কারও জন্য কেউ অপেক্ষা করে না, সাকিব প্রসঙ্গে নান্নু

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৯, ১০:০৯ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এখন সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখছেন টাইগাররা। বৃহস্পতিবার রাজমুকুটের সন্ধানে রাজকোটে নামছেন তারা। দলের সঙ্গে আছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। টিম ইন্ডিয়াকে তাদের মাটিতে হারানোকে বিরাট অর্জন বলে মনে করছেন তিনি।

এদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ-ভারত। গতকাল বুধবার দ্বিতীয় ম্যাচ নিয়ে কথা বলেন নান্নু। এ সময় সাকিব প্রসঙ্গ উঠলে তিনি জানান, তাকে বাদ দিয়েই এখন পরিকল্পনা করতে হবে। যেটি চিরন্তন সত্য, সেটি হচ্ছে- কারও জন্য কেউ অপেক্ষা করে না।

প্রধান নির্বাচক বলেন, আমরা প্রথম বহুজাতিক টুর্নামেন্ট জিতেছি আয়ারল্যান্ডে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও স্বাগতিকদের নিয়ে আয়োজিত ত্রিদেশীয় শিরোপা জিতেছি। ওই সিরিজের ফাইনাল ম্যাচ খেলতে পারেনি সাকিব। কে খেলছে আর কে খেলছে না, এখন এটি মাথায় নেয়া উচিত নয়। মনে রাখতে হবে- কারও জন্য কেউ অপেক্ষা করে না। যেদিন যে প্ল্যাটফর্ম পাবে, তাকে সেটি কাজে লাগাতে হবে। যখন যে সুযোগ পাবে, তাকে ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। তা হলেই সাফল্য আসবে।

প্রসঙ্গটি আসে মূলত সৌম্য সরকারের সঙ্গে তুলনা নিয়ে। দলে থাকার সময় তিন নম্বরে ব্যাটিং করতেন সাকিব। তখন ওপেনিং বা নিচের দিকে নামতেন সৌম্য। কিন্তু সাকিব না থাকায় ভারতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ওয়ানডাউনে ব্যাটিং করেন তিনি। এদিন দুর্দান্ত খেলেনও সৌম্য। নাঈম ও মুশফিকের সঙ্গে গড়েন দুটি গুরুত্বপূর্ণ জুটি। ব্যক্তিগতভাবে করেন ৩৫ বলে ৩৯ রান।

মিনহাজুল আবেদীন বলেন, দেখেন সাকিব এক ধরনের ক্রিকেটার। সৌম্য আরেক ধরনের ক্রিকেটার। টিম ম্যানেজমেন্ট যে পরিকল্পনা করছে, সেই অনুযায়ী ব্যাটিংঅর্ডার সাজাচ্ছে। এভাবে তুলনা করা উচিত নয়। আমাদের টপঅর্ডার থেকে মিডলঅর্ডার পর্যন্ত অনেক বাঁহাতি ব্যাটসম্যান আছে। টিম ম্যানেজমেন্ট যাকে যখন যেখানে চায় নামাবে। আর ভুলে গেলে চলবে না, টি-টোয়েন্টিতে প্রতিষ্ঠিত ব্যাটিংঅর্ডার বলতে কিছু থাকে না। অনেক সময় পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যাটিংঅর্ডারে পরিবর্তন হয়। টিম ম্যানেজমেন্ট যেটি ভালো মনে করে সেটিই করবে।

জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করায় সাকিবকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। আগামী বছরের ২৯ অক্টোবরের আগে তাকে মাঠে দেখা যাবে না। প্রাথমিকভাবে বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারকে নিয়েই ভারত সফরের সব পরিকল্পনা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কিন্ত তার ওপর নিষেধাজ্ঞার খড়গ ঝুলায় সব ওলট-পালট হয়ে যায়। ব্যাটিংঅর্ডার থেকে শুরু করে দলে আনতে হয় ব্যাপক রদবদল।