জিম্বাবুয়ের স্থগিতাবস্থা নিয়ে আইসিসির ভাষ্য

প্রকাশ : ১৯ জুলাই ২০১৯, ১৫:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডের (জেডসি) সদস্যপদ ঘটা করে স্থগিত করেছে আইসিসি। স্বভাবতই ভীষণ মর্মাহত দেশটির ক্রিকেটাররা। এতে নিজেদের ক্যারিয়ারের শেষ দেখছেন তারা। পাশাপাশি দেশের ক্রিকেটের ধ্বংসও দেখছেন!

দল নির্বাচনে সরকারি হস্তক্ষেপ থাকায় জিম্বাবুয়ের সদস্যপদ স্থগিত করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। সদস্য না হওয়ায় এখন আইসিসি আয়োজিত কোনো টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারবে না দলটি। সংস্থার তহবিল থেকেও কোনো অর্থ পাবে না তারা।

গেল বৃহস্পতিবার লন্ডনে আইসিসির বোর্ডসভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। অধিকন্তু জিম্বাবুইয়ানদের ক্রিকেটে দুর্নীতির বিষয়টিও মাথায় রেখেছেন তারা।

কিন্তু কতদিনের জন্য জিম্বাবুয়েকে বরখাস্ত করা হয়েছে তা উল্লেখ করেনি বিশ্ব ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা। সেটি দীর্ঘমেয়াদি হলে স্বাভাবিকভাবেই ধ্বংসের মুখে পড়বে দেশটির ক্রিকেট।

তবে সে রকম কোনো কিছুর আভাস পাওয়া যায়নি আইসিসির তরফে। সংস্থার সভাপতি শশাঙ্ক মনোহর বলেন, আমরা জিম্বাবুয়েকে স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করিনি। সে রকম কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করিনি। তবে আমাদের অবশ্যই খেলাকে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ থেকে মুক্ত রাখতে হবে। দেশটিতে যা ঘটেছে তা আইসিসি সংবিধানের একটি গুরুতর লঙ্ঘন। আমরা এটি হতে দেব না।

জেডসি আইসিসি সংবিধানের ২.৪-এর সি ও ডি ধারা ভঙ্গ করেছে। এ ধারায় উল্লেখ আছে, দল নির্বাচন একটি স্বাধীন প্রক্রিয়া। যেখানে সরকারি কোনো হস্তক্ষেপ কাম্য নয়।

আসছে তিন মাসের মধ্যেই জেডসি এ সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসবে বলে আশাবাদী আইসিসি। আগামী অক্টোবরে সভায় এ বোর্ডের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।