বিশ্বকাপে আমাদের আবারও প্রমাণ করতে হবে: সাকিব
jugantor
বিশ্বকাপে আমাদের আবারও প্রমাণ করতে হবে: সাকিব

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২৩:০২:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেছেন, এখন আমরা অনেক বেশি উপযুক্ত।বিশ্বকাপে সেটা আবারও প্রমাণ করতে হবে।

আগামী বছরের ১৮ অক্টোবর অস্ট্রেলিয়ায় শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।বিশ্বকাপ শুরুর এক বছর আগ থেকেই ক্ষণগণনা শুরু হয়েছে। শুক্রবার এ উপলক্ষে অংশগ্রহণকারী দেশেরঅধিনায়করা নিজেদের ভাবনার কথা জানিয়েছেন আইসিসির ওয়েবসাইটে।

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেন, সত্যি বলতে টি-টোয়েন্টিতে আমরা এখনও ধারবাহিকতা দেখাতে পারিনি। যেভাবে খেলাটা খেলতে চাই সেটা এখনও পারিনি। তবে বড় টুর্নামেন্টে আমাদের পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভালো। আগের আসরে আমরা সুপার এইটে খেলেছি, এশিয়া কাপ ও কয়েকটি ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে খেলেছি। ২০১৬ টি ২০ বিশ্বকাপে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার কঠিন পরীক্ষা নিয়েছিলাম।

সাকিব বলেন, আমাদের দলে অনেক তরুণ প্রতিভা এসেছে। দলে অভিজ্ঞতাও আছে যথেষ্ট। মনোযোগ ধরে রেখে আগে প্রথম রাউন্ড পেরোতে হবে। কঠিন কন্ডিশনে মানিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে এখন আমরা অনেক বেশি উপযুক্ত। বিশ্বকাপে সেটা আবারও প্রমাণ করতে হবে।

সমর্থকদের নিয়ে বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার বলেন, আমি সব সময়ই বলি, সমর্থকরাই আমাদের দলের অনানুষ্ঠানিক দ্বাদশ ব্যক্তি। যেখানেই খেলা হোক, বাংলাদেশের সমর্থকরা মাঠে এসে দলকে উজ্জীবিত করে।
সাকিব আরও বলেন, অস্ট্রেলিয়ায়ও অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছে। অতীতে দেখেছি, নিউজিল্যান্ড ও বিশ্বের অন্য অনেক দেশ থেকেও এখানে আমাদের খেলা দেখতে এসেছে অনেকে।

বাংলাদেশ সেরা এ ক্রিকেটার বলেন, এ বছর ব্রিটেনে ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সমর্থকরাই ছিল সবচেয়ে বর্ণময় ও ক্রীড়ামোদী। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে ২০১৫ বিশ্বকাপেও সেটা দেখেছি আমরা। আমাদের দেশে জাতীয় ক্রিকেট দলকে নিয়ে মানুষের আগ্রহ ও উন্মাদনা ক্রমেই বাড়ছে।

বিশ্বকাপে আমাদের আবারও প্রমাণ করতে হবে: সাকিব

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৮ অক্টোবর ২০১৯, ১১:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেছেন, এখন আমরা অনেক বেশি উপযুক্ত। বিশ্বকাপে সেটা আবারও প্রমাণ করতে হবে।

আগামী বছরের ১৮ অক্টোবর অস্ট্রেলিয়ায় শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপ শুরুর এক বছর আগ থেকেই ক্ষণগণনা শুরু হয়েছে। শুক্রবার এ উপলক্ষে অংশগ্রহণকারী দেশের অধিনায়করা নিজেদের ভাবনার কথা জানিয়েছেন আইসিসির ওয়েবসাইটে। 

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেন, সত্যি বলতে টি-টোয়েন্টিতে আমরা এখনও ধারবাহিকতা দেখাতে পারিনি। যেভাবে খেলাটা খেলতে চাই সেটা এখনও পারিনি। তবে বড় টুর্নামেন্টে আমাদের পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভালো। আগের আসরে আমরা সুপার এইটে খেলেছি, এশিয়া কাপ ও কয়েকটি ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে খেলেছি। ২০১৬ টি ২০ বিশ্বকাপে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার কঠিন পরীক্ষা নিয়েছিলাম। 

সাকিব বলেন, আমাদের দলে অনেক তরুণ প্রতিভা এসেছে। দলে অভিজ্ঞতাও আছে যথেষ্ট। মনোযোগ ধরে রেখে আগে প্রথম রাউন্ড পেরোতে হবে। কঠিন কন্ডিশনে মানিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে এখন আমরা অনেক বেশি উপযুক্ত। বিশ্বকাপে সেটা আবারও প্রমাণ করতে হবে।

সমর্থকদের নিয়ে বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার বলেন, আমি সব সময়ই বলি, সমর্থকরাই আমাদের দলের অনানুষ্ঠানিক দ্বাদশ ব্যক্তি। যেখানেই খেলা হোক, বাংলাদেশের সমর্থকরা মাঠে এসে দলকে উজ্জীবিত করে। 
সাকিব আরও বলেন, অস্ট্রেলিয়ায়ও অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছে। অতীতে দেখেছি, নিউজিল্যান্ড ও বিশ্বের অন্য অনেক দেশ থেকেও এখানে আমাদের খেলা দেখতে এসেছে অনেকে। 

বাংলাদেশ সেরা এ ক্রিকেটার বলেন, এ বছর ব্রিটেনে ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সমর্থকরাই ছিল সবচেয়ে বর্ণময় ও ক্রীড়ামোদী। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে ২০১৫ বিশ্বকাপেও সেটা দেখেছি আমরা। আমাদের দেশে জাতীয় ক্রিকেট দলকে নিয়ে মানুষের আগ্রহ ও উন্মাদনা ক্রমেই বাড়ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ-২০২০