মাশরাফি-মাহি-মমতাজ পারলে আমি কেন পারব না: হিরো আলম
jugantor
মাশরাফি-মাহি-মমতাজ পারলে আমি কেন পারব না: হিরো আলম

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৭ জানুয়ারি ২০২৩, ২২:৩৭:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

হাইকোর্টে আপিল করে বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনে প্রার্থিতা ফেরত পেয়েছেন আলোচিত অভিনেতা আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম।মঙ্গলবার হিরো আলমকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার সুযোগ দিতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

এ আদেশের পর হিরো আলম সাংবাদিকদের বলেন, নায়িকা মাহিয়া মাহি, ক্রিকেটার মাশরাফি এবং গায়িকা মমতাজ যদি প্রার্থী হতে পারেন, তাহলে আমি হতে পারবনা কেন?

তিনি বলেন, 'আগেও বলেছি, এখনো বলছি, আইনের প্রতি আমার শ্রদ্ধা ছিল—নির্বাচন কমিশন (প্রার্থিতা) বাতিল করলেও হাইকোর্ট থেকে আমি বিফলে যাব না। যেহেতু ২০১৮-তে এ ঘটনা ঘটেছিল আমার সঙ্গে, ২০১৮-তে হাইকোর্টে রিট করার পর এখান থেকে পেয়েছিলাম, এবারও পেয়েছি,' বলেন তিনি।

হিরো আলম আরও বলেন, 'আশা রাখছি, আমরা ভোটের মাঠেও থাকব। গতবার আপনারা দেখেছেন, নির্বাচনের মাঠে আমার সঙ্গে সে রকম মারামারি হয়েছিল। পরে আমি ভোট বর্জন করি। এবার সে ধরনের ঘটনা যেন না ঘটে।

ভোটকেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা চান হিরো আলম। তিনি বলেন, আমি নির্বাচন কমিশনকে বলব— প্রতিটি কেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা চাই, কড়া নিরাপত্তা চাই আর প্রতিটি ভোটার যেন ভোট দিতে আসতে পারে।'

আগামী ১ ফেব্রুয়ারি বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ করবে নির্বাচন কমিশন।

মাশরাফি-মাহি-মমতাজ পারলে আমি কেন পারব না: হিরো আলম

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১০:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হাইকোর্টে আপিল করে বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনে প্রার্থিতা ফেরত পেয়েছেন আলোচিত অভিনেতা আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম।মঙ্গলবার হিরো আলমকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার সুযোগ দিতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

এ আদেশের পর হিরো আলম সাংবাদিকদের বলেন, নায়িকা মাহিয়া মাহি, ক্রিকেটার মাশরাফি এবং গায়িকা মমতাজ যদি প্রার্থী হতে পারেন, তাহলে আমি হতে পারব না কেন?

তিনি বলেন, 'আগেও বলেছি, এখনো বলছি, আইনের প্রতি আমার শ্রদ্ধা ছিল—নির্বাচন কমিশন (প্রার্থিতা) বাতিল করলেও হাইকোর্ট থেকে আমি বিফলে যাব না। যেহেতু ২০১৮-তে এ ঘটনা ঘটেছিল আমার সঙ্গে, ২০১৮-তে হাইকোর্টে রিট করার পর এখান থেকে পেয়েছিলাম, এবারও পেয়েছি,' বলেন তিনি।

হিরো আলম আরও বলেন, 'আশা রাখছি, আমরা ভোটের মাঠেও থাকব। গতবার আপনারা দেখেছেন, নির্বাচনের মাঠে আমার সঙ্গে সে রকম মারামারি হয়েছিল। পরে আমি ভোট বর্জন করি। এবার সে ধরনের ঘটনা যেন না ঘটে। 

ভোটকেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা চান হিরো আলম। তিনি বলেন, আমি নির্বাচন কমিশনকে বলব— প্রতিটি কেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা চাই, কড়া নিরাপত্তা চাই আর প্রতিটি ভোটার যেন ভোট দিতে আসতে পারে।'

আগামী ১ ফেব্রুয়ারি বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ করবে নির্বাচন কমিশন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন