ম্যাচ চলাকালীন শাস্ত্রীর ওপর কোহলির ক্ষোভ, ভিডিও ভাইরাল

প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৯, ১১:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

গতকাল প্রকৃত সেমিফাইনালই যেন দেখল ক্রিকেটবিশ্ব। ম্যাচভাগ্য পেণ্ডুলামের মতো ঘুরছিল দুদিকেই।

তবে রিজার্ভ ডের শুরুতে অনেকেই ধরে নিয়েছিল এ যাত্রায় ভারতীয়দের বিদায় জানাতে হচ্ছে।

ম্যাচের পরিস্থিতিও তাই বলছিল। ট্রেন্ট বোল্টদের তোপে মাত্র ৫ রানেই উড়ে গিয়েছিল ভারতীয় টপ অর্ডারের ৩ ব্যাটসম্যান। বিশ্বকাপ ইতিহাসের সেমিফাইনালে এর থেকে কম রানে ৩ উইকেট হারায়নি কোনো দলই।

যদিও শেষের দিকে সমর্থকদের মুখে হাসি ফোটাচ্ছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি ও জাদেজা। এর আগে অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া ও ঋষভ পান্টের দিকে তাকিয়েছিলেন ভারতীয়রা। কিন্তু সে আশার গুড়েবালি দেন ঋষভ পান্ট।

দীনেশ কার্তিক বিফল হলেও আরেক প্রান্তে ভালোই মানিয়ে নিয়েছিলেন ঋষভ পান্ট। কিন্তু বড় শট খেলার প্রচেষ্টায় ৩২ রান করেই সাজঘরে ফেরেন তিনি।

মিশেল স্যান্টনারের বলে মিড উইকেটের ওপর দিয়ে হঠাৎই ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে কলিন গ্র্যান্ডহোমের হাতে ধরা পড়েন ঋষভ।

আর দলের এমন মুহূর্তে ঋষভের এভাবে আউট হতে দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ড্রেসিংরুমে বসেই রাগে লাফিয়ে ওঠেন। কোহলি এতটাই ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন যে, ড্রেসিংরুম থেকে ক্ষিপ্রগতিতে ব্যালকনিতে বেরিয়ে আসেন।

সেখানে বসে থাকা দলের কোচ রবি শাস্ত্রীর ওপর ঝেড়ে ফেলেন সেই রাগ। হাত নেড়ে জানাচ্ছিলেন ঋষভের এমন অপেশাদ্বারিত্বের বিষয়ে।

উইকেটে যখন থিতু হয়ে থাকার কথা, তখন কেন এভাবে বড় শট খেলতে গেল ঋষভ! তার এমন দায়িত্বজ্ঞানহীনতা মোটেই মানতে পারছিলেন না বিরাট কোহলি। আর সেই মেজাজই উগড়ে দিচ্ছিলেন তিনি শাস্ত্রীর ওপর।

বিরাটের সেই ক্ষোভ ঝাড়ার দৃশ্যটি ধরা পড়ে ক্যামেরায়। সেই দৃশ্য দেখে মনে হয় কোচের সঙ্গে ঝগড়ায় মেতেছেন বিরাট কোহলি।
 
আর সেই ভিডিও রীতিমতো নেট দুনিয়ায় ভাইরাল, যা নিয়ে তুমুল সমালোচনায় মেতেছে ক্রিকেটবিশ্ব।

যদিও যথেষ্ট রাগান্বিত কোহলি কোচকে কি বলছেন তা ভিডিওতে দেখে বোঝার উপায় নেই।  তবে সেই সময় শাস্ত্রীকে নিশ্চুপ থাকতে দেখা গেছে।
ঋষভ পান্টের আউটের পর পরই শাস্ত্রীর কাছে গিয়ে কোহলি এমন ক্ষোভ ঝাড়েন। সে হিসাবে বোঝাই যাচ্ছে, ঘটনাটি ঋষভ পান্টের আউটকে ঘিরেই।

 

 

টুইটার লিংক:

https://twitter.com/i/status/1148927623164129280

প্রসঙ্গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১২তম আসরের প্রথম সেমিফাইনালে ১৮ রানে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় ভারত।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২৪০ রানের মামুলি স্কোর তাড়া করতে নেমে মাত্র ৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায় ভারত। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের তৃতীয় বলে দলীয় ৪ রানে ম্যাট হেনরির বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ তুলে দেন রোহিত শর্মা।

আগের তিন ম্যাচে টানা সেঞ্চুরি করা রোহিত এদিন ফেরেন চার বলে মাত্র ১ রান করে।

রোহিত শর্মার বিদায়ের পর উইকেটে নেমে ৬ বল খেলার সুযোগ পান বিরাট কোহলি। বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান ট্রেন্ট বোল্টের গতির বলে এলবিডব্লিউ হন। রিভিউ নিয়েও উইকেট বাঁচাতে পারেননি তিনি। কোহলি ফেরেন মাত্র ১ রান করে।

চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে ম্যাট হেনরির বলেই উইকেটের পেছনে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন অন্য ওপেনার লোকেশ রাহুল। তিনিও ফেরেন মাত্র এক রানে। বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম তিন ব্যাটসম্যান এভাবে ১ রান করে আউট হওয়ার রেকর্ড এবারই প্রথম।

মাত্র ৫ রানে ৩ ব্যাটসম্যানের উইকেট হারিয়ে চরম বিপর্যয়ে পড়ে যান কোহলিরা।

পঞ্চম উইকেটে হার্দিক পান্ডিয়ার সঙ্গে ৪৭ রানের জুটি গড়ে দলকে খেলায় ফেরাতে চেষ্টা করেন রিষভ পান্ট। আগের ১২ বলে মাত্র ১ রান নেয় ভারত। পর পর ডটবল খেলার কারণে বাউন্ডারি হাঁকাতে চেষ্টা করেছিলেন পান্ট।

কিন্তু মিচেল স্যান্টনারের বল তুলে মারতে গিয়ে কলিন ডি গ্রান্ডহোমের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন তিনি।

পান্ডিয়ার আউটের পর রবীন্দ্র জাদেজাকে সঙ্গে নিয়ে দলের হাল ধরেন সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। এই পার্টনারশিপে তারা ১১৬ রানের অনবদ্য জুটি গড়ে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান। 

তবে শেষ দিকে মাত্র ১৩ রানের ব্যবধানে রবীন্দ্র জাদেজা, মহেন্দ্র সিং ধোনি, ভুবনেশ্বর কুমার ও যুগবেন্দ্র চাহালের উইকেট হারিয়ে তীরে গিয়ে তরী ডুবে ভারতের।