ওভারে ১৬ রানের চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ রাসেলের

  স্পোর্টস ডেস্ক ১৬ জানুয়ারি ২০২০, ১১:২০:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

স্নায়ুচাপ সামলে বিধ্বংসী ইনিংস খেলতে অভ্যস্ত আন্দ্রে রাসেল। এর আগে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অসংখ্যবার এ নজীর স্থাপন করেছেন ক্যারিবীয় এই ব্যাটসম্যান। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল) এসেও একই উদাহরণ সৃষ্টি করলেন এই হার্ডহিটার।

বুধবার বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে ব্যাট হাতে একাই রাজশাহী রয়্যালসকে জিতিয়েছেন রাসেল। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন এই পিঞ্চ হিটার।

চট্টগ্রামের দেয়া ১৬৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১২৮ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে রাজশাহী। এ পরিস্থিতিতে এক প্রান্ত আগলে রেখে ২২ বলে ৫৪ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন রাসেল। ৭ ছক্কা ও ২ চারে ইনিংসটি সাজান তিনি। শেষ পর্যন্ত তাতে ভর করে ২ উইকেটের শ্বাসরূদ্ধকর জয় পায় ধুঁকতে থাকা রাজশাহী।

পাহাড়সম চাপ সামলে ম্যাচ উইনিং ইনিংস খেলার পর স্বভাবতই উচ্ছ্বসিত রাসেল। ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে লড়তে সবসময় ভালোবাসেন তিনি। বীরোচিত ইনিংস খেলার চ্যালেঞ্জ নিতে সর্বদাই পছন্দ করেন এ তারকা। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এমনটা জানান রাসেল।

রাসেল বলেন, এর আগেও বলেছি, আমি এ ধরনের পরিস্থিতিতে খেলতে পছন্দ করি। ১ ওভারে ১২, ১৩ কিংবা ১৪ রান দরকার হলে ব্যাট করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। আমি ব্যাট চালাতে আরও পছন্দ করি ওভারে ১৫ কিংবা ১৬ রান দরকার হলে। এ ধরনের চ্যালেঞ্জ নিতে আমি সবসময় আগ্রহী।

ইনিংসের শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে পারলে জয় ছিনিয়ে আনতে পারবেন-ক্রিজে নামার পর থেকেই এ বিশ্বাস ছিল রাসেলের। মূলত সেই কারণেই বিজয়ীর বেশে মাঠ ছাড়তে সক্ষম হন তিনি।

রাজশাহীর অধিনায়ক বলেন, জানতাম আমি যদি শেষ পর্যন্ত টিকে থাকি, তা হলে জয় নিয়ে ফিরতে পারব। আমি কখনো পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নামি না। পরিস্থিতি বিবেচনায় খেলি। কঠিন অবস্থায় নিজের চিন্তাধারা উন্মুক্ত রাখি।

ঘটনাপ্রবাহ : বিপিএল-২০১৯

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত