অর্থনীতিতে বাঙালির নোবেল পাওয়া নিয়ে তসলিমার যে প্রশ্ন

  যুগান্তর ডেস্ক ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০২:২০ | অনলাইন সংস্করণ

অর্থনীতিতে বাঙালির নোবেল পাওয়া নিয়ে তসলিমার যে প্রশ্ন

ভারতীয় বংশোদ্ভূত বাঙালি অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়, তার স্ত্রী ফরাসি-মার্কিন নাগরিক এস্তার ডুফলো ও মার্কিন নাগরিক মাইকেল ক্রেমার অর্থনীতিতে এ বছরের নোবেল পুরস্কার লাভ করেছেন।

রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি অব সায়েন্সেস সোমবার নোবেলজয়ী হিসেবে তাদের নাম ঘোষণা করে। অর্থনীতিতে নোবেলজয়ী দ্বিতীয় বাঙালি অভিজিৎ।

১৯৯৮ সালে তারই শিক্ষক অমর্ত্য সেন অর্থনীতিতে নোবেল পেয়েছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত অর্থনীতিতে নোবেলজয়ী বাঙালি অভিজিৎ।

স্ত্রীসহ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নোবেল জয় দেশ হিসেবে গর্বিত ভারত। তবে জাতি হিসেবে তার চেয়েও বেশি গর্বিত দুই বাংলার মানুষ।

তবে বাঙালি জাতির এই গর্বকে একটু ভিন্নভাবে দেখছেন ভারতে নির্বাসিত বাংলাদেশি লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তিনি তাদের নোবেল পাওয়ার সঙ্গে দুই বাংলার মানুষের দারিদ্রের প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন। তিনি প্রশ্ন ছুড়েছেন, তারা তো অর্থনীতিতে নোবেল পেয়ে গেলেন, কিন্তু তারা নোবেল পেলেও কি কখনও অর্থের অভাবে যে দিনের পর দিন বাঙালির চুলায় আগুন জ্বলে না তাদের দিন ফিরেছে?

তিনি প্রশ্ন ছুড়েছেন, নোবেল পেলেই কি বাঙালি মহান হয়ে যায়?

এসব প্রশ্ন ছুড়ে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে তসলিমা নাসরিন এ বিষয়ে নিজের অভিমত ব্যক্ত করেছেন।

তার সেই স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো, ‘অভিজিৎ বন্দোপাধ্যায়, অমর্ত্য সেন। দুজন বাঙালি অর্থনীতিতে নোবেল পেয়েছেন। আবেগে ভেসে যাচ্ছে সেইসব বাঙালিও, যাদের বাংলা এবং বাঙালির জন্য কোনও ভালোবাসা নেই। কেবল নোবেল পেলেই বাঙালি মহান? দুদিন নিজেকে এরা বাঙালি বলে পরিচয় দেবে, তারপর যে কে সেই।

দুই অর্থনীতিবিদই গরিবের কথা ভেবেছেন। আজও কিন্তু দারিদ্র ঘোচেনি বাংগালির। অল্প কজনের হাতে ধন দৌলত। বাকিদের খালি হাত। রাজনীতিকরাই এদের অর্থনীতির নির্ধারক। দুই বাংলার দরিদ্রই ভুগছে। ভুগতে থাকবে শত শত অর্থনীতিবিদ বাংলা জুড়ে বিরাজ করলেও, একের পর এক নোবেল পেলেও। ভুগতেই থাকবে যতদিন না রাজনীতিকরা ধনী আর প্রতাপশালী লোকদের পক্ষে রাজনীতি না করে দরিদ্র আর সহায় সম্বলহীনদের পক্ষে রাজনীতি করবেন।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×