রিটায়ার্ড হার্ট লিটন, নিয়ম থাকলেও বদলি নেয়ার উপায় নেই!

  স্পোর্টস ডেস্ক ২২ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

লিটন

এ যেন প্রথম টেস্টের পুনরাবৃত্তি। দ্বিতীয় ম্যাচেও টস হেরেছে ভারত। আগের মতোই দারুণ বোলিংয়ে ম্যাচের প্রথম সেশন নিজেদের করে নিয়েছে তারা। এতে ভারতীয় পেসারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ের অবদান রয়েছে। পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানদেরও দায় আছে। অধিকাংশই বাজে শট খেলে বিপদ ডেকে এনেছেন।

প্রথম সেশনে ৬ উইকেট হারিয়ে ৭৩ রান করেছে বাংলাদেশ। এরই মধ্যে লাঞ্চ থেকে ফিরেছেন তারা। ফিরেই আরেকটি বড় ধাক্কা খেলেন সফরকারীরা। রিটায়ার্ড হার্ট হয়েছেন লিটন দাস। বিরতির আগে মোহাম্মদ শামির বলে মাথায় আঘাত পান তিনি। দারুণ ব্যাট করেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। ২৪ রান নিয়ে অপরাজিত ছিলেন এ ব্যাটার। লিটন মাঠে নামতে না পারায় স্বাভাবিকভাবেই বাংলাদেশের ইনিংস দ্রুত শেষ হয়ে যাবে। ক্রিজে রয়েছেন নাঈম হাসান ও এবাদত হোসেন। তারা কেউই স্বীকৃত ব্যাটসম্যান নন।

নতুন নিয়ম অনুযায়ী, চাইলে ‘কনকাসন’ বদলি পাবে বাংলাদেশ। তবে সেই বদলি নেয়ার উপায় নেই। স্কোয়াডে বাড়তি কোনো ব্যাটসম্যানই নেই!পারিবারিক কারণে টেস্ট সিরিজ শুরুর আগেই দেশে ফিরেছেন মোসাদ্দেক হোসেন। তার কোনো বদলি পাঠানো হয়নি। ইন্দোর টেস্টে চোট পেয়ে ইডেন থেকে ছিটকে গেছেন টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান। তারও কোনো বদলি নেয়া হয়নি। স্কোয়াডে আছেন মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম ও মোস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু তারা কেউই বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান কিংবা উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান নন।

এর আগে ঐতিহ্যবাহী ঘণ্টা বাজিয়ে খেলার উদ্বোধন ঘোষণা করেন বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এসময় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) নয়া প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি ও টাইগার ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন উপস্থিত ছিলেন।

দুপুর দেড়টায় শুরু হয় খেলা। এ নিয়ে ইতিহাস গড়ে ভারত-বাংলাদেশ। দুই দলই নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দিবারাত্রির টেস্ট খেলতে মাঠে নামে। তবে শুরুটা ভালো করতে পারেননি টাইগাররা। সূচনালগ্নে ইশান্ত শর্মার এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন ইমরুল কায়েস। ওয়ানডাউনে নেমে খেলা ধরতে পারেননি টেস্ট স্পেশালিস্টখ্যাত মুমিনুল হক। উমেশ যাদবের বলে ব্যক্তিগত শূন্য রানে ফেরেন তিনি। সেই রেশ না কাটতেই তারই বলে সোজা বোল্ড হয়ে ফেরেন মোহাম্মদ মিঠুন। রানের খাতায় খুলতে পারেননি এ টপঅর্ডার।

পরে নির্ভরতা জোগাতে পারেননি মিস্টার ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিম। মোহাম্মদ শামির বলে প্লেড অন হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন তিনি। ডাক মারেন তিনিও। তাতে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। সতীর্থরা একে একে যাওয়া-আসার মিছিলে যোগ দিলেও একপ্রান্ত আগলে থাকেন সাদমান ইসলাম। ধ্বংসস্তূপে সংগ্রাম চালিয়ে যান তিনি। তবে হঠাৎ পথচ্যুত হন বাঁহাতি ওপেনার। ধরেন সাজঘরের পথ। উমেশ যাদবের বলে উইকেটের পেছনে ঋদ্ধিমান সাহাকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সাদমান। ফেরার আগে করেন ৫২ বলে ৫ চারে লড়াকু ২৯ রান। এতে মহাবিপর্যয়ে পড়ে সফরকারীরা। এ অবস্থায় সাজঘরে ফেরেন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ইশান্ত শর্মার বলে উইকেটের পেছনে ঋদ্ধিমান সাহার অতিমানবীয় ক্যাচ হয়ে ফেরত আসেন তিনি।

খেলা শুরুর আগে ঐতিহ্যবাহী স্টেডিয়ামে ঐতিহাসিক ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক। টস হয় বিশেষভাবে তৈরি রূপার মুদ্রায়। গোলাপি ম্যাচে বাংলাদেশ একাদশে আসে দুই পরিবর্তন। বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামের জায়গায় ঢুকেন পেসার আল-আমিন হোসেন। আর ডানহাতি স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের স্থানে অন্তর্ভুক্ত হন নাঈম হাসান। তবে অপরিবর্তিত থাকে ভারত একাদশ। প্রথম টেস্ট হেরে দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০তে পিছিয়ে টাইগাররা।

বাংলাদেশ একাদশ: ইমরুল কায়েস, সাদমান ইসলাম, মুমিনুল হক (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন দাস, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ রাহী, ইবাদত হোসেন, আল আমিন হোসেন।

ভারত একাদশ: রোহিত শর্মা, মায়াঙ্ক আগারওয়াল, চেতেশ্বর পুজারা, বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), অজিঙ্কা রাহানে, রবীন্দ্র জাদেজা, ঋদ্ধিমান সাহা (উইকেটরক্ষক), রবিচন্দ্রন অশ্বিন, ইশান্ত শর্মা, মোহাম্মদ শামি ও উমেশ যাদব।

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশের ভারত সফর-২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×