ফেসবুকে টিপ পরা ছবি দিয়ে প্রতিবাদ জানালেন শিক্ষামন্ত্রী
jugantor
ফেসবুকে টিপ পরা ছবি দিয়ে প্রতিবাদ জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৪ এপ্রিল ২০২২, ২২:১৬:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

টিপ পরায় এক নারীকে হেনস্তার ঘটনায় প্রতিবাদ জানাচ্ছেন অনেকে। কপালে টিপ পরে ফেসবুকে ছবি পোস্ট করেছেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

এবার সেই প্রতিবাদযুদ্ধে সামিল হয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি।

আর সবার মতো দীপু মনিও নিজের কপালে টিপ পরা ৭টি ছবি ফেসবুকে শেয়ার করেছেন। এগুলো তার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া পুরনো ছবি।

ক্যাপশনে দীপু মনি লিখেছেন, ‘আমি মানুষ, আমি মুসলমান, আমি বাঙালি, আমি নারী।’

গতকাল পোস্ট করা দীপু মনির ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজের সর্বশেষ পোস্ট এটি। এর পর আর কোনো নতুন পোস্ট দেখা যায়নি সেখানে।

এদিকে শিক্ষামন্ত্রীর এই প্রতিবাদমূলক পোস্টের পর সেটি ভাইরাল হয়ে পড়ে। এখন পর্যন্ত তাতে ৪৬ হাজারের বেশি রিঅ্যাক্ট জমা পড়েছে, শেয়ার হয়েছে ৯৩৪বার।

মন্তব্যের ঘরে অনেকেই শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে সুর মিলিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

ময়মনসিংহের ত্রিশালে অবস্থিত জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সৌমিত্র শেখর লিখেছেন ‘এভাবেই প্রতিবাদ হোক, তীক্ষ্ণতর হোক আমাদের ভাষা, এভাবেই এগিয়ে আসুক মুক্তিযুদ্ধস্নাত বাঙালির আশা।’

গত শনিবার রাজধানীর গ্রিন রোডের বাসা থেকে হেঁটে যাচ্ছিলেন তেজগাঁও কলেজের শিক্ষিকা লতা সমাদ্দার। যাওয়ার সময় পুলিশ কনস্টেবল নাজমুল ‘টিপ পরছোস কেন’ বলে মন্তব্য করেন তাকে। ঘটনার প্রতিবাদ জানালে একপর্যায়ে ওই কনস্টেবল তার পায়ের ওপর দিয়ে বাইক চালিয়ে চলে যান বলে অভিযোগ ওই কলেজ শিক্ষিকার।

সোমবার সেই পুলিশ কনস্টেবলকে চিহ্নিত করে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। ইতোমধ্যে তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারের উপকমিশনার ফারুক হোসেন বলেছেন, নারীকে হেনস্তার ঘটনাটি তদন্তে দুই সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তিন কর্মদিবসের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

ফেসবুকে টিপ পরা ছবি দিয়ে প্রতিবাদ জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৪ এপ্রিল ২০২২, ১০:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টিপ পরায় এক নারীকে হেনস্তার ঘটনায় প্রতিবাদ জানাচ্ছেন অনেকে। কপালে টিপ পরে ফেসবুকে ছবি পোস্ট করেছেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। 

এবার সেই প্রতিবাদযুদ্ধে সামিল হয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি।

আর সবার মতো দীপু মনিও নিজের কপালে টিপ পরা ৭টি ছবি ফেসবুকে শেয়ার করেছেন। এগুলো তার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া পুরনো ছবি। 

ক্যাপশনে দীপু মনি লিখেছেন, ‘আমি মানুষ, আমি মুসলমান, আমি বাঙালি, আমি নারী।’  

গতকাল পোস্ট করা দীপু মনির ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজের সর্বশেষ পোস্ট এটি।  এর পর আর কোনো নতুন পোস্ট দেখা যায়নি সেখানে।

এদিকে শিক্ষামন্ত্রীর এই প্রতিবাদমূলক পোস্টের পর সেটি ভাইরাল হয়ে পড়ে। এখন পর্যন্ত তাতে ৪৬ হাজারের বেশি রিঅ্যাক্ট জমা পড়েছে, শেয়ার হয়েছে ৯৩৪বার।

মন্তব্যের ঘরে অনেকেই শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে সুর মিলিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। 

ময়মনসিংহের ত্রিশালে অবস্থিত জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সৌমিত্র শেখর লিখেছেন ‘এভাবেই প্রতিবাদ হোক, তীক্ষ্ণতর হোক আমাদের ভাষা, এভাবেই এগিয়ে আসুক মুক্তিযুদ্ধস্নাত বাঙালির আশা।’

গত শনিবার রাজধানীর গ্রিন রোডের বাসা থেকে হেঁটে যাচ্ছিলেন তেজগাঁও কলেজের শিক্ষিকা লতা সমাদ্দার। যাওয়ার সময় পুলিশ কনস্টেবল নাজমুল ‘টিপ পরছোস কেন’ বলে মন্তব্য করেন তাকে। ঘটনার প্রতিবাদ জানালে একপর্যায়ে ওই কনস্টেবল তার পায়ের ওপর দিয়ে বাইক চালিয়ে চলে যান বলে অভিযোগ ওই কলেজ শিক্ষিকার।

সোমবার সেই পুলিশ কনস্টেবলকে চিহ্নিত করে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।  ইতোমধ্যে তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারের উপকমিশনার ফারুক হোসেন বলেছেন, নারীকে হেনস্তার ঘটনাটি তদন্তে দুই সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তিন কর্মদিবসের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন