পাক-ভারত ম্যাচের আগে খেলোয়াড়দের নেশার ব্যাখ্যা দিল পিসিবি

  যুগান্তর ডেস্ক ১৭ জুন ২০১৯, ১৮:৩৯ | অনলাইন সংস্করণ

পাক-ভারত ম্যাচের আগে খেলোয়াড়দের নেশার ব্যাখ্যা দিল পিসিবি
ছবি: সংগৃহীত

ম্যাচের আগের রাতে পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা কোথাও যায়নি বলে জানিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

সম্প্রতি ম্যাচের আগের রাতে পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা ম্যানচেস্টারের ক্যাফে লাউঞ্জে গিয়ে শিশা পান করেন বলে অভিযোগ ওঠেছে। এ নিয়ে তুমুল সমালোচনা চলছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে এ ঘটনার ব্যাখ্যা দিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

পিসিবির দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়, শোয়েব মালিক ও তার স্ত্রী সানিয়া মির্জার সঙ্গে পাক ক্রিকেটারদের আড্ডার যে ছবিগুলো ভাইরাল হয়েছে এটি পাক-ভারত ম্যাচের দুইদিন আগের ঘটনা। টিম ম্যানেজমেন্টের অনুমতি নিয়েই তারা সেখানে গিয়েছিলেন।

পিসিবি মুখপাত্র জানান, ভারতের সঙ্গে ম্যাচের আগের রাতে খেলোয়াড়রা তাদের নির্ধারিত হোটেলেই অবস্থান করছিল। এ সময় কোনো খেলোয়াড় বাইরে যায়নি।

ভাইরাল হওয়া সে ছবি ও ভিডিওতে দেখা যায়, ম্যানচেস্টারের ক্যাফে লাউঞ্জে বসে কিছু খাচ্ছেন পাক ক্রিকেটাররা। শোয়েব মালিক, ইমাদ ওয়াসিম, ওয়াহাব রিয়াজ ও ইমামরা রয়েছেন সেখানে। স্বামীকে সঙ্গ দিতে শোয়েবের স্ত্রী ভারতীয় টেনিস সেনসেশন সানিয়া মির্জাকে দেখা গেছে সেখানে।

ভিডিওতে তাদের আশপাশের টেবিলে শিশার পাত্র দেখা গেছে। এছাড়াও সেসব ভোক্তাদের অনেকের মুখ দিয়ে সাদা ধোঁয়া বের হতে দেখা গেছে।

ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়লে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের তুমুল সমালোচনায় মেতেছে দেশটির সমর্থকরা।

এমন ভিডিও দেখে পাক সমর্থকরা রীতিমতো বিস্মিত। ভারতের বিপক্ষে এমন হাইভোল্টেজ ম্যাচের আগে কীভাবে পাক ক্রিকেটাররা এভাবে সময় কাটাতে পারেন! সে প্রশ্ন ছুঁড়ছেন তারা।

সূত্র: জিয়ো নিউজ উর্দূ

ঘটনাপ্রবাহ : আইসিসি বিশ্বকাপ-২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×