ভিসা জটিলতায় কলকাতায় আটকা ক্রিকেটার সাইফ হাসান
jugantor
ভিসা জটিলতায় কলকাতায় আটকা ক্রিকেটার সাইফ হাসান

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৭ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০২:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

চোটের কারণে ঐতিহাসিক ইডেন টেস্ট থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটার সাইফ হাসান। এবার আরেক বিড়ম্বনায় পড়লেন তিনি। ভিসার মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় দেশে ফিরতে পারছেন না এ তরুণ!

২৫ নভেম্বর দেশে ফেরার বিমান ধরতে কলকাতার নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু বিমানবন্দরে যান সাইফ। তবে ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশ বিমানের বোর্ডিং থেকে তাকে ফিরিয়ে দেন কর্তৃপক্ষ। ফলে হোটেলে ফিরে আসতে বাধ্য হন তিনি।

সাইফের ভারতীয় ভিসার মেয়াদ ছিল ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত। ভিসা-জটিলতার কথা নিজেই স্বীকার করেছেন তিনি। উদীয়মান এ টাইগার ক্রিকেটার বলেন, আমার ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। ২৪ তারিখ পর্যন্ত মেয়াদ ছিল। তবে আমি যাচ্ছিলাম পরের দিন। শিগগির এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

ভিসার মেয়াদ বাড়িয়ে সাইফকে ফেরানোর চেষ্টা করছে ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশন। আজ-কালের মধ্যে এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

ভারত-বাংলাদেশের গোলাপি বলের টেস্ট শেষ হয় তিন দিনেই। ২৪ নভেম্বর ছিল ম্যাচের তৃতীয় দিন। খেলা আগে শেষ হওয়ায় ওই দিন রাতেই মুমিনুল হকসহ চার ক্রিকেটার দেশে ফেরেন। সাইফ, সাদমান ইসলাম, আবু জায়েদ রাহী ও এবাদত হোসেনের ফ্লাইট ছিল পর দিন। বাকি তিনজন ফিরতে পারলেও ভিসার মেয়াদ না থাকায় হোটেলে ফিরতে হয় সাইফকে।

সাইফ টেস্ট সিরিজ খেলতে ভারতে আসেন গেল ৮ নভেম্বর। কিন্তু তার ভিসা করা হয় বেশ আগে। গেল জুনে বিসিবি একাদশের হয়ে বিদর্ভের বিপক্ষে ভারতে খেলতে আসেন তিনি। এবার জাতীয় দলের হয়ে ভারত সফরের শেষ দিকে ব্যাটারের সেই ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাচ্ছে, সেটি বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টের কেউই নজরে আনেননি। স্বভাবতই এটি তাদের অগোছালো অবস্থা তুলে ধরল।

ভিসা জটিলতায় কলকাতায় আটকা ক্রিকেটার সাইফ হাসান

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৭ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চোটের কারণে ঐতিহাসিক ইডেন টেস্ট থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটার সাইফ হাসান। এবার আরেক বিড়ম্বনায় পড়লেন তিনি। ভিসার মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় দেশে ফিরতে পারছেন না এ তরুণ!

২৫ নভেম্বর দেশে ফেরার বিমান ধরতে কলকাতার নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু বিমানবন্দরে যান সাইফ। তবে ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশ বিমানের বোর্ডিং থেকে তাকে ফিরিয়ে দেন কর্তৃপক্ষ। ফলে হোটেলে ফিরে আসতে বাধ্য হন তিনি।

সাইফের ভারতীয় ভিসার মেয়াদ ছিল ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত। ভিসা-জটিলতার কথা নিজেই স্বীকার করেছেন তিনি। উদীয়মান এ টাইগার ক্রিকেটার বলেন, আমার ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। ২৪ তারিখ পর্যন্ত মেয়াদ ছিল। তবে আমি যাচ্ছিলাম পরের দিন। শিগগির এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

ভিসার মেয়াদ বাড়িয়ে সাইফকে ফেরানোর চেষ্টা করছে ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশন। আজ-কালের মধ্যে এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

ভারত-বাংলাদেশের গোলাপি বলের টেস্ট শেষ হয় তিন দিনেই। ২৪ নভেম্বর ছিল ম্যাচের তৃতীয় দিন। খেলা আগে শেষ হওয়ায় ওই দিন রাতেই মুমিনুল হকসহ চার ক্রিকেটার দেশে ফেরেন। সাইফ, সাদমান ইসলাম, আবু জায়েদ রাহী ও এবাদত হোসেনের ফ্লাইট ছিল পর দিন। বাকি তিনজন ফিরতে পারলেও ভিসার মেয়াদ না থাকায় হোটেলে ফিরতে হয় সাইফকে।

সাইফ টেস্ট সিরিজ খেলতে ভারতে আসেন গেল ৮ নভেম্বর। কিন্তু তার ভিসা করা হয় বেশ আগে। গেল জুনে বিসিবি একাদশের হয়ে বিদর্ভের বিপক্ষে ভারতে খেলতে আসেন তিনি। এবার জাতীয় দলের হয়ে ভারত সফরের শেষ দিকে ব্যাটারের সেই ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাচ্ছে, সেটি বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টের কেউই নজরে আনেননি। স্বভাবতই এটি তাদের অগোছালো অবস্থা তুলে ধরল।

 

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশের ভারত সফর-২০১৯