সবার কথায় ইমরুল দুর্ভাগা

প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ১১:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

বাংলাদেশ ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় দুর্ভাগার নাম ইমরুল কায়েস! অন্যদের মতো আরামসে জাতীয় দলে সুযোগ পান না তিনি। থাকেন আসা-যাওয়ার মধ্যে। আরও একবার বঞ্চিত হলেন বাঁহাতি অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান।

গেল মঙ্গলবার বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাতে ঠাঁই মেলেনি ইমরুলের। আরেকবার ভাগ্য তার সঙ্গে প্রবঞ্চনা করল।

এর পর এ নিয়ে তুমুল সমালোচনা হচ্ছে। কেন মূল স্কোয়াডে জায়গা হলো না কায়েসের, অভিজ্ঞতাতে পিছিয়ে পড়েও কেনইবা দলে সৌম্য সরকার ও লিটন দাস?

এর ব্যাখ্যাও দিয়েছেন নির্বাচকরা। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু স্পষ্ট বলেছেন, ডানহাতি-বাঁহাতি কম্বিনেশন মেনেই ব্যাটিংয়ের টপঅর্ডার সাজানো হয়েছে। বলা বাহুল্য, তামিম ও সৌম্য থাকায় বিবেচনায় আসেননি বাঁহাতি ইমরুল।

আরেক নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমনের ব্যাখ্যাটা এমন- নির্দিষ্ট একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দল গঠন করা হয়েছে। এই প্রক্রিয়ায় ইমরুলের চেয়ে আমরা সৌম্য ও লিটনকে যোগ্য মনে করেছি। তাই তাদের সুযোগ দিয়েছি। তাই এখন অন্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করলে সুযোগ পাওয়াদের ছোট করা হবে। তবে এটি সত্যি ইমরুল দুর্ভাগা।

সে সুরেই তাল মিলিয়েছেন সাবেক প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ। তিনি বলেন, ইমরুলকে দুর্ভাগা ছাড়া আমার আর কিছু বলার নেই। অন্যদের চেয়ে সে সুযোগ কিছুটা কমই পায়।

বিশ্বকাপের গেল দুই আসরে (২০১১ ও ২০১৫) বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন ইমরুল। সবশেষ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দলেও ছিলেন। প্রতিবারই কারও বদলি হিসেবে যেতে হয়েছে। ২০১৫ অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপে এনামুল হক বিজয়ের বদলি হিসেবে খেলেন তিনি। ২০১৮ এশিয়া কাপেও পরিবর্তন এনে তাকে দলে নেয়া হয়।

বরাবর নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ দিলেও অপ্রত্যাশিতভাবে বাইরে ছিটকে যেতে হয়। ২০১৮ সালে বাংলাদেশের সেরা পাঁচ ব্যাটসম্যানের মধ্যে চার নম্বরে থেকেও আসন্ন বৈশ্বিক আসরের স্কোয়াডে জায়গা হলো না তার।

এত কিছুর পরও ইমরুলের ‘সুযোগ’ থাকছে। তবে সেটি কোনো কিন্তুর ওপর নির্ভর করছে। ২৩ এপ্রিলের মধ্যে স্কোয়াড ঘোষণায় আইসিসির বাধ্যবাধকতা থাকলেও কোনো দল চাইলে ২৩ মে পর্যন্ত বদল আনতে পারবে। টাইগারদের আয়ারল্যান্ড সিরিজের পারফরম্যান্স বিবেচনায় নেয়ার কথা বলেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। তাই টপঅর্ডার ব্যর্থ হলে আবারও ‘নির্ভরতার প্রতীক’ হয়ে থাকা কায়েসের ব্যাগ গোছানো লাগতে পারে!

বিশ্বকাপেই সেই সুযোগটা এসে গেলে ‘দুর্ভাগা’ ইমরুল হয়ে উঠতে পারেন ‘সৌভাগ্যবান’। অতীত ইতিহাস কিন্তু তার পক্ষেই সাফাই গায়!