বিশ্বকাপে পাক-ভারত মহারণ নিয়ে কোহলির ভাষ্য

  স্পোর্টস ডেস্ক ২২ মে ২০১৯, ১৫:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

কোহলি,

আগামী ৩০ মে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসের মাটিতে শুরু হচ্ছে ওয়ানডে বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসর। কেনিংটন ওভালে উদ্বোধনী ম্যাচে আয়োজক দেশ ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে দক্ষিণ আফ্রিকা। ভারতের বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে আরও কয়েক দিন পর। ৫ জুন টাইটানিকের শহর সাউদাম্পটনের রোজ বোলে বিরাটদের প্রথম প্রতিপক্ষ প্রোটিয়ারা।

২৭ বছর পর ফের বিশ্বকাপ ফিরেছে রাউন্ড রবিন লিগ ফরম্যাটে। সবশেষ ১৯৯২ সালে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এ পদ্ধতিতে ক্রিকেটের বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট হয়। এ সংস্করণের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ আসরকে অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং বলছেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

ইতিমধ্যে বিশ্বকাপের দেশ ইংল্যান্ডে পৌঁছেছে টিম ইন্ডিয়া। দেশছাড়ার আগে গেল মঙ্গলবার ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) সদর দফতর মুম্বাইয়ের ক্রিকেট সেন্টারে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে কোহলি বলেন, এটি অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং বিশ্বকাপ হতে চলেছে। যে কেউ যেকোনো দলকে আপসেট করতে পারে। আমাদের দ্রুত পরিবেশ ও পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে।

ক্যাপ্টেন হিসেবে প্রথম ও ক্রিকেটার হিসেবে তৃতীয় বিশ্বকাপে খেলতে যাচ্ছেন কোহলি। এর আগে ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলেছে ইংল্যান্ড৷ পাঁচ ম্যাচের সিরিজে তিন ম্যাচে দুদলই ৩৪০ প্লাস রান তুলেছে। এ দেখেই তিনি মনে করেন, বিশ্বকাপে প্রতিটি ম্যাচই হাইস্কোরিং হতে চলেছে।

তবে এখনই বিশ্বমঞ্চে পাক-ভারত মহারণ নিয়ে ভাবতে চান না মেন ইন ব্লু ক্যাপ্টেন। বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান লড়াই ১৬ জুন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে। ম্যাঞ্চেস্টার যুদ্ধ নিয়ে অবশ্য এখনই মাথা ঘামাতে চান না তিনি। কারণ সরফরাজদের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ রয়েছে। প্রথম প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা, বাকি দুটি অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।

ইন্দো-পাক ম্যাচ নিয়ে কোহলি বলেন, কোনো দলকে নিয়ে আলাদা করে ভাবলে আমরা বিশ্বকাপের লক্ষ্য থেকে সরে যাব। কারণ আমাদের প্রস্তুতিতে কোনো পার্থক্য হবে না। প্রতিপক্ষকে নিয়ে ভাবার থেকে আমাদের ফোকাস হওয়া উচিত নিজেদের শক্তি নিয়ে। আমরা এটিই করতে চলেছি।

বিশ্বকাপে ভারতীয় সেনাবাহিনী থেকে অনুপ্রেরণা পাবেন গোটা দল বলে মনে করেন কোহলি। কয়েক মাস আগেই কাশ্মীরের পুলওয়ামায় তথাকথিত পাকিস্তানি জঙ্গি হামলায় ৪০ জন সিআরপিএফ সেনা নিহত হন। এ ঘটনায় গর্জে ওঠেন ভারতীয়রা। পাকদের সবকিছু বয়কটে সোচ্চার হয়ে ওঠেন তারা। ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে নিহত সেনাদের পরিবারের পাশে দাঁড়ান ক্রিকেটাররা।

ঘটনাপ্রবাহ : আইসিসি বিশ্বকাপ-২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×