠন করতে হবে। যা যে কোনো রাজনৈতিক পটপরিবর্তনের পরও বহাল থাকবে।

তিনি বলেন, মধ্যবিত্ত ও নিম্ন-মধ্যবিত্ত ২ কোটি মানুষের জন্য ৫০ শতাংশ ভর্তুকি দিয়ে রেশনিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। ডাক্তার, নার্স তথা সব স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য পর্যাপ্ত এবং বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মানদণ্ড অনুযায়ী সুরক্ষা উপকরণের ব্যবস্থা করতে হবে। করোনায় আক্রান্ত বা মৃত্যবরণকারী সরকারি-বেসরকারি সব চিকিৎসকের সরকারি বীমা নিশ্চিত করতে হবে। প্রত্যেক উপজেলায় সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে সরকারি হাসপাতাল, স্থানীয় প্রশাসন এবং এনজিওর মাধ্যমে কোভিড-১৯ টেস্টিং বুথ স্থাপন করতে হবে। অবিলম্বে প্রতিদিন কমপক্ষে ১০ হাজার টেস্টের ব্যবস্থা করতে হবে। করোনা চিকিৎসার সব সুবিধাসহ ১০ হাজার আইসিইউ বেডের ব্যবস্থা করতে হবে এবং ক্রমান্বয়ে তা বাড়ানোর জন্য কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে।

মান্না বলেন, দরিদ্র কৃষকদের সমস্ত ঋণ মাফ করে দিতে হবে। আর যারা মাঝারি চাষী তাদের ঋণের সুদ ৬ মাসের জন্য মওকুফ করে দিতে হবে। চলতি বোরো মৌসুমের খাদ্য শস্য কর্তনের জন্য বিনা খরচে সরকারি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এবং উৎপাদিত চালের কমপক্ষে ২৫ শতাংশ সরকারকে ন্যায্যমূল্যে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে কিনে নিতে হবে। পোল্ট্রি, দুগ্ধ ও পশুর খামারি, মৎস্য খামারিসহ সব কৃষি ঋণের সুদ ৬ মাসের জন্য মওকুফ করতে হবে এবং ১ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ মওকুফ করতে হবে।

দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা এবং ত্রাণ কার্যক্রম দুটোর জন্য বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং সামাজিক সংগঠনকে যুক্ত করে আলাদা আলাদা মনিটরিং সেল গঠনের দাবি জানান মান্না।

তিনি বলেন, ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত বাড়ি ভাড়া স্থানীয় প্রশাসন এবং তথাকথিত জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে বাড়িওয়ালাদের প্রদান করতে হবে। ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত মাসিক আয়ের মানুষদের বাড়ি ভাড়ার অর্ধেক সরকারকে বহন করতে হবে। মধ্যবিত্তদের মধ্যে যারা অর্থকষ্টে ভুগবেন তাদের জন্য স্বল্প সুদে দীর্ঘমেয়াদী ঋণ দেবার ব্যবস্থা করতে হবে। সব ধরনের গৃহস্থালী ইউটিলিটি বিল (যেমন- গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি) আগামী ৩ মাসের জন্য মওকুফ করে দিতে হবে।

মান্না বলেন, প্রণোদনার নামে যে ঋণ প্রদানের ঘোষণা দেয়া হয়েছে- তা যেন সঠিকভাবে বিতরণ করা হয় তা নিশ্চিত করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক এবং বর্তমান গভর্নর ও শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট খাতের ব্যক্তিবর্গ, এনজিও প্রতিনিধি, অর্থনীতিবিদ, গবেষণা সংস্থার প্রতিনিধিসহ একটি মনিটরিং সেল গঠন করতে হবে। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, সরবরাহকারী (ট্রেডিং ব্যবসা) এবং বিভিন্ন ধরণের সেবা প্রদানকারী ব্যবসায়ীদের সহজ শর্তে, কম সুদে দীর্ঘমেয়াদী ঋণ সুবিধা প্রদান করতে হবে। যেসব প্রবাসী করোনার কারণে চাকরি হারাবেন বা ইতিমধ্যে হারিয়েছেন তাদের জন্য সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করে কর্মসংস্থান সৃষ্টির ব্যবস্থা করতে হবে। এক্ষেত্রে বিশেষায়িত হিসেবে প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক এবং কর্মসংস্থান ব্যাংককে সুস্পষ্ট নির্দেশনাসহ দায়িত্ব দিতে হবে। যারা বিভিন্ন দেশে কর্মহীন অবস্থায় আটকে গেছেন তাদের সংশ্লিষ্ট দূতাবাসের মাধ্যমে সর্বোচ্চ সহযোগিতা নিশ্চিত করতে হবে।

যেসব ব্যক্তি, গোষ্ঠী, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক সংগঠন অসহায়, দুস্থ মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের ধন্যবাদ জানান মাহমুদুর রহমান মান্না। একই সঙ্গে এই মহাদুর্যোগের মধ্যে করোনায় মৃতদের দাফনের জন্য আল মারকাজুল ইসলামসহ অন্যান্য আলেম এবং ইমামগণের এগিয়ে আসায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত