চিলাহাটি থেকে কৃষিপণ্যবাহী পার্সেল ট্রেনের যাত্রা শুরু
jugantor
চিলাহাটি থেকে কৃষিপণ্যবাহী পার্সেল ট্রেনের যাত্রা শুরু

  ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি  

১৫ মে ২০২০, ১৭:০৩:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ


বিভিন্ন কৃষিপণ্য পরিবহনের জন্য ডোমার থেকে যাত্রা শুরু করেছে স্পেশাল পার্সেল ট্রেন।

শুক্রবার সকাল ৯টায় জেলার চিলাহাটি রেলস্টেশন থেকে খুলনা পর্যন্ত বিশেষ পার্সেল ট্রেন যাত্রা শুরু করে।
এ সব পণ্য নীলফামারী জেলার চারটি রেলস্টেশন থেকে খুলনা, দৌলতপুর,যশোর, ঈশ্বরদী, দর্শনা হল্ট ও চুয়াডাঙ্গা যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে চিলাহাটি- খুলনা-চিলাহাটি রেলপথে বিশেষ পার্সেল সার্ভিস কৃষকের উৎপাদিত কাঁচামাল পরিবহনে যুগান্তকারী পদক্ষেপে গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীসহ রেলকর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কৃষকরা।

নীলফামারী চেম্বারের সভাপতি মারুফ জামান সাংবাদিকদের বলেন, এটি আরো অনেক আগে চালু করলে ভাল হত। বিশেষ পার্সেল ট্রেনটি প্রতিদিন উভয় দিক থেকে চালু রাখলে ব্যবসায়ীরা বেশি উপকৃত হত।

পশ্চিমাঞ্চল রেলের সহকারী চীফ অপারেটিং সুপারিন্টেন্ডেন্ট (পি) আব্দুল আওয়াল জানান, পার্সেল ট্রেনটি বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় খুলনা স্টেশন থেকে চিলাহাটি গিয়ে পৌঁছে রাত ৮টা ৪০ মিনিটে। শুক্রবার সকাল ৯টায় চিলাহাটি থেকে কৃষি পণ্যসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে খুলনা অভিমুখে ছেড়ে এসেছে। এটি খুলনায় রাত সাড়ে আটটায় এসে পৌঁছাবে।

তিনি আরও জানান, যে সকল স্টেশনে ট্রেনটি দাঁড়ানোর কথা নয় এমন সব স্টেশনে যদি পরিবহনের জন্য কৃষিপণ্য থাকে তাহলে ওই স্টেশন মাস্টার আগাম জানিয়ে রাখলে ট্রেনটি সেখানে থেমে কৃষিপণ্য তুলে নেবে। ট্রেনটিতে কোনো যাত্রী পরিবহন করা হবে না।

চিলাহাটি থেকে কৃষিপণ্যবাহী পার্সেল ট্রেনের যাত্রা শুরু

 ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি 
১৫ মে ২০২০, ০৫:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ


বিভিন্ন কৃষিপণ্য পরিবহনের জন্য ডোমার থেকে যাত্রা শুরু করেছে স্পেশাল পার্সেল ট্রেন।

শুক্রবার সকাল ৯টায় জেলার চিলাহাটি রেলস্টেশন থেকে খুলনা পর্যন্ত বিশেষ পার্সেল ট্রেন যাত্রা শুরু করে।
এ সব পণ্য নীলফামারী জেলার চারটি রেলস্টেশন থেকে খুলনা, দৌলতপুর,যশোর, ঈশ্বরদী, দর্শনা হল্ট ও চুয়াডাঙ্গা যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে চিলাহাটি- খুলনা-চিলাহাটি রেলপথে বিশেষ পার্সেল সার্ভিস কৃষকের উৎপাদিত কাঁচামাল পরিবহনে যুগান্তকারী পদক্ষেপে গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীসহ রেলকর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কৃষকরা।

নীলফামারী চেম্বারের সভাপতি মারুফ জামান সাংবাদিকদের বলেন, এটি আরো অনেক আগে চালু করলে ভাল হত। বিশেষ পার্সেল ট্রেনটি প্রতিদিন উভয় দিক থেকে চালু রাখলে ব্যবসায়ীরা বেশি উপকৃত হত।

পশ্চিমাঞ্চল রেলের সহকারী চীফ অপারেটিং সুপারিন্টেন্ডেন্ট (পি) আব্দুল আওয়াল জানান, পার্সেল ট্রেনটি বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় খুলনা স্টেশন থেকে চিলাহাটি গিয়ে পৌঁছে রাত ৮টা ৪০ মিনিটে। শুক্রবার সকাল ৯টায় চিলাহাটি থেকে কৃষি পণ্যসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে খুলনা অভিমুখে ছেড়ে এসেছে। এটি খুলনায় রাত সাড়ে আটটায় এসে পৌঁছাবে।

তিনি আরও জানান, যে সকল স্টেশনে ট্রেনটি দাঁড়ানোর কথা নয় এমন সব স্টেশনে যদি পরিবহনের জন্য কৃষিপণ্য থাকে তাহলে ওই স্টেশন মাস্টার আগাম জানিয়ে রাখলে ট্রেনটি সেখানে থেমে কৃষিপণ্য তুলে নেবে। ট্রেনটিতে কোনো যাত্রী পরিবহন করা হবে না।

 
আরও খবর