গণআন্দোলন অনিবার্য হয়ে পড়েছে: রব
jugantor
গণআন্দোলন অনিবার্য হয়ে পড়েছে: রব

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৯:২৮:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, ‘জনগণের জীবনের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা বিধানের জন্যই রাষ্ট্র- মানুষ হত্যার জন্য নয়।’

শুক্রবার জেএসডির কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির এক সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

জেএসডি সভাপতি বলেন, ‘কোনো উস্কানি ছাড়াই বিরোধী দলের সমাবেশে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে দেশের নাগরিককে হত্যা করা হচ্ছে। বিরোধী দলের নেতাকর্মী হত্যা করতে পারলে সরকার স্বস্তি পায়, জয়লাভের আত্মতৃপ্তি পায় এবং সরকারি দল হত্যার পক্ষে অবস্থান নেয়।’

রব বলেন, ‘যারা পুলিশ এবং সরকারের লাঠিয়াল বাহিনী দ্বারা নির্যাতনের শিকার বা হত্যার শিকার তারাই আবার মামলার আসামি হচ্ছে। এটাকে এখন আর রাষ্ট্র বলা যায় না। রাষ্ট্রের ভয়ংকর এই অব্যবস্থাপনাকে চিরতরে উচ্ছেদ এবং জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে গণআন্দোলন, গণজাগরণ এবং গণঅভ্যুত্থান সংঘঠন অনিবার্য হয়ে পড়েছে।’

ফেনী জেলা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য দেন- দলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার, সা কা ম আনিসুর রহমান খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ সিরাজ মিয়া, মিসেস তানিয়া রব, শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, হীরালাল চক্রবর্তী, ওয়ালি আহমেদ পাটোয়ারী, এমএ আউয়াল, সোহরাব হোসেন, অ্যাডভোকেট কেএম জাবির, অ্যাডভোকেট মো. গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. জবিউল হোসেন, কামাল উদ্দিন পাটোয়ারী, অ্যাডভোকেট সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলাল, লোকমান হাকিম, মতিউর রহমান মতি, আমিন উদ্দিন বিএসসি, মোশাররফ হোসেন, আনোয়ারুল কবির মানিক, অধ্যক্ষ হারুনুর রশিদ বাবুল, অ্যাডভোকেট মিয়া হোসেন, শফিকুর রহমান বাবর, নুরুল ইসলাম মাল প্রমুখ।

গণআন্দোলন অনিবার্য হয়ে পড়েছে: রব

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, ‘জনগণের জীবনের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা বিধানের জন্যই রাষ্ট্র- মানুষ হত্যার জন্য নয়।’

শুক্রবার জেএসডির কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির এক সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

জেএসডি সভাপতি বলেন, ‘কোনো উস্কানি ছাড়াই বিরোধী দলের সমাবেশে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে দেশের নাগরিককে হত্যা করা হচ্ছে। বিরোধী দলের নেতাকর্মী হত্যা করতে পারলে সরকার স্বস্তি পায়, জয়লাভের আত্মতৃপ্তি পায় এবং সরকারি দল হত্যার পক্ষে অবস্থান নেয়।’

রব বলেন, ‘যারা পুলিশ এবং সরকারের লাঠিয়াল বাহিনী দ্বারা নির্যাতনের শিকার বা হত্যার শিকার তারাই আবার মামলার আসামি হচ্ছে। এটাকে এখন আর রাষ্ট্র বলা যায় না। রাষ্ট্রের ভয়ংকর এই অব্যবস্থাপনাকে চিরতরে উচ্ছেদ এবং জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে গণআন্দোলন, গণজাগরণ এবং গণঅভ্যুত্থান সংঘঠন অনিবার্য হয়ে পড়েছে।’

ফেনী জেলা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য দেন- দলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার, সা কা ম আনিসুর রহমান খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ সিরাজ মিয়া, মিসেস তানিয়া রব, শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, হীরালাল চক্রবর্তী, ওয়ালি আহমেদ পাটোয়ারী, এমএ আউয়াল, সোহরাব হোসেন, অ্যাডভোকেট কেএম জাবির, অ্যাডভোকেট মো. গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. জবিউল হোসেন, কামাল উদ্দিন পাটোয়ারী, অ্যাডভোকেট সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলাল, লোকমান হাকিম, মতিউর রহমান মতি, আমিন উদ্দিন বিএসসি, মোশাররফ হোসেন, আনোয়ারুল কবির মানিক, অধ্যক্ষ হারুনুর রশিদ বাবুল, অ্যাডভোকেট মিয়া হোসেন, শফিকুর রহমান বাবর, নুরুল ইসলাম মাল প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন