জবানবন্দিতে যা বললেন হার্দিক পান্ডিয়া

  স্পোর্টস ডেস্ক ১০ এপ্রিল ২০১৯, ২১:০৬ | অনলাইন সংস্করণ

হার্দিক পান্ডিয়া
হার্দিক পান্ডিয়া

নারীদের নিয়ে টকশোতে অশালীন বক্তব্য নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোলে বোর্ডের (বিসিসিআই) কাছে জবানবন্দি দেন হার্দিক পান্ডিয়া।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কাছে জবানবন্দিতে দোষ স্বীকার করে পান্ডিয়া বলেন, ‘আমার মন্তব্যে একশ্রেণির দর্শকদের আঘাত করায় আমি ক্ষমাপ্রার্থী। তবে সমাজের কোনও বিশেষ শ্রেণিকে বা জাতিকে আঘাত করা আমার উদ্দেশ্য ছিল না।’

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের এই অলরাউন্ডার আরও বলেন, ‘আমি নিশ্চিত করছি, একজন ক্রিকেটার হিসেবে জনসমক্ষে দেশ বা বিসিসিআইয়ের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার সময়ে ভবিষ্যতে আরও সতর্ক থাকবো।

গত জানুয়ারিতে বলিউডের খ্যাতনামা পরিচালক করন জোহরের উপস্থাপনায় ‘কফি উইথ করন’নামের টিভি অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম ব্যাটসম্যান লোকেশ রাহুল ও অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া।

আড্ডাধর্মী ওই অনুষ্ঠানটি ভারতের একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানে অশালীন ইঙ্গিত ও নারীদের নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য দেন ওই দুই ক্রিকেটার।

এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। বিশেষ করে নারীরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানান।

এক পর্যায়ে টুইটারে নিঃশর্ত ক্ষমা চান আলোচিত ওই দুই ক্রিকেটার। তবে এতে পার পাননি তারা।

ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রশাসনিক কমিটি শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে দুজনের বিরুদ্ধেই। অস্ট্রেলিয়া সফররত ভারতীয় দল থেকে দুজনকেই প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়ায় অসিদের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ মিস করেন দুজনেই।

আপত্তিকর মন্তব্যের সেই ঘটনায় অনির্দিষ্টকালের জন্য দুজনকে ভারতীয় দল থেকে বহিষ্কার করে বিসিসিআইয়ের প্রশাসনিক কমিটি।

বিসিসিআই জানায়, ঘটনার চূড়ান্ত সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত ভারতের হয়ে মাঠে নামার নিষেধাজ্ঞা ছাড়াও বোর্ডের অনুমোদিত সব ধরনের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণে অযোগ্য থাকবেন অভিযুক্ত দুই ক্রিকেটার। যদিও কিছুদিন পর সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়।

তবে বিসিসিআইয়ের আইনের ৪১ ধারা অনুযায়ী দুজনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের আইনি কার্যক্রম চলমান থাকে।

যেভাবে বিচার প্রক্রিয়া শুরু

অভিযোগের প্রেক্ষিতে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি ডি কে জৈনকে ন্যায়পাল হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। বিচারপতি জৈন সম্প্রতি দুজনের বিরুদ্ধে একটি সমন জারি করেছেন। ওই অভিযোগের শুনানির জন্য রাহুল আর পান্ডিয়াকে তাই বিচারপতি জৈনের সামনে হাজিরা দিতে হবে।

তবে শুনানিতে হাজিরার জন্য দুজনকে কোনো নির্দিষ্ট তারিখ দেওয়া হয়নি।

পিটিআইকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বিচারপতি জৈন বলেন, ‘তারা কবে শুনানিতে আসবে, সেটা তারাই নির্ধারণ করবে। যখন চাইবে তখনই আসতে পারবে দুজন।’

ঘটনাপ্রবাহ : আইপিএল-২০১৯

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×