‘আ.লীগের অধীনে আর কোনো নির্বাচন নয়’
jugantor
‘আ.লীগের অধীনে আর কোনো নির্বাচন নয়’

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৭ এপ্রিল ২০২২, ২২:৫৫:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘদিন পর বুধবার নাগরিক ঐক্য আয়োজিত ইফতার মাহফিলে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতারা এক টেবিলে বসলেন। রাজধানীর শান্তিনগরে হোয়াইট হাউজ রেস্টুরেন্টে ‘এই সরকারের অধীনে নির্বাচনকে না বলুন’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও রাজনৈতিক দল এবং সংগঠনের নেতাদের সম্মানে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে নাগরিক ঐক্য।

আলোচনায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এই সরকার অবৈধ। তাদের অধীনে নির্বাচন শুধু না, এখন বলতে হবে- এই সরকার আর নয়। আসুন- সরকারকে বিদায়, গণতন্ত্র ও জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠায় এক কাতারে হই। ভবিষ্যতে আলোচনার মাধ্যমে আমরা কর্মসূচি ঘোষণা করব।

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে ও সাকিব আনোয়ারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) আ স ম আবদুর রব, শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, গণফোরামের মোস্তফা মোহসীন মন্টু, বিকল্প ধারার অধ্যাপক ড. নূরুল আমিন ব্যাপারী, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির ড. রেদোয়ান আহমেদ, অপর অংশের শাহাদাত হোসেন সেলিম, গণঅধিকার পরিষদের ড. রেজা কিবরিয়া, নূরুল হক নূর প্রমুখ।

ইফতারে আরও অংশ নেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আওয়াল মিন্টু, শওকত মাহমুদ, সিনিয়র সাংবাদিক মোস্তফা কামাল মজুমদার, মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, গণফোরামের অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, বিএনপির জহির উদ্দিন স্বপন, শামা ওবায়েদ, রিয়াজ উদ্দিন নসুসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা।

আ স ম রব বলেন, এই সরকারের অধীনে কোনোভাবেই নির্বাচন করা যাব না। এই সরকার অবৈধ। ক্ষমতা ছেড়ে চলে যেতে হবে। গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ফ্যাসিজমের হাত থেকে রেহাই পেতে জাতীয় ঐক্য দরকার। আমরা বিশ্বাস করি সবাইকে একসঙ্গে পাব।

অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী বলেন, দেশ সত্যিই ভীষণ বিপদের মুখে। সবাই ঐক্যবদ্ধ না হলে আরও ভয়াবহ হবে। এজন্য সংঘবদ্ধভাবে এগিয়ে যেতে হবে। অধ্যাপক নূরুল আমিন ব্যাপারী বলেন, দেশে যখন নির্বাহী বিভাগ ও আইন বিভাগ ঠিকমতো কাজ করে না তখন দেশ অকার্যকর হয়ে পড়ে। বিএনপিকে বাদ দিয়ে আন্দোলন করলে হবে না।

ড. রেদোয়ান আহমেদ বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন দেশের কেউ চায় না।

‘আ.লীগের অধীনে আর কোনো নির্বাচন নয়’

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৭ এপ্রিল ২০২২, ১০:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘদিন পর বুধবার নাগরিক ঐক্য আয়োজিত ইফতার মাহফিলে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতারা এক টেবিলে বসলেন। রাজধানীর শান্তিনগরে হোয়াইট হাউজ রেস্টুরেন্টে ‘এই সরকারের অধীনে নির্বাচনকে না বলুন’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও রাজনৈতিক দল এবং সংগঠনের নেতাদের সম্মানে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে নাগরিক ঐক্য।

আলোচনায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এই সরকার অবৈধ। তাদের অধীনে নির্বাচন শুধু না, এখন বলতে হবে- এই সরকার আর নয়। আসুন- সরকারকে বিদায়, গণতন্ত্র ও জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠায় এক কাতারে হই। ভবিষ্যতে আলোচনার মাধ্যমে আমরা কর্মসূচি ঘোষণা করব।

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে ও সাকিব আনোয়ারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) আ স ম আবদুর রব, শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, গণফোরামের মোস্তফা মোহসীন মন্টু, বিকল্প ধারার অধ্যাপক ড. নূরুল আমিন ব্যাপারী, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির ড. রেদোয়ান আহমেদ, অপর অংশের শাহাদাত হোসেন সেলিম, গণঅধিকার পরিষদের ড. রেজা কিবরিয়া, নূরুল হক নূর প্রমুখ। 

ইফতারে আরও  অংশ নেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আওয়াল মিন্টু, শওকত মাহমুদ, সিনিয়র সাংবাদিক মোস্তফা কামাল মজুমদার, মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, গণফোরামের অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, বিএনপির জহির উদ্দিন স্বপন, শামা ওবায়েদ, রিয়াজ উদ্দিন নসুসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা।

আ স ম রব বলেন, এই সরকারের অধীনে কোনোভাবেই নির্বাচন করা যাব না। এই সরকার অবৈধ। ক্ষমতা ছেড়ে চলে যেতে হবে। গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ফ্যাসিজমের হাত থেকে রেহাই পেতে জাতীয় ঐক্য দরকার। আমরা বিশ্বাস করি সবাইকে একসঙ্গে পাব।   

অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী বলেন, দেশ সত্যিই ভীষণ বিপদের মুখে। সবাই ঐক্যবদ্ধ না হলে আরও ভয়াবহ হবে। এজন্য সংঘবদ্ধভাবে এগিয়ে যেতে হবে। অধ্যাপক নূরুল আমিন ব্যাপারী বলেন, দেশে যখন নির্বাহী বিভাগ ও আইন বিভাগ ঠিকমতো কাজ করে না তখন দেশ অকার্যকর হয়ে পড়ে। বিএনপিকে বাদ দিয়ে আন্দোলন করলে হবে না। 

ড. রেদোয়ান আহমেদ বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন দেশের কেউ চায় না। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর