আইপিএল থেকে ছিটকে গেল কোহলিরা

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ০১:১৮ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

ম্যাচের শুরুতে কোহলির সঙ্গে রোহিত শর্মার রসিকতা। ছবি: টুইটার

এবারের  ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) টানা ষষ্ঠ ম্যাচে হেরে আইপিএলের পয়েন্ট তালিকায় তলানিতে ছিল কোহলি-ডি ভিলিয়ার্সদের রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুর (আরসিবি)। 
মাঝখানে একটি জয়ের পর বুধবার আবারও সেই চিরচেনা রূপ। ম্যাচে হেরে মাঠ থেকে মাথা নিচু করে বের হওয়ার দৃশ্য। 
আর আজকের ম্যাচটি ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। আইপিএলে টিকে থাকার লড়াই। কিন্তু সে লড়াইয়ে কোহলির নেতৃত্বাধীন আরসিবির ব্যাটসম্যানরা ১৭২ রানের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট দাঁড় করিয়েছিল। তবে  বোলারদের ব্যর্থতায় ম্যাচে হেরে আইপিএলের সব আশা শেষ গেল কোহলিদের। 
সোমবার আইপিএলের একমাত্র ম্যাচে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান ডি কক ও ভারতীয় হার্দিক পান্ডিয়ার ঝড়ো ইনিংসেই মূলত হেরে যায় কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু।  

ডি কক ২৬ বলে ৪০ রানের ঝলমলে ইনিংস খেলার পর শেষ দিকে হার্দিক পান্ডিয়া ১৬ বলে ৩৭ রানের ঝড়ো ইনিংস খেললে এক ওভার হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় রোহিত শর্মার নেতৃত্বাধীন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

খেলার শেষ দুই ওভারে মুম্বাইয়ের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ২২ রান। নিগির করা প্রথম বলে কোনো রান পাননি হার্দিক পান্ডিয়া। এবার ১১ বলে ২২ রান প্রয়োজন। ঠিক ওই সময় জ্বলে উঠে হার্দিক পান্ডিয়ার ব্যাট। দ্বিতীয় বলে ছক্কা, তৃতীয় বলে চার, চতুর্থ বলে আবারও চার ও পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকান সদ্য ঘোষিত বিশ্বকাপে ভারতীয় দলে সুযোগ পাওয়া হার্দিক পান্ডিয়া। ষষ্ঠ বল করতে এসে নিগি ওয়াইড দেন। পরের বলে এক রান নিয়ে মুম্বাইয়ের জয় নিশ্চিত করেন হার্দিক পান্ডিয়া। অর্থাৎ, ১৯তম ওভারেই ২২ রান করে ফেলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। 

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭১ রান করে ব্যাঙ্গালুরু। ১৭২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৯ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় মুম্বাই। ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে ডি ভিলিয়ার্স ৭৫, মঈন ৫০ ও পার্থিব ২৮ রান করেন। বাকি কেউ দুই অঙ্ক স্পর্শ করতে পারেননি। মুম্বাইয়ের হয়ে মালিঙ্গা ৪টি, হার্দিক ও বেহরেনডোর্ফ ১টি করে উইকেট শিকার করেন।
মুম্বাইয়ের হয়ে রোহিত ২৮, সূর্যকুমার ২৯, ডি কক ৪০, ইশান ২১, ক্রুনাল ১১ রান করে ফেরেন। অন্যদিকে হার্দিক ১৬ বলে ৫ চার ও ২ ছয়ে ৩৭ রানে অপরাজিত ছিলেন। ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে মঈন ও চাহাল ২টি করে ও সিরাজ ১টি উইকেট শিকার করেন।
ম্যাচে ব্যাঙ্গালুরুকে ৫ উইকেটে হারায় মুম্বাই। এই নিয়ে ৮ ম্যাচ খেলে ৭ ম্যাচ হেরেছে ব্যাঙ্গালুরু। এরই ফলে আইপিএলের এবারের আসরের প্লে-অফ থেকে দৃশ্যত ছিটকে গেছেন কোহলি-ডি ভিলিয়ার্সরা।

যেখানে ৮ ম্যাচ খেলে ৭ জয় ও এক হারে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে ইতিমধ্যে  প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে পয়েন্ট টেবিলে এখন পর্যন্ত শীর্ষে থাকা ধোনির নেতৃত্বাধীন চেন্নাই সুপার কিংস। সেখানে সমান সংখ্যক ম্যাচ খেলে কোহলির নেতৃত্বাধীন আরসিবি মাত্র একটি জয়ে ২ পয়েন্ট পেয়েছে। এছাড়া দিল্লি ক্যাপিটালস সমান সংখ্যক ম্যাচ খেলে ১০ পয়েন্ট অর্জন করেছে। আর মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের ম্যাচ ও পয়েন্টও দিল্লির সমান।  আর কলকাতা নাইট রাইডার্স ও পাঞ্জাব ৮ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট করে অর্জন করেছে। সাকিবের হায়দরাবাদের ৭ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট রয়েছে।

কোহলিদের সামনে আইপিএলের মাত্র ২টি ম্যাচ বাকি আছে। ওই ‍দুটি ম্যাচ জিতলেও তাদের পয়েন্ট গিয়ে দাঁড়াবে ৬ পয়েন্টে। আগামী ১৯ এপ্রিল কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে খেলবে কোহলিরা। ২১ এপ্রিল মুখোমুখি হবে ধোনির চেন্নাইয়ের সঙ্গেই।