মোসাদ্দেক-আফিফের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ

  স্পোর্টস ডেস্ক ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত
মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ছবি: সংগৃহীত

মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও আফিফ হোসেনের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে খেলায় ফিরেছে বাংলাদেশ দল। ৯.৩ ওভারে ৬০ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে চরম বিপর্যয়ে পড়েছিল টাইগাররা। সেই অবস্থা থেকে দলকে খেলায় ফেরাতে কার্যকরী ব্যাটিং করেন মোসাদ্দেক-আফিফ। জয়ের জন্য শেষ ২০ বলে ৩৩ রান করতে হবে বাংলাদেশকে।

জিম্বাবয়ের বিপক্ষে ১৪৫ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায় বাংলাদেশ। দলীয় ৪.৩ ওভারে মাত্র ২৯ রানে লিটন দাস-সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসানের উইকেট হারিয়ে চরম বিপদে পড়েছে টাইগাররা।

এরপর ২৭ রানের ব্যবধানে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে রায়ান বার্লের দুর্দান্ত ক্যাচে পরিনত হয়ে সাজঘরে ফেরেন সাব্বির রহমান রুম্মন। তার বিদায়ে ৯.৩ ওভারে ৬০ রানে ৬ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

জিম্বাবুয়ে ১৮ ওভারে ১৪৪/৫

শুক্রবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বৃষ্টির কারণে মাঠ ভেজা থাকায় নির্ধারিত সময়ের সোয়া এক ঘণ্টা পর খেলা শুরু হয়। বিলম্বে খেলা শুরু হওয়ায় ২০ ওভারের পরিবর্তে খেলা নির্ধারিত হয় ১৮ ওভারে।

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করে জিম্বাবুয়ে। প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমেই বিপদে পড়ে যায় জিম্বাবুয়ে। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেই সাফল্য পান তাইজুল ইসলাম।

টেস্ট স্পেশালিস্ট বোলার হিসেবে খ্যাতি পাওয়া বাঁহাতি এ স্পিনারের বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে থার্ডম্যানে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের হাতে ক্যাচ তুলে দেন ব্রান্ডন টেইলর। তার বিদায়ে ১.১ ওভারে দলীয় ৭ রানে উদ্বোধনী জুটি ভাঙে জিম্বাবুয়ের।

এর আগে প্রথম ওভারে ৭ রান খরচ করেন সাকিব আল হাসান। তার করা প্রথম বলেই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ছিলেন টেইলর।

ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার আগেই ক্রেইগ আরভিনকে সাজঘরে ফেরান মোস্তাফিজুর রহমান। তার বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে মিডউইকেটে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের হাতে ক্যাচ তুলে দেন আরভিন। ৬.৪ ওভারে দলীয় ৫১ রানে সাজঘরে ফেরেন জিম্বাবুয়ের এই তারকা ব্যাটসম্যান। তার আগে ১৪ বলে ১১ রান করেন আরভিন।

এরপর ১২ রানের ব্যবধানে তিন উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। ইনিংসের শুরু থেকে একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে দলকে খেলায় রাখেন তিনি। সাইফউদ্দিনের বলে সাব্বির রহমান রুম্মনের হাতে ক্যাচ তুলে দেয়ার আগে ২৬ বলে পাঁচটি চার ও এক ছক্কায় ৩৪ রান করেন মাসাকাদজা।

ব্যাটিংয়ে নেমে কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের বলে তার হাতেই ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন শন উইলিয়ামস। মোস্তাফিজের বলে রান আউট হয়ে ফেরেন টিমিকেট মারুমা। তার বিদায়ে ৯.৩ ওভারে দলীয় ৬৩ রানে ৫ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে।

ইনিংসের শেষ দিকে ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়ে দলকে সম্মানজনক স্কোর উপহার দেন রায়ান বার্ল। ষষ্ঠ উইকেটে তিনি টিনোটেন্ডা মুটুমবদজিকে সঙ্গে নিয়ে নিয়ে ৫১ বলে ৮১ রানের জুটি গড়েন। ইনিংসের ১৬তম ওভারে সাকিব আল হাসানের বলে তিনটি ছক্কা ও তিনটি চার হাঁকিয়ে ৩০ রান আদায় করে নেন রায়ান। তার ৩২ বলের অপরাজিত ৫৭ রানে ভর করে নির্ধারিত ১৮ ওভারে ৫ উইকেটে ১৪৪ রান সংগ্রহ করে জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশ দলের হয়ে ৪ ওভারে সর্বোচ্চ ৪৯ রান খরচ করেন সাকিব। তিনি কোনো সাফল্য পাননি।

ঘটনাপ্রবাহ : ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ ঢাকা-২০১৯

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×