রানাতুঙ্গা যেমন, মাশরাফিও তেমন!

  স্পোর্টস ডেস্ক ০৫ জুলাই ২০১৯, ১৭:৪৬:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

২০১৪ সালের শেষদিকে টালামাটাল হয়ে পড়ে বাংলাদেশের ক্রিকেট। ঠিক তখনই দলের দায়িত্ব নেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তিনি যেন জিয়নকাঠি। হাল ধরতেই পাল্টে যায় দলের চেহারা। তার অনন্য নেতৃত্বে ধীরে ধীরে ক্রিকেটের পরাশক্তিতে পরিণত হন টাইগাররা।

মাশরাফির নেতৃত্বে ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলে বাংলাদেশ। মূলত এরপরই রূদ্রমূর্তি ধারণ করেন লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। ক্রিকেট বিশ্বের বিগ টিমের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়ান তারা। খুব স্বাভাবিকভাবে ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনালে খেলেন সাকিব-তামিমরা।

এর মাঝে ঘরের মাঠে একক শক্তি বনে যায় বাংলাদেশ। নিজ দূর্গে ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারানোর পাশাপাশি বাইরেও (বিদেশে) তাদের হারাতে শুরু করেন টাইগাররা।

ফলে ২০১৯ বিশ্বকাপে সেমি-স্বপ্ন নিয়ে দেশত্যাগ করেন তারা। এর আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট জয় তাতে বাড়তি জ্বালানি জোগায়। তবে একটুর জন্য শেষ চারের স্বপ্ন ভেঙে গেছে তাদের। কিন্তু ইংল্যান্ডে চলমান ক্রিকেটের সর্বোচ্চ আসরে দুর্দান্ত খেলেছে বাংলাদেশ। যদিও মাশরাফি ব্যর্থ। ৭ ম্যাচে নিয়েছেন মাত্র ১ উইকেট।

এসবের কোনো কিছুই নজর এড়ায়নি ভারতের সাবেক পেসার জহির খানের। বাংলাদেশ ও মাশরাফির ভূয়সী প্রশংসা করেছেন তিনি। বিশ্বকাপ নিয়ে ক্রিকেট বিষয়ক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ক্রিকবাজের নিয়মিত অনুষ্ঠানে জহির বলেন, মাশরাফি অসাধারণ নেতা। সে সবার কাছ থেকে সেরাটা বের করে নিচ্ছে। সবাইকে বুঝতে শিখিয়েছে তারা জিততে পারে। দলের সবার মধ্যে জয়ের মন্ত্র ঢুকিয়ে দিয়েছে ও।

তিনি বলেন, ম্যাশ কেবল এবারই না। গেল কয়েক বছর ধরে ভালোভাবে কাজটা করে আসছে সে। এসময়ে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান ব্যাপক উন্নতি করেছে। অর্জুনা রানাতুঙ্গার হাত ধরে ক্রিকেটে আমূল পরিবর্তন ঘটে শ্রীলংকার। প্রভূত উন্নতি ঘটে দলটির। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে মাশরাফি সেটাই করছে। দলের সবার মধ্যে জয়ের আত্মবিশ্বাস পুশ করে দিয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : আইসিসি বিশ্বকাপ-২০১৯

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত