মুশফিক কেন পাকিস্তানে আসছে না? প্রশ্ন হাসান আলী ও ব্র্যাথওয়েটের
jugantor
মুশফিক কেন পাকিস্তানে আসছে না? প্রশ্ন হাসান আলী ও ব্র্যাথওয়েটের

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৮ মার্চ ২০২০, ১৪:২৭:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তান সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্তে অনড় মিস্টার ডিপেন্ডেবল টাইগার মুশফিকুর রহিম। নিরাপত্তার অজুহাতে আগের দুই ধাপের সফরে পাকিস্তান যাননি তিনি।

আগামী এপ্রিলে করাচিতে টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচটি ও একটি ওয়ানডে খেলতে শেষ ধাপের সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল।

আর জিম্বাবুয়ে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করে বেশ ফর্মে থেকেও এবারও পাকিস্তান যাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন মুশফিক।

এ সিদ্ধান্তের জন্য নাকি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাশরাফির বিদায়ী ম্যাচেও খেলতে পারেননি তিনি।

বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটমহলে বেশ আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে।

এদিকে মুশফিকের পাকিস্তানে না যাওয়ার সিদ্ধান্তে তোলপাড় চলছে পাকিস্তানেও। কারণ চলমান পাকিস্তান সুপার লিগে উঠে এসেছে মুশফিকের নাম।

পেশাওয়ার জালমির জয়ের পর পাক পেসার হাসান আলী মুশফিকুর রহিমকে পাকিস্তানে আসার উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন।

মুশফিকের উদ্দেশে হাসান আলী বারংবার বলছেন, ‘আপনি আসুন, ক্রিকেটারদের জন্য পাকিস্তান নিরাপদ। আমরা আশ্বস্ত করছি আপনাকে।’

হাসান আলী জানান, ‘পিসিএলে নিজের দলের জয়ের পর কার্লোস ব্র্যাথওয়েট হাসান আলীকে প্রশ্ন করেছিলেন– মুশফিক কেন পাকিস্তানে আসছে না?’

জবাবে হাসান আলী বলেন, ‘আমি তাকে বলেছি– আসলে আমি নিশ্চিত নই এ বিষয়ে। তবে আমার মনে হয় ওর এখানে আসা উচিত, যেহেতু তার দলও আসছে। এই দেশ নিরাপদ।’

হাসান আলীর সঙ্গে সহমত জানিয়েছেন ব্র্যাথওয়েটও। তিনিও মনে করেন, সিদ্ধান্ত পাল্টে মুশফিকের পাকিস্তান সফরে আসা উচিত।

এদিকে গত ২ মার্চ মুশফিককে নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, আমরা মুশফিকের সঙ্গে বৈঠক করেছি। সে পাকিস্তানে যাবে না বলে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে।

এর আগে বিসিবিপ্রধান নাজমুল হাসান কড়া সমালোচনা করেন মুশফিকের। তিনি বলেন, ‘প্রত্যেক চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড়েরই পাকিস্তান সফরে যাওয়া উচিত।’

এর পরও নিজের সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছেন মুশফিক।

প্রসঙ্গত পারিবারিক কারণ দেখিয়ে প্রথম দুই দফায় পাকিস্তান সফরে যাননি মুশফিক। আগামী এপ্রিলে তৃতীয় ধাপে পাকিস্তানে যেতে মুশিকে বেশ চাপ দিচ্ছে বিসিবি। যদিও এর আগে বিদেশ সফরে খেলোয়াড়দের স্বাধীনতা দিয়েছেন তারা।

তথ্যসূত্র: ক্রিকবাজ।

মুশফিক কেন পাকিস্তানে আসছে না? প্রশ্ন হাসান আলী ও ব্র্যাথওয়েটের

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৮ মার্চ ২০২০, ০২:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তান সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্তে অনড় মিস্টার ডিপেন্ডেবল টাইগার মুশফিকুর রহিম। নিরাপত্তার অজুহাতে আগের দুই ধাপের সফরে পাকিস্তান যাননি তিনি।

আগামী এপ্রিলে করাচিতে টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচটি ও একটি ওয়ানডে খেলতে শেষ ধাপের সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল।

আর জিম্বাবুয়ে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করে বেশ ফর্মে থেকেও এবারও পাকিস্তান যাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন মুশফিক।

এ সিদ্ধান্তের জন্য নাকি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাশরাফির বিদায়ী ম্যাচেও খেলতে পারেননি তিনি।

বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটমহলে বেশ আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে।

এদিকে মুশফিকের পাকিস্তানে না যাওয়ার সিদ্ধান্তে তোলপাড় চলছে পাকিস্তানেও। কারণ চলমান পাকিস্তান সুপার লিগে উঠে এসেছে মুশফিকের নাম।

পেশাওয়ার জালমির জয়ের পর পাক পেসার হাসান আলী মুশফিকুর রহিমকে পাকিস্তানে আসার উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন।

মুশফিকের উদ্দেশে হাসান আলী বারংবার বলছেন, ‘আপনি আসুন, ক্রিকেটারদের জন্য পাকিস্তান নিরাপদ। আমরা আশ্বস্ত করছি আপনাকে।’

হাসান আলী জানান, ‘পিসিএলে নিজের দলের জয়ের পর কার্লোস ব্র্যাথওয়েট হাসান আলীকে প্রশ্ন করেছিলেন– মুশফিক কেন পাকিস্তানে আসছে না?’

জবাবে হাসান আলী বলেন, ‘আমি তাকে বলেছি– আসলে আমি নিশ্চিত নই এ বিষয়ে। তবে আমার মনে হয় ওর এখানে আসা উচিত, যেহেতু তার দলও আসছে। এই দেশ নিরাপদ।’

হাসান আলীর সঙ্গে সহমত জানিয়েছেন ব্র্যাথওয়েটও। তিনিও মনে করেন, সিদ্ধান্ত পাল্টে মুশফিকের পাকিস্তান সফরে আসা উচিত।

এদিকে গত ২ মার্চ মুশফিককে নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, আমরা মুশফিকের সঙ্গে বৈঠক করেছি। সে পাকিস্তানে যাবে না বলে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে।

এর আগে বিসিবিপ্রধান নাজমুল হাসান কড়া সমালোচনা করেন মুশফিকের। তিনি বলেন, ‘প্রত্যেক চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড়েরই পাকিস্তান সফরে যাওয়া উচিত।’

এর পরও নিজের সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছেন মুশফিক।  

প্রসঙ্গত পারিবারিক কারণ দেখিয়ে প্রথম দুই দফায় পাকিস্তান সফরে যাননি মুশফিক। আগামী এপ্রিলে তৃতীয় ধাপে পাকিস্তানে যেতে মুশিকে বেশ চাপ দিচ্ছে বিসিবি। যদিও এর আগে বিদেশ সফরে খেলোয়াড়দের স্বাধীনতা দিয়েছেন তারা।

তথ্যসূত্র: ক্রিকবাজ।

 

 

 

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর-২০২০

আরও খবর