মাঠকর্মী থেকে ক্রিকেটার, বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড কোচ
jugantor
মাঠকর্মী থেকে ক্রিকেটার, বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড কোচ

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৩ জুলাই ২০১৯, ০২:৪৭:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

গ্যারি স্টিড

তরুণ বয়সে মাঠ কর্মীর ভূমিকায় ছিলেন গ্যারি স্টিড। সেই ১৯৯০ সালে ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী লর্ডস স্টেডিয়ামের কাঁচ পরিষ্কার থেকে স্কোরকার্ড বিলি করাই ছিল ১৮ বছরের এতরুণে প্রধান কাজ।

মাঠকর্মী থেকে একটা সময়ে ক্রিকেটার হয়ে ওঠেন।ঘরোয়া ক্রিকেটে সাফল্যা পাওয়ায় সুযোগ হয় জাতীয় দলে। নিউজিল্যান্ডের হয়েখেলেন ৫টি টেস্ট।

২৯ বছরের ব্যবধানে লর্ডসের সেই মাঠ কর্মীটিইবিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টের ফাইনালেনিউজিল্যান্ডের প্রধান কোচের ভূমিকায়। তার অধীনে বিশ্বকাপ জয়ের দুয়ারে কেন উইলিয়ামসনরা।

১৯৯৯ সালে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক হয় স্টিডের। ক্রিকেট থেকে অবসরে কোচিংকে পেশা হিসেবে বেছে নেন তিনি। নিউজিল্যান্ড নারী দলের সফল এ কোচকে ২০১৮ সালের আগস্টে জাতীয় দলের দায়িত্ব দেয় দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

মাঠকর্মী থেকে ক্রিকেটার এরপর কোচিং পেশায় জড়িয়ে যাওয়াস্টিডবলেন, ১৯৯০ সালে আমি এখানে (লর্ডসে) ভাগ্যবান মাঠকর্মী ছিলাম। আমার কাজের মধ্যে ছিল জানালার গ্লাস পরিষ্কার করা, স্কোরকার্ড বিলি করা।

রোববার লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে স্টিডের দল নিউজিল্যান্ড। কেন উইলিয়ামসনদের এই প্রধান কোচ বলেন, দল হিসেবে আমাদের তিনটি লক্ষ্য ছিল। সেমিফাইনাল-ফাইনাল আর শিরোপা জয়। ইতিমধ্যেদুটি স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। আরেকটির জন্য ফাইনালে লড়াই করব।

মাঠকর্মী থেকে ক্রিকেটার, বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড কোচ

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৩ জুলাই ২০১৯, ০২:৪৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
গ্যারি স্টিড
গ্যারি স্টিড। ছবি: সংগৃহীত

তরুণ বয়সে মাঠ কর্মীর ভূমিকায় ছিলেন গ্যারি স্টিড। সেই ১৯৯০ সালে ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী লর্ডস স্টেডিয়ামের কাঁচ পরিষ্কার থেকে স্কোরকার্ড বিলি করাই ছিল ১৮ বছরের এ তরুণে প্রধান কাজ।   

মাঠকর্মী থেকে একটা সময়ে ক্রিকেটার হয়ে ওঠেন। ঘরোয়া ক্রিকেটে সাফল্যা পাওয়ায় সুযোগ হয় জাতীয় দলে। নিউজিল্যান্ডের হয়ে খেলেন ৫টি টেস্ট।

২৯ বছরের ব্যবধানে লর্ডসের সেই মাঠ কর্মীটিই বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টের ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের প্রধান কোচের ভূমিকায়। তার অধীনে বিশ্বকাপ জয়ের দুয়ারে কেন উইলিয়ামসনরা। 

১৯৯৯ সালে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক হয় স্টিডের। ক্রিকেট থেকে অবসরে কোচিংকে পেশা হিসেবে বেছে নেন তিনি। নিউজিল্যান্ড নারী দলের সফল এ কোচকে ২০১৮ সালের আগস্টে জাতীয় দলের দায়িত্ব দেয় দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

মাঠকর্মী থেকে ক্রিকেটার এরপর কোচিং পেশায় জড়িয়ে যাওয়া স্টিড বলেন, ১৯৯০ সালে আমি এখানে (লর্ডসে) ভাগ্যবান মাঠকর্মী ছিলাম। আমার কাজের মধ্যে ছিল জানালার গ্লাস পরিষ্কার করা, স্কোরকার্ড বিলি করা।

রোববার লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে স্টিডের দল নিউজিল্যান্ড। কেন উইলিয়ামসনদের এই প্রধান কোচ বলেন, দল হিসেবে আমাদের তিনটি লক্ষ্য ছিল। সেমিফাইনাল-ফাইনাল আর শিরোপা জয়। ইতিমধ্যে দুটি স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। আরেকটির জন্য ফাইনালে লড়াই করব। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন