যে ১০ কারণে সেমিফাইনালে হারলো ভারত

প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৯, ০০:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

গাপটিলের ডিরেক্ট থ্রো তে ধোনির সেই রান আউট, যা ছিল ম্যাচের উল্লেখযোগ্য অংশ

বৃষ্টিতে প্রথম দিন খেলা অসমাপ্ত থেকে যাওয়ায় অনেকটাই মনক্ষুন্ন হয়েছিলেন ক্রিকেটভক্তরা।

ইংল্যান্ডের আবহাওয়াকে গালমন্দ করেও মন শান্ত হচ্ছিল না ভারতীয় সমর্থকদের।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বহু ভারতীয় ক্ষোভ ঝেড়েছেন, কিউইদের হাতের নাগালে পেয়েও থাবা বসাতে পারল না রবি শাস্ত্রীর শিষ্যরা।

কিন্তু রিজার্ভ ডেতে এসে পাল্টে গেল চিত্রটাই। কিউই বোলারদের তোপে বালির বাধের মতো উড়ে গেল ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা।  
 
তবে ১০৪ বলে ধোনি-জাদেজার ১১৬ রানের জুটিতে খেলায় প্রায় ফিরে এসেছিল ম্যান ইন ব্লুরা।

কিন্তু ট্রেন্ট বোল্টের বলে হঠাৎ ক্যাচ দিয়ে দ্রুত গতিতে হাফসেঞ্চুরি করা জাদেজা আউট হয়ে যাওয়ার পর আবারও ম্যাচটা ঝুলে যায় পেন্ডুলামের মত।

অবশেষে ব্ল্যাকক্যাপ্সদের কাছে হারতে হয় বিরাট কোহলিদের। সে হিসেবে যেন সাউথ আফ্রিকার 'চোকার' তকমাটা নিয়ে ফেলল ভারতীয় দল।

দুর্দান্ত খেলেও টানা দুইবার সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিল বিরাট কোহলিরা। নিউজিল্যান্ডের কাছে ভারতের এ হারের কারণ অনুসন্ধান করেছে ভারতীয় বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার।

দেশটির ক্রিকেটবিশ্লেষকদের নানা হিসাব-নিকাশ একাট্টা করে এ হারের পেছনে ১০টি কারণ খুঁজে পেয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।

সেই ১০ কারণ তুলে ধরা হলো-

১) গতকাল নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং ইনিংসে ভারতের বোলাররা দারুণ শুরু করলেও মাঝের ওভারে রান আটকাতে পারেনি বুমরাহ-ভুবনেশ্বররা। রস টেলরের ৭৪ রানের সৌজন্যে ২৩৯ রান তুলে দেয় নিউজিল্যান্ড।

২) ম্যাঞ্চেস্টারের এই পিচে ২৪০ রানও যে পাহাড়সম হয়ে দাঁড়াবে তা আন্দাজ করাই যাচ্ছিল। দ্বিতীয় দিনে নিউজিল্যান্ডের করা ২৩ বলে ২৮ রান টার্গেটকে আরও কঠিন করে তোলে।
 

৩) বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে রান না পাওয়া গাপটিলের ফিল্ডিং দক্ষতা কাজে লেগে যায় আজকের ম্যাচে। তার ডিরেক্ট থ্রো ধোনির উইকেট ভেঙে গেলে ম্যাচের ষোল আনা চলে যায় কিউদের পক্ষে। এমন সময় মি. ফিনিশার খ্যাত মহেন্দ্র সিং ধোনির রান আউটই ছিল ম্যাচের একটি বড় টার্ন। মোক্ষম সময়ে ধোনির ফিরে যাওয়া ভারতকে ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয়।


৪) বিশ্বকাপের শুরু থেকেই মিডল অর্ডার নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগেছে ভারত। প্রতি ম্যাচেই মিডল অর্ডার পাল্টিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা করেছেন শাস্ত্রী। এতদিন রোহিত, রাহুল ও বিরাট কোহালির ব্যাট কথা বলায় ভারত ম্যাচ জিতেছে। বুধবারের সেমিফাইনালের দিনে টপ অর্ডার ব্যর্থ হওয়ায় ম্যাচ হেরেছে ভারত।

৫) সেমিতে ল অফ অ্যাভারেজের শিকার সেঞ্চুরির পসরা মিলিয়ে বসা রোহিত শর্মা। পর পর সেঞ্চুরির পর আজ ১ রানে তিনি ফিরে গেলেন শুরুতেই। সে ধাক্কা সাময়িক সামলে নিলেও হার আটকাতে পারেনি কোহলি।


৬) সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে যাওয়ার আরও একটি কারণ বড় ম্যাচে বিরাটের ব্যর্থতা। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে বার বার অর্ধশতরানের গণ্ডি পেরোলেও শতরান পাননি তিনি। সেমিফাইনালে মাত্র ১ রানে ফিরে গেলেন ভারতীয় অধিনায়ক।


৭) এবার প্রসংগ বিজয় শংকরের ইনজুরির পর দেশ থেকে উড়িয়ে আনা ঋষভ পন্থ। তার পরিণতি বোধের অভাব চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল কিউইরা। যে সময় সিঙ্গলস নিয়ে ম্যাচের পাল্লা নিজেদের দিকে ভারি করার কথা ছিল সেই সময় হঠাৎ বড় শট নিয়ে ক্যাচ তুলে ভুল করে বসলেন পন্থ।

৮) একই দোষে দুষ্ট দলের সেরা অলরাউন্ডার হার্দিক পাণ্ডিয়ার। ভুল শট খেলে ধোনিকে একা রেখে ফেরেন তিনি। উইকেট বাঁচাতে ধোনির হাতও আটকে যায় পরে।

৯) বিশ্বকাপজুড়েই মন্থর গতির ব্যাটিং নিয়ে সমালোচিত সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক ধোনি। সেমিফাইনালে তার একই রূপ বিপদ ডাকছিল মাঝে মাঝেই। ইনিংস শেষ করতে পারলেন না মি. ফিনিশার। এমন সময় তার হেলিকপ্টার শট দেখতে মরিয়া ছিল সমর্থকরা। যা জয় এনে দিতে পারত। কিন্তু ধোনির বড় শট নেয়ার ব্যর্থতায় হারতে হলো দলকে।


১০) প্রতি ম্যাচেই ব্যর্থ হয়েছেন দীনেশ কার্তিক। সেমিফাইনালের এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেও নিজের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে পারেননি।