পরাজয় দলের জয় মুশফিকের

প্রকাশ : ১৫ মার্চ ২০১৮, ০০:০১ | অনলাইন সংস্করণ

  আল-মামুন

প্রকৃত বীরতো তারাই। যারা নিশ্চিত পরাজয় জেনেও বুক চিতিয়ে লড়াই চালিয়ে যেতে পারেন। এই লড়াইয়ে হয়ত কখনও তারা সফল হবেন! আবার কখনও সফলতার মঞ্চের ঠিক কাছে গিয়েও হোচট খাবেন। এটাই স্বাভাবিক। তবে সফল হতে না পারলেও তাদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই। তারাই সত্যিকারের বীর। তাদের জয় হবেই হবে। 

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সঙ্গে সুর মিলিয়ে বলতে হয়, ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে, তবে একলা চলো রে।’ আসলেই তাই! সেই একলাই চলতে হলো মুশফিকুর রহিমকে। যোগ্য সঙ্গীর অভাবে লড়াই করেও শেষ পর্যন্ত দলকে জয়ের বন্দের ভেড়াতে পারেননি। ভারতের ১৭৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ১৭ রানে পরাজয় বরণ করে নিতে হয় বাংলাদেশ দলকে।

ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের আগের ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে এই মুশফিকের বীরত্বেই ২১৪ রান তাড়া করে ইতিহাসের অন্যতম সেরা জয় পায় বাংলাদেশ। সেই দিন একাই ৭২ রানের ইনিংস খেলে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিয়েছিলেন মুশফিক। যদিও সেই জয়ের ভিত গড়ে দিয়ে গেছেন লিটন ও তামিমরা। উদ্বোধনীতে তারা ৭৪ রানের রেকর্ড জুটি গড়ে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান। আর সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দেন মুশফিক। 

বুধবার ভারতের বিপক্ষে কলম্বোর প্রেমাদাসায় প্রত্যাশিত ক্রিকেট খেলতে পারেননি জাতীয় দলের সেরা ব্যাটসম্যানরা। ৬১ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়া দলকে একটা সময়ে জয়ের স্বপ্ন দেখিয়ে ছিলেন মুশফিক। কিন্তু মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং সাব্বির রহমান রুম্মনদের কাছ থেকে আশানুরুপ ফিটব্যাক না পাওয়ায় ভালো খেলেও দলকে জয় উপহার দিতে পারেননি মুশফিক। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর
ভারত: ২০ ওভারে ১৭৬/৩ রান (রোহিত ৮৯*, রায়না ৪৭, ধাওয়ান ৩৫; রুবেল ২/২৭)।

বাংলাদেশ: ২০ ওভরে ১৫৯/৬ রান (মুশফিক ৭২*, সাব্বির ২৭, তামিম ২৭; ওয়াশিংটন সুন্দর ৩/২২)।

ফল: ভারত ১৭ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা : রোহিত শর্মা (ভারত)।