১৮ ঘণ্টা রোজা রেখে দ. আফ্রিকার বিপক্ষে খেলেছেন তিন টাইগার
jugantor
১৮ ঘণ্টা রোজা রেখে দ. আফ্রিকার বিপক্ষে খেলেছেন তিন টাইগার

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৩ জুন ২০১৯, ১২:৩৫:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

রোজার মাসের মধ্যেই শুরু হয়েছে এবারের বিশ্বকাপ। তাই বলে থেমে নেই টাইগারদের ধর্ম পালন। নিয়মিতই রোজ রাখছেন তারা।

জানা গেছে, গতকাল কেনিংটন ওভালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রোজা রেখে খেলেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম ও মেহেদী হাসান মিরাজ।  

কিন্তু তাতে পারফরম্যান্সে এতটুকুনও কমতি পড়েনি তিনজনের। বরং রিয়াদ, মুশফিকের ব্যাটিং তাণ্ডব দেখেছেন প্রোটিয়ারা। এ দুজনের কাছে রাবাদা, গিদি ও ফিকোয়োকে অসহায় মনে হয়েছে। মিরাজের ঘূর্ণিজালে আটকা পড়েছেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানরা।

এদিন ৭৮ রানের সর্বোচ্চ ইনিংসটি খেলেছেন মুশফিক। শেষ মুহূর্তে অসাধারণ ব্যাট করেছেন মাহমুদউল্লাহ। ৩৩ বলে অপরাজিত ছিলেন ৪৬ রান নিয়ে। তার এই ঝড়ো ইনিংসের সুবাদেই বাংলাদেশ বিশ্বকাপে নিজেদের সর্বোচ্চ রান ৩৩০ এ নিয়ে যায়। টাইট বোলিং করেছেন অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। দুর্দান্ত ক্যাচ নিয়েছেন তিনি।


এ তিন ক্রিকেটার যে রোজা রেখে ম্যাচ খেলেছেন তা অধিনায়ক মাশরাফি প্রকাশ্যে না আনলে কেউ জানতই না।

ম্যাচে জিতে সংবাদ সম্মেলনে এসে মাশরাফি বিন মুর্তজা নিজেই জানালেন সে কথা।  

ম্যাচ জেতার পেছনে মুশফিক-সাকিবের রেকর্ড গড়া ১৪২ রানের জুটিকে উল্লেখ করেন তিনি। তবে মাহমুদউল্লাহ ও মোসাদ্দেকের অবদানের কথাও বলতে ভোলেননি।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের ব্যাটিং নিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘মুশফিক নিয়মিতই এমন ইনিংস খেলে থাকে। সাকিব দারুণ ব্যাটিং করেছে। শুরুতে সৌম্য গতিপথ ঠিক করে দিয়েছে এবং শেষে মাহমুদউল্লাহ-মোসাদ্দেক ফিনিশিং দিয়েছে।’

এর পর তিনি বলেন, রিয়াদ, মুশফিক ও মিরাজ  রোজা রেখে ম্যাচ খেলেছে। তাদের ধন্যবাদ জানাই।

গতকাল প্রোট্রিয়াবধের পর আইসিসির মিক্সড জোনে এসে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে ঠিকমতো কথা বলতে পারছিলেন না মিরাজ। বারবারই তার গলা শুকিয়ে আসছিল।

তখনও ইফতারের দুই ঘণ্টা বাকি। কেননা রোববার লন্ডনে ইফতারের সময় ছিল স্থানীয় সময় রাত ৯টা ১৩ মিনিটে। সে হিসাবে ১৮ ঘণ্টা না খেয়ে বিশ্বকাপের হাইভোল্টেজ ম্যাচ খেলেছেন এই তিন টাইগার।

এটা অবশ্য সবারই জানা, বাংলাদেশ দলের মধ্যে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, মিরাজরা বেশ ধর্মপ্রাণ। দেশের বাইরে খেলতে গেলে নামাজ কাজা হয় না তাদের।

সম্প্রতি কার্ডিফে বিশ্বকাপ মিশনে যুক্ত হওয়ার পর একটি ছবি ভাইরাল হয়। যেখানে দেখা গেছে সবুজ ঘাসে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ইমামতিতে নামাজ পড়ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

গত ১৬ মার্চে নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে জুমার নামাজ আদায় করতে গিয়েই ক্রাইস্টচার্চে ভয়াবহ অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হন টাইগাররা। মাত্র পাঁচ মিনিট দেরি করায় মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসে তামিম-রিয়াদ-মুশফিকরা।
 
সূত্রের খবর, আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ থেকেই রোজা রেখে খেলছেন মুশফিক, রিয়াদ ও মিরাজ।  গত ৫ মে শুরু হয়েছিল ত্রিদেশীয় সিরিজটি।  আর ৬ ও ৭ মে থেকে শুরু হয় পবিত্র রমজান মাস। সে হিসাবে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচটি রমজান মাসে শুরু হয়।

জানা গেছে, সেই সিরিজেও রোজা রেখে খেলেছিলেন এ তিন ক্রিকেট তারকা।

 

১৮ ঘণ্টা রোজা রেখে দ. আফ্রিকার বিপক্ষে খেলেছেন তিন টাইগার

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৩ জুন ২০১৯, ১২:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রোজার মাসের মধ্যেই শুরু হয়েছে এবারের বিশ্বকাপ। তাই বলে থেমে নেই টাইগারদের ধর্ম পালন। নিয়মিতই রোজ রাখছেন তারা।

জানা গেছে, গতকাল কেনিংটন ওভালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রোজা রেখে খেলেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম ও মেহেদী হাসান মিরাজ।

কিন্তু তাতে পারফরম্যান্সে এতটুকুনও কমতি পড়েনি তিনজনের। বরং রিয়াদ, মুশফিকের ব্যাটিং তাণ্ডব দেখেছেন প্রোটিয়ারা। এ দুজনের কাছে রাবাদা, গিদি ও ফিকোয়োকে অসহায় মনে হয়েছে। মিরাজের ঘূর্ণিজালে আটকা পড়েছেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানরা।

এদিন ৭৮ রানের সর্বোচ্চ ইনিংসটি খেলেছেন মুশফিক। শেষ মুহূর্তে অসাধারণ ব্যাট করেছেন মাহমুদউল্লাহ। ৩৩ বলে অপরাজিত ছিলেন ৪৬ রান নিয়ে। তার এই ঝড়ো ইনিংসের সুবাদেই বাংলাদেশ বিশ্বকাপে নিজেদের সর্বোচ্চ রান ৩৩০ এ নিয়ে যায়। টাইট বোলিং করেছেন অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। দুর্দান্ত ক্যাচ নিয়েছেন তিনি।


এ তিন ক্রিকেটার যে রোজা রেখে ম্যাচ খেলেছেন তা অধিনায়ক মাশরাফি প্রকাশ্যে না আনলে কেউ জানতই না।

ম্যাচে জিতে সংবাদ সম্মেলনে এসে মাশরাফি বিন মুর্তজা নিজেই জানালেন সে কথা।

ম্যাচ জেতার পেছনে মুশফিক-সাকিবের রেকর্ড গড়া ১৪২ রানের জুটিকে উল্লেখ করেন তিনি। তবে মাহমুদউল্লাহ ও মোসাদ্দেকের অবদানের কথাও বলতে ভোলেননি।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের ব্যাটিং নিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘মুশফিক নিয়মিতই এমন ইনিংস খেলে থাকে। সাকিব দারুণ ব্যাটিং করেছে। শুরুতে সৌম্য গতিপথ ঠিক করে দিয়েছে এবং শেষে মাহমুদউল্লাহ-মোসাদ্দেক ফিনিশিং দিয়েছে।’

এর পর তিনি বলেন, রিয়াদ, মুশফিক ও মিরাজ রোজা রেখে ম্যাচ খেলেছে। তাদের ধন্যবাদ জানাই।

গতকাল প্রোট্রিয়াবধের পর আইসিসির মিক্সড জোনে এসে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে ঠিকমতো কথা বলতে পারছিলেন না মিরাজ। বারবারই তার গলা শুকিয়ে আসছিল।

তখনও ইফতারের দুই ঘণ্টা বাকি। কেননা রোববার লন্ডনে ইফতারের সময় ছিল স্থানীয় সময় রাত ৯টা ১৩ মিনিটে। সে হিসাবে ১৮ ঘণ্টা না খেয়ে বিশ্বকাপের হাইভোল্টেজ ম্যাচ খেলেছেন এই তিন টাইগার।

এটা অবশ্য সবারই জানা, বাংলাদেশ দলের মধ্যে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, মিরাজরা বেশ ধর্মপ্রাণ। দেশের বাইরে খেলতে গেলে নামাজ কাজা হয় না তাদের।

সম্প্রতি কার্ডিফে বিশ্বকাপ মিশনে যুক্ত হওয়ার পর একটি ছবি ভাইরাল হয়। যেখানে দেখা গেছে সবুজ ঘাসে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ইমামতিতে নামাজ পড়ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

গত ১৬ মার্চে নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে জুমার নামাজ আদায় করতে গিয়েই ক্রাইস্টচার্চে ভয়াবহ অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হন টাইগাররা। মাত্র পাঁচ মিনিট দেরি করায় মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসে তামিম-রিয়াদ-মুশফিকরা।

সূত্রের খবর, আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ থেকেই রোজা রেখে খেলছেন মুশফিক, রিয়াদ ও মিরাজ। গত ৫ মে শুরু হয়েছিল ত্রিদেশীয় সিরিজটি। আর ৬ ও ৭ মে থেকে শুরু হয় পবিত্র রমজান মাস। সে হিসাবে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচটি রমজান মাসে শুরু হয়।

জানা গেছে, সেই সিরিজেও রোজা রেখে খেলেছিলেন এ তিন ক্রিকেট তারকা।